২০ হাজার লোক বেকার হওয়ার উপক্রম
সোনারগাঁওয়ে নদীর উৎসমুখ বন্ধ করে দিয়েছে বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান
২০ হাজার লোক বেকার হওয়ার উপক্রম
Published : Tuesday, 21 November, 2017 at 12:00 AM, Update: 20.11.2017 10:07:41 PM
সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে বহুজাতিক পণ্য উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান আল মোস্তফা গ্রুপের নজর এবার মেঘনার শাখা নদী মেনিখালীর দিকে। অভিযোগ উঠেছে, উপজেলার বৈদ্যেরবাজারের মাছ ঘাট এলাকায় স্থানীয়দের ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি, জনপদের সড়ক অবৈধ দখলের পাশাপাশি মেনিখালী নদীর প্রবেশ মুখটিও বালু ফেলে বন্ধ করে দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির লোকজন। আর এসব অবৈধ কাজে সহায়তার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও কতিপয় সুযোগ সন্ধানী রাজনৈতিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে। স্থানীয় ভুক্তভোগীদের সঙ্গে বৈদ্যেরবাজার ঘাট এলাকায় গত এক সপ্তাহ ধরে এ অবৈধ বালু ভরাট নিয়ে চোর-পুলিশ খেলা চলছে বলে জানান স্থানীয়রা। এ নিয়ে স্থানীয় ভুক্তভোগীরা প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ করলেও প্রশাসন নীরব দর্শকের ভূমিকায় আছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের জিয়ানগর, ভবনাথপুর, বিরেশেরগঁাঁও, রতনপুর, ভাটিবন্দর, মরিচাকান্দী, জৈনপুর, হাবিবপুর, পিরোজপুর, কাদিরনগর, দুধঘাটা, মঙ্গলেরগাঁও, শম্ভুপুরা ইউনিয়নের কাজিরগাঁও, দুর্গাপ্রসাদ, চৌধুরীগাঁও, ময়নাকান্দী, টেকপাড়া, মুগারচর ও মোগরাপাড়া ইউনিয়নের কাবিলগঞ্জ, আলাবদী, নালআলাবদী, ভিন্নিপাড়া, ঋষিপাড়া, কাবিলগঞ্জ, দমদমা, খুলিয়াপাড়াসহ কমপক্ষে ৩০টি গ্রামের কয়েক হাজার পরিবার ও কৃষক এখনো মেনিখালী নদীর পানি দিয়ে তাদের পারিবারিক ও কৃষিকাজ করে থাকেন। তা ছাড়া শহরতলী হওয়ায় সোনারগঁাঁওয়ে নগরায়ন হচ্ছে দ্রুত। আর নগরায়ন হওয়ায় বিভিন্ন এলাকায় বালুসহ বিভিন্ন মালামাল পরিবহনে মেনিখালী নদীর ভূমিকা অনস্বীকার্য। এলাকাবাসীর অভিযোগ, আল মোস্তফা গ্রুপের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান হেরিটেজ পলিমার অ্যান্ড সেমি টিউবস লিমিটেড সাধারণ মানুষের জমি জোরপূর্বক দখল করে বালু ভরাটের পাশাপাশি মেনিখালী নদীটির প্রবেশ মুখও বালু দিয়ে বন্ধ করে দিচ্ছে। তা ছাড়া মেনিখালী নদী বন্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বন্ধ হয়ে যাবে অত্র অঞ্চলের কমপক্ষে ২০ হাজার মানুষের জীবিকার পথ। স্থানীয়রা প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ করেও কোনো সুরাহা না পাওয়ায় গত সোমবার ৮ গ্রামের মানুষ ঐক্যবদ্ধভাবে মেনিখালী নদী রক্ষায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ-পরবর্তী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দেয়া প্রতিষ্ঠানের পক্ষের লোকজন গত মঙ্গলবার সকাল থেকে বৈদ্যেরবাজার এলাকায় জনপদের জমিতে থাকা কয়েক শ’ ব্যবসায়ীর দোকান বন্ধ করে অবৈধভাবে প্রাচীর নির্মাণ করে। স্থানীয় এলাকাবাসী এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সীমানাপ্রাচীর নির্মাণে বাধা দেন এবং নির্মাণাধীন প্রাচীর উপড়ে ফেলেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কেন্দ্রীয় যুবলীগের এক কর্মীকে স্থানীয়দের উসকানি দেয়ার অভিযোগে এবং অবৈধভাবে বালু ফেলায় প্রতিষ্ঠানের পক্ষে কাজ করার একজনকে আটক করে। পরে অবশ্য মুচলেকা দিয়ে দুজনকেই ছেড়ে দেয়া হয়। স্থানীয় ভুক্তভোগী হাজী আজিজুল্লাহ জানান, তার ৭টি দাগে প্রায় ১ একর ১০ শতাংশ জমির মালিকানা নিয়ে স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিমের স্ত্রী সুরাইয়া করিম মুন্নির সঙ্গে আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। এ অবস্থায় সুরাইয়া করিম মুন্নি ওই জমিটি ‘হেরিটেজ পলিমার অ্যান্ড সেমি টিউবস লিমিটেডের’ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আল মোস্তাফার কাছে বিক্রি করেন। বর্তমানে ওই সম্পত্তিতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা জারি থাকলেও প্রতিষ্ঠান আদালতের নিষেধ অমান্য করে বালু ভরাট করছে। এ ঘটনায় ভোক্তভোগী আজিজুল্লাহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পরিবেশ অধিদফতর ও সোনারগাঁও থানায় অভিযোগ করেন। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ আমলেই সংখ্যালঘুরা বেশি নির্যাতিত। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
9018 জন