খুলনায় এক যুবককে গুলি করে হত্যা
Published : Wednesday, 22 November, 2017 at 12:00 AM
খুলনা ব্যুরো, দিনকাল : নগরীর দৌলতপুর থানা এলাকার পাবলা কেশব লাল রোড থেকে মঙ্গলবার ভোরে পুলিশ অনুপ দাশ (২৬) নামে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে। : নিহত অনুপ পাবলা এলাকার তিন দোকানের মোড়ের বাসিন্দা ক্রিসেন্ট জুট মিলের শ্রমিক সাধন দাশের পুত্র। সে গত সোমবার বিকেলে বাড়ী থেকে বেরিয়ে যায় আর রাতে ফেরে নি। স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করেছে। তার বুকের পাজর এবং হাতে গুলিতে জখমের চিহ্ন রয়েছে। থানা-পুলিশ এসব তথ্য জানিয়েছে। দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও সি) হুমায়ুন কবীর বলেছেন,খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গ থেকে ময়না তদন্তের পর দুপুরে লাশ নিহতের পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে তিনি এখনও নিশ্চিত নন। : ও সি বলেন, অনুপ একটি এনজিও তে চাকরি করত। কিন্তু সেখান থেকে চাকরি চলে যাওয়ার পর গত এক বছর ধরে সে বেকার ছিল। এ সময় সে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে এবং তার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ ছিল। তবে তার বিরুদ্ধে থানায় এ সংক্রান্ত কোনো মামলা নেই। : নিহতের ভাই সাগর দাশ সাংবাদিকদের বলেন,অনুপ সরকারি ব্রজলাল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্র ছিল। লেখাপড়ার পাশাপাশি ভাল ক্রিকেট খেলোয়াড়ও ছিল। বিকেলে কয়েকজন তাকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এর পর ভোরে রাস্তায় তার লাশ পাওয়া যায়। : অনুপ এর আগে প্রেম করে স্থানীয় সবুজ সংঘ মাঠের পাশের বাসিন্দা জনৈক বিপ্লব মণ্ডলের কন্যা পাখি মন্ডলকে বিয়ে করেছিল। পাখির পরিবার এই বিয়ে মেনে নেয়নি। বিয়ের পর কিছুদিন যেতে না যেতেই পাখি অনুপকে ডিভোর্স দিয়েছিলেন। এই নিয়ে দু’পরিবারের মধ্যে বিরোধ চলছিল বলে সাগর জানিয়েছেন। তবে হত্যাকান্ডের কারণ অথবা কারা তাকে হত্যা করতে পারে সে সম্পর্কে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ধারণার কথা বলতে পারেননি। : এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় থানায় কোনো মামলা নথিভুক্ত হয়নি এবং জড়িত সন্দেহে পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেন নি বলে জানা গেছে। দৌলতপুর থানার ওসি হুমায়ন কবির আরো জানান, ফজরের নামাজ পড়তে যাওয়া মুসল্লিরা গলির ভিতরে অনুপকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে সংবাদ দেয়। সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর থানার পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য খুমেক হাসপাতালে পাঠায়। নিহতের পিতা সাধন দাস বলেন তার ছেলে মাদকাসক্ত ও পরিবারের কথার অবাধ্য ছিল। সোমবার বিকাল ৫ টায় অনুপ ঘর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর আর ফিরে আসেনি। সে খালিশপুরের প্লাটিনাম জুট মিলের পাট বিভাগের যাচায়ের শ্রমিক। সকালে মিলে কাজ করার সময় লোক মুখে তার পুত্রের খুন হওয়ার সংবাদ পান। এলাকাবাসী জানায়, অনুপ পাড়ার নাম করা ক্রিকেটার ছিল। সে খুব ভাল স্যাডো ক্রিকেট খেলত। মাঝে মধ্যে দৌলতপুর থানার উপ-পরিদর্শক চিন্ময়ের সোর্সের কাজ করত। তার বিরুদ্ধে মাদক বেচা কেনার অভিযোগ আছে বলে এলাকাবাসী জানায়। : ওসি হুমায়ন কবির জানান, অনুপ হত্যার সাথে মাদক কেনা বেচার সম্পর্ক থাকতে পারে। হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে কিছু তথ্য পুলিশ পেয়েছে সে বিষয়ে তদন্ত ও অভিযান চলছে বলে তিনি জানান। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

ফেনী জেলা আ’লীগের নেতারা বলেছেন, খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার নেপথ্য নায়ক নিজাম হাজারী। এরপরেও আ’লীগ মিথ্যাচার করবে বলে মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7932 জন