তারেক রহমান নতুন বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখিয়েছেন : ফখরুল
Published : Thursday, 23 November, 2017 at 12:00 AM, Update: 22.11.2017 10:37:44 PM
তারেক রহমান নতুন বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখিয়েছেন : ফখরুলদিনকাল রিপোর্ট : বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান তরুণ-যুবকদের নতুন বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখিয়েছেন বলে মন্তব্য করে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তারেক রহমান তরুণদের নেতা; তিনি স্বপ্ন দেখিয়েছেন নতুন বাংলাদেশের, যেখানে থাকবে না গুম, খুন ও বিচারবহির্ভূত হত্যা। থাকবে সৃজনশীল রাজনীতি। থাকবে দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি। তাই সত্যিকার অর্থে দেশ ও জাতির স্বাধীনতা ও মানুষের মুক্তি, গণতন্ত্র পেতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে জেগে উঠতে হবে। লন্ডনে অবস্থানরত দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে হলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকার পরিবর্তন করতে হবে। আমরা যদি এই সংগ্রামে জয়ী হতে পারি, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে পারি, জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারি। তাহলেই তারেক রহমান দেশে আসবেন, অন্যথায় নয়। গতকাল বুধবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উপলে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। ২০ নভেম্বর ছিল তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন। : মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশে ‘জগদ্দল পাথরের’ মতো মতায় বসে থাকা মতাসীনদের হটাতে ‘জোর’ করতে হবে। জিম্বাবুয়ের স্বৈরাচার মুগাবের পতন হয়েছে। তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন। সেই খবর পত্রিকায় ছোট্ট। কারণ এই যে স্বৈরাচার যারা জাতির বুকে জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসে আছে এই খবর দিলে সিংহাসন...। সুতরাং এই খবর বড় করে দেয়া যাবে না। প্রিয় ছাত্র ভাইয়েরা-তরুণ ভাইয়েরা-বন্ধুগণ-সহকর্মীগণ- এই জগদ্দল পাথরকে আমরা যদি সরাতে না পারি, আমাদের জাতীয় অস্তিত্ব থাকবে না। আমরা একটা ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবো। আমাদের রাষ্ট্র থাকবে, পতাকা থাকবে, আমাদের কোনো অস্তিত্ব থাকবে না, স্বাধীনতা থাকবে না। : তিনি বলেন, স্বাভাবিক সাধারণ পদ্ধতিতে আমরা এই পাথর সরাতে পারবো বলে মনে হয় না। একে সরাতে গেলে ঠিকই লোহার হাতুড়ি লাগবে। জোর করে তাদের সরাতে হবে, তাছাড়া এমনিতে যাবে না। এজন্য ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, আমি বারবার অনুরোধ করছি, আবারো করছি সত্যিকার অর্থে যদি আমাদের জাতির স্বাধীনতা আমরা চাই, আমরা মানুষের মুক্তি চাই, আমরা অধিকার ফিরে পেতে চাই, তাহলে আমাদেরকে আজকে জেগে উঠতে হবে। জেগে উঠবেন আপনারা (ছাত্র-ছাত্রীরা)। আমরা বয়োঃবৃদ্ধ, আমরা বৃদ্ধ, আমরা কথা বলতে পারি কিন্তু কাজের সেই শক্তি আমাদের নেই। মনীষীরা বলেছেন, পুট দ্যা ওয়েজ এ ইয়াং সোলজার। সেই ইয়াং সোলজার আমাদের দরকার। আপনারা এগিয়ে আসুন, সংগঠিত হোন, সমস্ত বাধা সরে যাবে। : দেশের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এরা (সরকার) দেশকে একটা ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্র করছে এবং সেটা প্রায় করে নিয়ে এসেছে। গণতন্ত্রের স্তম্ভগুলোকে ভেঙে দিয়েছে। সংসদ  নেই। নির্বাচিত প্রতিনিধি নেই। গৃহপালিত বিরোধী দল রেখেছে যা সংসদে আনে তা পাস করে দেয়। প্রশাসন সম্পূর্ণ দলীয়করণ করেছে। এখানে মিডিয়ার ভাইয়েরা আছেন। প্রতিদিন টেলিফোন টেলিফোন- কোনটা যাবে কোনটা যাবে না, কোনটা লেখা হবে কোনটা লেখা হবে না। কোনটা গুরুত্ব পাবে কোনটা পাবে না- তা পর্যন্ত বলে দেয়। আজকের পত্রিকায় দেখবেন বিরাট খবর কিন্তু পত্রিকায় নিউজ ছোট্ট। কী খবর জিম্বাবুয়ের মুগাবের পতন। সেই নিউজ ছোট্ট। : সদ্য পদত্যাগকারী প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ওপর সরকারের ভূমিকার চিত্র তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধান বিচারপতিকে এক মাসের ছুটিতে পাঠানো হলো জোর করে। সেই নাটক কি হয়েছে আমরা সবাই জানি এবং তাকে বিদেশে যেতে বাধ্য করা হলো- আপনি পদত্যাগ করেন। কোথায় যাবেন? সরকার বিরোধী দলের ওপর নিপীড়ন নির্যাতন ও ‘গুম-হত্যা’ করে মতায় টিকে আছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। : ব্যাংকিং কোম্পানি আইন (সংশোধন)- ২০১৭ প্রসঙ্গ টেনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এই সরকার লুটপাটের মধ্য দিয়ে আমাদের অর্থনীতিকে সবচেয়ে বেশি তি করেছে। মজার জিনিস কী? ব্যাংকিংয়ে একটা আইন করেছিল পরিচালক কারা হবে? একই পরিবার থেকে কয়জন হবে। সেটা তারা (সরকার) সংশোধন করে একই পরিবার থেকে পরিচালক ৪ জন হবে এবং তারা ৯ বছর পরিচালক থাকতে পারবে। এই ব্যাংকের মাধ্যমে লুটপাট হয়, এই ব্যাংকের মাধ্যমে অর্থনীতিকে শূন্য করে ফেলে। এক শ্রেণির মানুষ অর্থ-বিত্তের পাহাড় গড়ে তোলে। দেখুন না, হলমার্ক, বিসমিল্লাহ গ্রুপ হাজার হাজার কোটি টাকা লুট করে নিয়েছে। এভাবে তারা একটা লুটেরার বৃত্ত তৈরি করেছে। : ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব আহসানের সভাপতিত্বে  এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উ?দ্দীন চৌধুরী এ্যানী, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সহপ্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম  খান আলীম, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভুইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সিনিয়র সহসভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন, সহসভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, তরিকুল ইসলাম টিটু, নাজমুল হাসান, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, কাজী মোখতার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিয়া মোহাম্মদ রাসেল, মেহবুব মাছুম শান্ত, ওমর ফারুক মুন্না, মিজানুর রহমান সোহাগ, নুরুল হুদা বাবু  প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সেলিনা সুলতানা নিশিতা, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মাহমুদ, সহসাধারণ সম্পাদিকা আরিফা সুলতানা রুমা, সদস্য আমজাত হোসেন শাহাদাৎ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক বাশার, ঢাকা মহানগর ছাত্রদল দক্ষিণের সভাপতি জহির উদ্দিন তুহিন, ঢাকা মহানগর ছাত্রদল পশ্চিমের সভাপতি কামরুজ্জামান জুয়েল, ঢাকা মহানগর ছাত্রদল উত্তরের দফতর সম্পাদক তানভীর আহমেদ খান ইকরামসহ হাজার হাজার ছাত্রদলের নেতাকর্মী। :   : : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। এতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হবে বলে বিশ্বাস করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
26072 জন