দুর্গাপুরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ
Published : Sunday, 26 November, 2017 at 12:00 AM
দুর্গাপুর (রাজশাহী) সংবাদদাতা : রাজশাহী দুর্গাপুর যুগিশো সরকারি প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ময়েজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে জাল স্বাক্ষর করে স্কুল সংস্কারের ১ লাখ ৩১ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, যুগিশো প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়ে ২০১৬-১৭ সালের অর্থবছরের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার খেলাধুলা সামগ্রী ও স্কুল সংস্কারের নামে ৩ দাফায় ১ লাখ ৩৬ হাজার টাকা উত্তোলন করেন ওই প্রধান শিক্ষক। স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সব সদস্যের অজান্তে সভাপতি গোলাম রসুলের স্বাক্ষর জাল করে মূলত প্রধান শিক্ষক ময়েজ উদ্দিন এ টাকা উত্তোলন করেন। তিনি প্রথম দফায় ৫ হাজার টাকা, দ্বিতীয় দফায় ৩৭ হাজার ও তৃতীয় দফায় ৯৪ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। এভাবে তিনি ৩ দফায় টাকা উত্তোলন করেন, যা প্রতিষ্ঠানের নামে মাত্র ৫ হাজার টাকার ব্যয় করে পুরোটাই তিনি আত্মসাৎ করেন। এ বিষয়ে অত্র প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটির সভাপতি গোলাম রসুলের সঙ্গে কথা বলা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ময়েজ উদ্দিন কমিটির কাউকে না জানিয়েই তিনি ৩ দফায় তার স্বাক্ষর জাল করে টাকা উত্তোলন করেছেন এবং এ বিষয়ে জানাজানির পর তাকে বারবার সব সদস্যের সঙ্গে বসার জন্য বলা হলে তিনি কাউকে তোয়াক্কা না করে বিভিন্ন তালবাহানা দেখিয়ে কালক্ষেপণ করে চলেছেন। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক ময়েজ উদ্দিনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিক পরিচয় জানার পরে তিনি পরে কথা বলব বলে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। পরে এ বিষয়ে তার সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার সঙ্গে কথা সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে দুর্গাপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমি সবেমাত্র দুর্গাপুরে যোগদান করেছি। এ বিষয়ে আমার জানা নেই। তবে যুগিশো সরকারি প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে কোনো আশার আলো দেখতে পান?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
24914 জন