আইনজীবীদের কর্মবিরতিতে অচল হয়ে পড়েছে চট্টগ্রামের আদালত
Published : Tuesday, 28 November, 2017 at 12:00 AM
দিনকাল রিপোর্ট : আদালতের এজলাস চলছে অথচ আইনজীবী নেই। আইনজীবীরা জড়ো হয়ে এক জায়গায় বিক্ষোভ করছেন তাদেরই সহকর্মী ওমর ফারুক বাপ্পী হত্যার প্রতিবাদ এবং হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে। গতকাল সোমবার সকাল থেকে দিনভর এমন দৃশ্যই দেখা যায় চট্টগ্রাম আদালত ভবনে। আর আদালতের এজলাস কক্ষে আইনজীবীর অভাবে প্রায় অচল হয়ে পড়ে বিচার কার্যক্রম। দুর্ভোগের শিকার হন বিচারপ্রার্থীরা। : আইনজীবী ওমর ফারুক বাপ্পী হত্যার প্রতিবাদে গতকাল সোমবার দিনভর কর্মবিরতি পালন করেন চট্টগ্রাম আদালতের আইনজীবীরা। গত রবিবার দেড় ঘন্টার অবস্থান কর্মসূচি পালনের পর এই কর্মবিরতির ডাক দেয় আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ। : এদিকে আইনজীবী ওমর ফারুক বাপ্পীর হত্যাকারী রোহিঙ্গা নারী রাশেদা আক্তার ও তার সহযোগীদের চিহ্নিত করলেও পলাতক থাকায় পুলিশ এখনো তাদের গ্রেফতার করতে পারেনি বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর চকবাজার থানার ওসি নুরুল হুদা। ঘটনাটির তদন্ত কার্যক্রমে নিয়োজিত পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক (মেট্রো) সন্তোষ কুমার চাকমাও জানান একই কথা। তিনি বলেন, রাশেদা ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারে পুলিশের একাধিক দল চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার এলাকায় কাজ করছে। ওসি নুরুল হুদা ও পিবিআই পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা জানান, শনিবার সকালে খবর পেয়ে চট্টগ্রাম মহানগরীর কেবি আমান আলী সড়কের বড়মিয়া মসজিদ এলাকার এনইউ ভবনের নিচতলার একটি কক্ষ থেকে আইনজীবী ওমর ফারুক বাপ্পীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় বাপ্পীর হাত-পা বাঁধা ছিল। টেপ দিয়ে মোড়ানো ছিল মুখ। শরীরের কোথাও কোনো আঘাত না থাকলেও তার পুরুষাঙ্গ দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল। এ থেকে অনুমেয়, নারীঘটিত কোনো কারণে খুন হন আইনজীবী ওমর ফারুক বাপ্পী। পরে বাপ্পীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। শনিবার রাতে বাপ্পীর বাবা বাদী হয়ে চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ পরে বাপ্পীর সহকারী আসাদকে জিজ্ঞাসাবাদে রাশেদা আক্তারের সম্পৃক্ততা মেলে। কিন্তু রাশেদা পলাতক থাকায় এ হত্যাকান্ড এখনো রহস্যাবৃত রয়ে গেছে। আসাদের উদ্ধৃতি দিয়ে পিবিআই কর্মকর্তা সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের বাসিন্দা রাশেদা বেগম ও তার স্বামী ইয়াবা পাচার করতে গিয়ে ধরা পড়ে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরের এ ঘটনায় বাকলিয়া থানায় মাদকের মামলা হয়। ওই মামলায় রাশেদাকে জামিনে বের করেন বাপ্পী। সে সময় ওই নারীর সঙ্গে বাপ্পীর ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

দ্রুত রোহিঙ্গা সঙ্কটের সমাধান দেখছেন না ব্রিটিশ মন্ত্রী। আপনিও কি তাই দেখছেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
630 জন