রূপগঞ্জে কীর্তন আয়োজনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের ব্যাপক উত্তেজনা
Published : Thursday, 7 December, 2017 at 12:00 AM
রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মহানামযজ্ঞ অনুষ্ঠান (কীর্তন) আয়োজনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মাঝে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। একই স্থানে একই অনুষ্ঠান আলাদাভাবে আয়োজনের প্রস্তুতিকে কেন্দ্র করে এ উত্তেজনা দেখা দেয়। অনুষ্ঠান উদযাপনের লক্ষ্যে অস্ত্র নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে মহড়া দেয়ারও অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে। উপজেলার টানমুশুরী এলাকার রাধা গোবিন্দ মন্দির-সংলগ্ন সনাতন পল্লীতে গত মঙ্গলবার বিকেলে এ উত্তেজনা দেখা দেয়। : প্রত্যক্ষদর্শী ও অনুষ্ঠান আয়োজকদের সূত্রে জানা গেছে, বিগত ৯ বছর ধরে টানমুশুরী এলাকার রাধা গোবিন্দ মন্দিরে স্থানীয় পরিতোষ সরকার তার লোকজন নিয়ে ‘শ্রী শ্রী রাধা কৃষ্ণের লীলা কীর্তন ও শ্রী শ্রী তারকব্রক্ষ মহানামযজ্ঞ অনুষ্ঠান উদযাপন করে আসছেন। চলতি বছরের ২২ ডিসেম্বর থেকে ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থানীয় মানিক সরকারের আঙিনায় একই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে পরিতোষসহ টানমুশুরী সার্বজনীন মন্দির পূজা কমিটি। কিন্তু চলতি বছর হুবহু অনুষ্ঠান একই সময়ে একই স্থানে আয়োজনের ঘোষণা দেন একই এলাকার বিনয় অধিকারী, স্বপন সরকারসহ আরো কয়েকজন। এ নিয়ে মন্দির পূজা কমিটির লোকজনদের সঙ্গে তাদের দ্বন্দ্ব শুরু হয়। অনুষ্ঠান উদযাপনের লক্ষ্যে গত মঙ্গলবার বিকেলে বিনয় অধিকারী, স্বপন সরকার ভাড়াটে লোকজন এনে টানমুশুরী সনাতন পল্লী এলাকার লোকজনদের মাঝে আতঙ্ক তৈরির উদ্দেশ্যে প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে মহড়া দেয় বলে অভিযোগ করেন পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হরিহর সরকার। পরে এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যায়। এমন অনাকাক্সিক্ষক পরিস্থিতি মোকাবিলায় শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখাসহ শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠান পালন করতে টানমুশুরী সার্বজনীন মন্দির পূজা কমিটি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও রূপগঞ্জ থানার ওসির বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন। :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

রসিক নির্বাচন অবাধ হবে না বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রার্থীরা। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7213 জন