রানীশংকৈলে ফুটপাত ব্যবসায়ীদের দখলে
Published : Friday, 8 December, 2017 at 12:00 AM
রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : মহাসড়কের কার্পেটিং উঠে খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। বেহাল দশা সাধারণ পথচারীরাসহ পরিবহন চালকদের এমনিতেই চলাচলে অনেক সমস্যা। তার উপর সড়ক ও জনপথের মহাসড়কের দুই ধারের ফুটপাত দখল করে ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল পৌর শহরের ব্যবসায়ীরা করছেন ব্যবসা-বাণিজ্য। এতে ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ পথচারীসহ গাড়িচালকরা। এ মহাসড়ক দিয়েই জেলা সদর ঠাকুরগাঁওয়ে যেতে হয় উপজেলার বসবাসকারী মানুষকে। এ কারণে উপজেলার ব্যস্ততম মহাসড়ক এটি। এ ছাড়া পরিবহনের মধ্যে ক্রসিং করতে অনেক বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে চালকদের। এ কারণে অনেক সময় ছোটো-খাট দুর্ঘটনা ঘটছে। এ ছাড়া বিভিন্ন সময়ে অহেতুক পরিবহন যানজটের শিকার হচ্ছেন উপজেলাবাসী। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে পৌরসভার মেয়র বা উপজেলা প্রশাসনের কোনো নজর নেই। রানীশংকৈল পৌরসভার বাণিজ্যিক এলাকার প্রধান মহাসড়কে ৩ থেকে ৬ ডিসেম্বর একাধিক সময়ে সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলা ডাকঘর অফিস থেকে বন্দর হয়ে আবাদতাকিয়া মাদ্রাসা মোড় পর্যন্ত প্রায় ২ কি.মি. অধিক ব্যস্ততম এ মহাসড়কের দুই ধারের ফুটপাত দখল করে বাণ্যিজিক পণ্য রেখেছেন ব্যবসায়ীরা। বিশেষ করে শিবদীঘি আলী চায়ের দোকান, চাঁদনি সিনেমা হলের সামনে থেকে রেশম কারখানা পর্যন্ত বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী স্টিলের আসবাবসহ বিভিন্ন সামগ্রী বানিয়ে বাণ্যিজিক ভাইল হিসেবে মহাসড়কের ফুটপাত দখল করে রেখেছেন। এ ছাড়া বন্দর এলাকার ব্যবসায়ীরা মহাসড়কের ফুটপাত দখল করে সাইনবোর্ডসহ ব্যবসায়ী বিভিন্ন সামগ্রী দিয়ে দখল করে রেখেছেন। এ কারণে এসব ব্যবসায়ীর কাস্টমাররা মোটরসাইকেল, সাইকেল কিংবা প্রাইভেট কার যে পরিবহন নিয়ে আসুক না কেন তারা পার্কিং করছেন একেবারে মহাসড়কের ওপর। নির্দিষ্ট কোনো স্থান না থাকায় বন্দর ডিগ্রি কলেজের সামনে পাগলু স্ট্যান্ড গড়ে তুলেছেন চালকরা এবং নাইটকোচগুলো দিনব্যাপী পার্কিং করা থাকে মহাসড়কের ফুটপাত দখল করে। এ কারণে এখানে মাঝেমধ্যেই পরিবহন যানজটের সৃষ্টি হয়। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর মানুষের আস্থা কমেছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
32717 জন