কালীগঞ্জে গ্রামীণ নারীদের সুস্বাদু কুমড়ার বড়ি
Published : Friday, 8 December, 2017 at 12:00 AM
জাকারিয়া হোসেন, কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) থেকে : গ্রামবাংলার এমনকি শহরের মানুষের অতি প্রিয় সুস্বাদু খাদ্য কুমড়ার বড়ি। শীত মৌসুমে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য সুস্বাদু এ খাদ্য তৈরি হয় কালীগঞ্জ উপজেলার সর্বত্রই। বর্তমানে জেলার ৬টি উপজেলার গ্রামীণ নারীদের মধ্যে কুমড়ার বড়ি তৈরির প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার এমন কোনো গ্রাম বা মহল্লা নেই যেখানে কুমড়ার বড়ি তৈরি হচ্ছে না।  শীত মৌসুম শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গ্রামীণ নারীদের মধ্যে শুরু হয়েছে সুস্বাদু কুমড়ার বড়ি তৈরির উপকরণ সংগ্রহ। গ্রামের অনেকেই বাণিজ্যিকভাবে এ কুমড়ার বড়ি তৈরি করে বিভিন্ন হাট-বাজারে বিক্রি করে থাকেন। হাট-বাজারে সুস্বাদু ও পুষ্টিকর এ খাবারের চাহিদা বেশি। শীত মৌসুমে এ বড়ি তৈরির প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। সুস্বাদু ও পুষ্টিকর গ্রামবাংলার এ কুমড়ার বড়ি তৈরি করতে বিভিন্ন উপকরণ প্রয়োজন হয়। অপরদিকে এ বড়ি তৈরি করতে বেশ পরিশ্রম করতে হয়। সবচেয়ে সহজ উপকরণ হচ্ছে চাল কুমড়া ও মাষ কলাইয়ের ডাল বিভিন্ন গ্রাম থেকে সহজেই সংগ্রহ করা যায়। বর্তমানে মাষ কলাইয়ের দাম বেশি হওয়ায় গ্রামীণ বধূরা আগের মতো ইচ্ছা করলেই বড়ি তৈরি করতে পারছেন না। বড়ি তৈরি করতে চাল কুমড়া ফালি দিয়ে কেটে তা বহু ছিদ্র যুক্ত ধারালো টিনের পাত্রের উপর ঘষে মাষ কলাই ও চাল কুমড়া ঢেঁকিতে অথবা শীল পাটায় বেটে লবণ মিশিয়ে কুমড়ার বড়ি তৈরির মন্ড করা হয়। তা আবার একটি পাত্রে ভালো করে ফেনিয়ে টিন অথবা বাঁশের মাচা তৈরি করে তার উপর মাদুর বা একটি পরিষ্কার কাপড় বিছিয়ে ছোট ছোট আকৃতির বড়ি রোদে শুকাতে হয়। শীত মৌসুমে কুমড়ার বড়ি তৈরি করার উত্তম সময়। সুস্বাদু ও পুষ্টিকর এ খাবারের ব্যাপক চাহিদা থাকার সুযোগে এক শ্রেণীর মানুষ চাল কুমড়া ও মাষ কলাইয়ের দাম বেশি হওয়ায় বড়ি তৈরির বিকল্প উপকরণ হিসেবে কুমড়ার পরিবর্তে পেঁপে দিয়ে এ বড়ি তৈরি করছেন। কালীগঞ্জ বাজারে এক কেজি কুমড়ার বড়ি ৩০০ টাকা থেকে সাড়ে ৩৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কুমড়ার বড়ি এমনই এক সুস্বাদু ও লোভনীয় খাদ্য যার নাম শুনলেই খেতে ইচ্ছা হয়। এ সুস্বাদু ও মজাদার কুমড়ার বড়ি খায় না এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কম। গ্রামের বধূরা এ সুস্বাদু খাদ্য বিভিন্ন সময়ে খাবার জন্য শীত মৌসুমে বেশি করে বড়ি তৈরি করে ভালো করে রোদে শুকিয়ে ঘরে মজুদ করে রাখেন। কুমড়ার বড়ি বিভিন্ন তরকারির সঙ্গে রান্না করলে তরকারির স্বাদ ভালো হয়। এ ছাড়া কুমড়ার বড়ি যে কোনো মাছ বা সবজির সঙ্গে রান্না করে খাওয়া যায়। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর মানুষের আস্থা কমেছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
32680 জন