ফের ফল বিপর্যয়ে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড
Published : Sunday, 31 December, 2017 at 12:00 AM
শাহাজাদা এমরান, কুমিল্লা, দিনকাল : চলতি বছরে অনুষ্ঠিত এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষার পর এবার জেএসসি পরীক্ষায়ও খারাপ করে ফল বিপর্যয়ের হ্যাট্রিক করল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লা। জেএসসি পরীক্ষায় গত ৫ বছরের মধ্যে এবার সর্বনিম্ম রেজাল্ট করল কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড। আর এবার শুধু গণিত আর ইংরেজিতেই ফেল করেছে ১ লাখ ২২ হাজার ৫৯৬ জন। পর পর তিনটি পাবলিক পরীক্ষায় দেশের অন্যান্য শিক্ষাবোর্ডের তুলনায় কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের এ ফল বিপর্যয় মেনে নিতে পারছে না কুমিল্লার সচেতন মহল। তারা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে এর কারণ খুঁজে দেখার দাবি তুলেছেন। : কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে এবার জেএসসি পরীক্ষার ফলাফলে চরম বিপর্যয় ঘটেছে। এবার এ বোর্ডে পাসের হার ৬২.৮৩ শতাংশ। এ বছর ২ লাখ ৬১ হাজার ৭৫৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ১ লাখ ৬৪ হাজার ৪৫৬ জন এবং জিপিএ ৫ পেয়েছে ৮ হাজার ৮৭৫ জন। এছাড়া এ বছর মাত্র ৬১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। তবে বোর্ড কর্তৃপক্ষ জানায়, এ বছর ইংরেজি এবং গণিতে প্রায় সোয়া লাখ পরীক্ষার্থী ফেল করায় এমন ফল হয়েছে। : বোর্ড সূত্রে জানা যায়, এ বছর ২ লাখ ৬১ হাজার ৭শ' ৫৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ১ লাখ ৬৪ হাজার ৪৫৬ জন। পাসের হার ৬২ দশমিক ৮৩ শতাংশ। এ বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ হাজার ৮৭৫ জন শিক্ষার্থী। এ বোর্ডের গত ৫ বছরের ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২০১৩ সালে পাসের হার ছিল ৯০ দশমিক ৪৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১৬ হাজার ৯৫জন শিক্ষার্থী। ২০১৪ সালে পাসের হার ৯৩.৭৫ ও জিপিএ-৫ অর্জন করে ১৭ হাজার ২৬৪ জন, ২০১৫ সালে পাসের হার ৯২.৫১ ও জিপিএ-৫ অর্জন করে ২০ হাজার ৭৪৭ জন এবং ২০১৬ সালে পাসের হার ৮৯.৬৮ ও জিপিএ-৫ লাভ করে ১৯ হাজার ১৮৬ জন। ৫ বছরের তুলনায় এ বছর সর্বনিম্ন ফলাফল হয়েছে। : এদিকে গত এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে দেশের সকল বোর্ডের মধ্যে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের ধারাবাহিক ফলাফল বিপর্যয়ের পর এবার জেএসসি'র এমন ফলাফলের জন্য অভিভাবক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ বোর্ড কর্তৃপক্ষকে দুষছেন। : বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বাহাদুর হোসেন জানান, এবার জেএসসিতে মফস্বল এলাকার বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ইংরেজিতে ফেল করেছে ৭৬ হাজার ৬৮১ জন এবং গণিত বিষয়ে ফেল করেছে ৪৫ হাজার ৯১৫ জন শিক্ষার্থী। এ কারণে অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর পাসের হার কমে গেছে। : বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতি ( নাটাব) কুমিল্লার সাধারণ সম্পাদক ডা. গোলাম শাহজাহান ফল বিপর্যয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, চলতি ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত ৩টি পাবলিক পরীক্ষায়ই কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড ভয়াবহ খারাপ ফল করেছে। এটা কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উচিত মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি করে এর কারণ বের করা। : সুজন কুমিল্লার সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট মানবাধিকার সংগঠক আলী আকবর মাসুম বলেছেন, এবার জেএসসি পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে শুধু মাত্র ইংরেজি এবং অংকেই ফেল করেছে এক লাখ সাড়ে বাইশ হাজার শিক্ষার্থী। এটা অনুসন্ধান করে বের করা জরুরি । একটি শিক্ষা বোর্ডে যদি পর পর তিনটি পাবলিক পরীক্ষা খারাপ হয় তাহলে এটা ভবিষ্যতের জন্য মঙ্গল বয়ে আনতে পারে না। : কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাপ্তাহিক আমোদ এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক বাকীন রাব্বী বলেছেন, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চরম দায়িত্বহীনতার কারণেই এ অবস্থ্ াহয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিচার হওয়া উচিত। : এ দিকে, গতকাল শনিবার দিনভর চেষ্টা করেও কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, সচিব ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের মোবাইলে তাদের পাওয়া যায় নি। ফলে ফল বিপর্যয় সম্পর্কে এই তিন দায়িত্বশীল কর্মকর্তার বক্তব্য পাওয়া যায় নি। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, আবারও বিতর্কিত নির্বাচন হলে দেশ বিপর্যয়ে পড়বে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7242 জন