ফরহাদ মজহার দম্পতিকে আদালতে হাজিরার নির্দেশ
Published : Monday, 1 January, 2018 at 12:00 AM
ফরহাদ মজহার দম্পতিকে আদালতে হাজিরার নির্দেশদিনকাল রিপোর্ট : ফরহাদ মজহার ও তার স্ত্রী ফরিদা আকতারের বিরুদ্ধে করা পুলিশের মামলা আমলে নিয়েছেন বিচারিক আদালত। আগামী ৩০ জানুয়ারি এই দম্পতিকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেছেন আদালত। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ‘অপহরণের মামলা দায়ের করে পুলিশ প্রশাসনকে হয়রানি’র। ৩ জুলাই ভোরে রাজধানীর শ্যামলীর বাসা থেকে অপহৃত হন ফরহাদ মজহার। ওইদিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোরের অভয়নগর এলাকায় খুলনা থেকে ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। পরদিন ৪ জুলাই ফরহাদ মজহার ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় ভিকটিম হিসেবে আদালতে জবানবন্দি দেন। পরে আদালতের অনুমতি নিয়ে তিনি নিজ জিম্মায় যান। : এদিকে গতকাল রবিবার ঢাকার মহানগর হাকিম সুব্রত ঘোষের আদালত পুলিশের দায়ের করা মামলাটি আমলে নিয়ে এই আদেশ জারি করেন। আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা উপপরিদর্শক আলম মিয়া সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। : প্রসঙ্গত, গত ২৮ ডিসেম্বর মিথ্যা তথ্য দিয়ে হয়রানির অভিযোগ এনে পুলিশের পক্ষ থেকে ফরহাদ মজহার ও তার স্ত্রী ফরিদা আকতারের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়। একই সঙ্গে পুলিশের পক্ষ থেকে আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারিরও আবেদন করা হয়। : এর আগে ৭ ডিসেম্বর ফরহাদ মজহার অপহরণের ঘটনায় ওই পরিবারের দায়ের মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করে পুলিশ। একই সঙ্গে ফরহাদ মজহার ও ফরিদা আকতারের বিরুদ্ধে মামলা করার অনুমতি চাওয়া হয়। আদালত চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করে পুলিশকে মামলা করার অনুমতি দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতেই গত ২৮ ডিসেম্বর গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) পরিদর্শক মাহবুবুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন। : মামলায় পুলিশ বলেছে, গত ৩ জুলাই ফরহাদ মজহার অপহৃত হয়েছেন বলে অভিযোগ এনে ফরিদা আকতার আদাবর থানায় মামলা করেন। ডিবি পুলিশ মামলাটি তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দিয়ে বলে, ফরিদার অভিযোগ সত্য নয়। : পুলিশের চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিলের দুদিন পর ৯ ডিসেম্বর ফরহাদ মজহার তার হক গার্ডেনের বাসায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। তিনি দাবি করেন, অপহরণকারীরা তাকে খুলনা-যশোর সীমান্তের দিক দিয়ে সীমান্তের ওপারে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল। গত ৩ জুলাই ভোর ৫টার দিকে শ্যামলীর হক গার্ডেনের বাসা থেকে বের হওয়ার পরপরই তাকে অপহরণ করা হয়। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুজন নেতৃবৃন্দ বলেছেন, রংপুরের ভোট নিয়ে ইসির নিরপেক্ষতা ও গ্রহণযোগ্যতা বিচার করা ঠিক হবে না। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7454 জন