জয়পুরহাটের সড়কের দুরবস্থা
Published : Wednesday, 3 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 02.01.2018 9:41:06 PM
জয়পুরহাটের সড়কের দুরবস্থাজয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাটের কালাইয়ের জয়পুরহাট-গোবিন্দগঞ্জ সড়কের প্রায় দশ কিলোমিটার অংশের খোয়া ও পিচ উঠে গেছে। সড়কের বিভিন্নস্থান খানাখন্দ ও গর্তে ভরা। আবার অনেক জায়গায় সড়কটি এখন চলাচলের একেবারে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ওই সংযোগ সড়কটির দুই ধারে বেশির ভাগ স্থানে মাটি সরে গিয়ে রাস্তা ভেঙতে শুরু হয়েছে। আবার অনেক জায়গায় দেবে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই বৃষ্টির পানি ঢুকে গর্তগুলো ডুবে গিয়ে যানবহন চলাচলের জন্য মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। : এছাড়া, ছোট-বড় পাঁচটি কালভার্ট অকেজো হওয়ায় এখন সকলের চলাচলের জন্য একেবারে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ওই সংযোগ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় বর্তমানে ঝুঁকি নিয়ে বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করছে। যে কোনো সময়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সরেজমিনে জানা গেছে, ক্ষেতলাল উপজেলার পাঠানপাড়া মোড় থেকে শুরু করে কালাই উপজেলার বানদিগী গ্রামের শেষে সীমানা পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার সংযোগ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে বর্তমানে চরম জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। অতিবৃষ্টি ও রাস্তা তৈরি কাজের সময় নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার এবং বিভিন্ন ধরনের ভারি যান চলাচলের কারণে জয়পুরহাট-গোবিন্দগঞ্জ সংযোগ সড়কটির বিভিন্ন স্থানে ১০ কিলোমিটারজুড়ে পিচ ও খোয়া উঠে গেছে। এই সংযোগ সড়কটি বছরের পর বছর ধরে সংস্কারের অভাবে এখন বেহাল হয়ে আছে। আবার অনেক জায়গায় দেবে গিয়ে বড় বড় গর্তের  সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি হলেই পানিতে ডুবে গর্তগুলো যানবাহনের জন্য মরণফাঁদে পরিণত হয়। এতে করে স্থানীয় বাসিন্দাসহ চারটি জেলার লক্ষাধিক মানুষের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। জেলা শহরসহ পাশর্^বর্তী গাইবান্ধা, রংপুরর ও বগুড়া জেলার সঙ্গে যোগাযোগের অন্য সড়কের চেয়ে এই সড়ক পথে দূরত্ব এবং খরচ কম হওয়ায় যাত্রীদের চাপও বেশি এই সড়কে। তাছাড়া যাতায়াতের জন্য একমাত্র এই সংযোগ সড়কটি বহু বছর ধরে ব্যবহৃত হচ্ছে। জয়পুরহাট-গোবিন্দগঞ্জ সংযোগ সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন জেলা-উপজেলার শ’ শ’ বাস-মিনিবাস, পণ্যবাহী ট্রাক, অ্যাম্বুলেন্স, সিএনজি, ভটভটি, ভ্যানসহ অসংখ্য যানবাহন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী এবং হাজার হাজার বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ চলাচল করে। সংযোগ সড়কটি দ্রুত সংস্কার না করা হলে যে কোনো মুহূর্তে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। জয়পুরহাট টু গোবিন্দগঞ্জ সংযোগ সড়কের বাস-সিএনজি-লেগুনা চেন মাস্টার জহুরুল ইনলাম বলেন, এই ভাঙা রাস্তা দিয়ে অনেক চালক গাড়ি নিয়ে যেতে চায় না। এই সড়কের কারণে গাড়ি বিকল  হচ্ছে এবং বিভিন্ন যন্ত্রাংশ ভেঙে যাচ্ছে। সড়কটি একেবারে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। আমরা এই সড়কটি দ্রুত সংস্কার চাই। :  কালাই উপজেলার মাত্রাই বিজ্ঞান ও কারিগরি কলেজের শিক্ষক নজরুল ইসলাম বলেন, ছেলে-মেয়েরা অনেক সময় রাস্তা খারাপ হওয়ার কারণে সঠিক সময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পৌঁছাতে পারে না। তাছাড়া এই সড়কে অনেক যানবহন চলাচল করতে চায় না। : বিয়ালা বাজারের মুদি ব্যবসায়ী নুরুল আমিন বলেন,  প্রাতি সপ্তাহে বগুড়া থেকে তিনি দোকানে মালামাল পরিবহন করতেন এই সড়কে। কিন্তু চলাচল অযোগ্য হওয়ায় মিনি ট্রাক এই পথে যাতায়াত করতে চায় না। এতে বিকল্প পথে ভাড়া বেশি দিয়ে গত এক মাস থেকে তিনি দোকানে মালামাল পরিবহন করছেন। সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তানভীর সিদ্দিক বলেন,  অর্থ সংকটের কারণে ওই সংযোগ সড়কের কাজ করা যাচ্ছে না। বরাদ্দ পাওয়ামাত্র সড়ক মেরামতের কাজ শুরু করা হবে। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ২০১৮ সালে জনগণের বিজয় হবেই। আপনিও কী তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
8694 জন