প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বিভিন্নস্থানে ছাত্রলীগের গোলাগুলি
Published : Friday, 5 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 04.01.2018 10:48:36 PM
দিনকাল রিপোর্ট : বেপরোয়া ছাত্রলীগ প্রতিদিনই জড়িয়ে পড়ছে নানাবিধ অপরাধে। সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি ও অভ্যন্তরীণ কোন্দলে বিশ্ববিদ্যালয়Ñ কলেজের শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ বিনষ্ট করে উত্তপ্ত করে তুলেছে ছাত্র রাজনীতিকে। গতকাল বৃহস্পতিবারও ছাত্রলীগের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। : চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালিতে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে দুই ছাত্র গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) বেলা ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্ট চত্বরে এ ঘটনা ঘটেছে। আহত দু’জন হলেনÑ গণিত বিভাগের ৪র্থ বর্ষের নাজমুস সামির ও প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ৩য় বর্ষের সাইদ আহমদ। ছাত্রলীগের চবি সংগঠন ভিএক্স ও সিক্সটি নাইনের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। বিবদমান দুই পই নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী বলে জানা গেছে। : সূত্রে জানা যায়, ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলে র‌্যালির আয়োজন করে শাখা ছাত্রলীগ আ জ ম নাছিরের অনুসারী গ্রুপ। এ সময় মিছিলের সামনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে ভিএক্স গ্রুপের কর্মীদের সাথে অন্য পরে হাতাহাতি হয়। পরে তারা ভিএক্স গ্রুপের কর্মীদের ধাওয়া করে। এ নিয়ে সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে দুই পরে মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ইটপাটকেল নিপে এবং দেশীয় অস্ত্রও দেখা যায় বলে জানা গেছে। এ ঘটনার রেশ ধরে এক ঘন্টা পর ফের উভয় প দ্বিতীয় দফা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। পরবর্তীতে ভিএক্স গ্রুপের কর্মীরা সোহরাওয়ার্দী হল ও সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মীরা শাহজালাল হলের সামনে অবস্থান নেয়। : সূত্রে আরো জানা যায়, সংঘর্ষের সময় পুলিশ মধ্যখানে অবস্থান নিলে ভিএক্স গ্রুপ পুলিশকে ধাওয়া দেয়। বর্তমানে অস্ত্রধারী ভিএক্স কর্মীদের ধরতে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশের একটি বিশ্বস্ত সূত্র। ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর টিপু বলেন, মিছিলের মধ্যে দাঁড়ানো নিয়ে জুনিয়রদের মাঝে ভুল বোঝাবুঝি হয়। পরে মিছিল হলেও আবার উত্তেজনা হয়। বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে। : অন্যদিকে ভিএক্স গ্রুপের নেতা মিজানুর রহমান বিপুল জানান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালিতে সিক্সটি নাইনের কর্মীরা আমাদের নেতাকর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছে। এতে আমাদের কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র বলেন, মিছিলে দাঁড়ানো নিয়ে নাছির গ্রুপের সব পরে সাথে ভিএক্স গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পুলিশের সহযোগিতায় প্রক্টরিয়াল বডির উপস্থিতিতে বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর বলেন, দুই পরে মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়েছিল, পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে আছে। : সিলেট অফিস : সিলেট সরকারি মুরারী চাঁদ (এমসি) কলেজে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংগঠনের বিবদমান দুই পরে মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। ঘটনাস্থলে গোলাগুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) দুপুর ১২টার দিকে এই সংঘর্ষের ঘটনা শুরু হয়। : সূত্র জানায়, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলে এমসি কলেজ ছাত্রলীগের একটি গ্রুপ কলেজের ভিতরে অবস্থান করেছিল এবং অপর একটি গ্রুপ মিছিল সহকারে এমসি কলেজে  ঢোকার চেষ্টা চালালে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। মুশফিক জায়গীরদারের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের একটি মিছিল এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে ঢোকার চেষ্টা করলে পুলিশি বাধায় ঢুকতে পারেনি। তখন মিছিলসহ নেতাকর্মীরা ফিরে গেলেও কিছুণ পর দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আবার এমসি কলেজে ঢোকার চেষ্টা করলে ভিতরে থাকা অন্য গ্রুপের নেতাকর্মীদের বাধার মুখে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। : হিরণ-জাহাঙ্গীর-মিঠু সমর্থিত গ্রুপের অনুসারী সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাদিকুর রহমান বলেন, আমরা কলেজের নিয়মিত ছাত্রদের নিয়ে ক্যাম্পাসে আনন্দ র‌্যালি বের করি। কিন্তু বহিরাগত অছাত্রদের নিয়ে তারা আমাদের আয়োজনকে বানচাল করার চেষ্টা করেছিল। এ কারণে তাদের ধাওয়া দিয়ে ক্যাম্পাসের বাইরে বের করে দেয়া হয়েছে। বর্তমানে তারা ক্যাম্পাসের ভিতরে অবস্থান করছেন বলেও জানান তিনি। : স্থানীয়রা জানান, এমসি কলেজে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পালন করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল দুই প। এর এক প সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদের অনুসারী, অন্য প জেলা আওয়ামী লীগের নেতা অ্যাডভোকেট রণজিৎ সরকারের অনুসারী। তারা উভয়েই টিলাগড় এলাকার আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা। এ ব্যাপারে শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন জানান, পুলিশ টিলাগড় এলাকায় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সভা-সমাবেশের অনুমতি নিয়ে সরকার দ্বৈত নীতি গ্রহণ করেছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
279 জন