দেশব্যাপী গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালিত
কালো পতাকা হাতে নিয়ে বিএনপির বিক্ষোভ প্রতিবাদ
Published : Saturday, 6 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 05.01.2018 10:55:10 PM
দেশব্যাপী গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালিতদিনকাল ডেস্ক : গণতন্ত্র হত্যাদিবস উপলক্ষে দেশব্যাপী কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে বিএনপি। বিভিন্নস্থানে বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ ও আওয়ামী লীগ হামলা চালিয়ে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীদের আহত করলেও সকল বাধা উপেক্ষা করে গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালন করে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন। ঢাকায় সমাবেশ করতে দেয়নি পুলিশ। গতকাল দিনভর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রাখে পুলিশ। এদিকে দেশব্যাপী বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। গতকাল  সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিএনপি সভা-সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে প্রমাণ করেছে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র হত্যাকারী দল। তারা গণতান্ত্রিক রীতিনীতি না মেনে বাকশালী আচরণই প্রকাশ করছে। : সিলেট : সিলেট অফিস জানায়, সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন- অবৈধ আওয়ামী বাকশালী সরকার দেশের গণতন্ত্রকে ক্ষত-বিক্ষত করেছে। কথিত ৫ জানুয়ারীর ভোটারবিহীন নির্বাচন দিয়ে তারা দেশের গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার ইতিহাসে কলংকের কালিমা লেপন করেছে। দেশপ্রেমিক জনতা তাদের সেই পাতানো নির্বাচন ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে। বিতর্কিত নির্বাচন দিয়ে আওয়ামী লীগ বিশ্ববাসীর কাছে তাদের অভিশপ্ত বাকশালী শাসন ব্যবস্থার স্বরুপ উন্মোচিত করেছে। তারা বুঝতে পেরেছে সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তাদের কোনদিনই ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন পূরণ হবে না। আর এই ভয়েই অবৈধ সরকার আবারো পাতানো নির্বাচনের ষড়যন্ত্র করছে। আওয়ামীলীগকে আর কোন ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনের পুনরাবৃত্তির সুযোগ দেয়া হবে না। আপোসহীন বেগম দেশনেত্রী খালেদা জিয়া এবং বিএনপিকে মাইনাস করে দেশে যে কোন নির্বাচন কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে। : শুক্রবার বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে ৫ জানুয়ারীর কলংকিত গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির উদ্যোগে নগরীতে অনুষ্ঠিত কালো পতাকা মিছিল ও সমাবেশে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে, জেলার সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল ও মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমদাদ হোসেন চৌধুরীর যৌথ পরিচালনায় নগরীর ঐতিহাসিক রেজিস্টারী মাঠে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ শেষে সহ¯্রাধিক নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে কালো পতাকা হাতে মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি নগরীর প্রধান প্রধান পয়েন্ট প্রদক্ষিণ শেষে চৌহাট্রাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে গিয়ে সমাপ্ত হয়। : সভাপতির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন- ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী ক্ষমতাসীন অবৈধ বাকশালী সরকার দেশের রাজনীতির ইতিহাসে কলংকের কালিমা লেপন করেছে। তারা প্রহসনের ভোটারবিহীন নির্বাচন দিয়ে ক্ষমতা দখলের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিয়েছে। জাতি গণতন্ত্র হত্যাকারীদের কোন দিন ক্ষমা করবে না। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে গণতন্ত্র হত্যাকারীদের সকল ষড়যন্ত্রের সমুচিত জবাব দিতে দেশপ্রেমিক জনতা প্রস্তুত রয়েছে। বিএনপির কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম বলেন- আওয়ামী বাকশালীদের ৫ জানুয়ারীর কথিত নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে দেশপ্রেমিক জনতা প্রমাণ করেছে বিএনপির সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল। সেদিন ভোটকেন্দ্রে ভোটার না গেলেও অন্যকিছুর উপস্থিতি জাতিকে মর্মাহত ও লজ্জিত করেছে। এজন্য আওয়ামী বাকশালীদের ইতিহাসের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। দেশে আর কোন প্রহসনের নির্বাচন দেয়ার আওয়ামী খায়েশ পূরণ হতে দেয়া হবে না। বাকশালীদের সকল ধরনের ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে শহীদ জিয়ার সৈনিকদেরকে অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করতে হবে। : সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেন- আওয়ামী লীগ কোনদিনই গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তাদের ইতিহাস গণতন্ত্র হত্যার ইতিহাস তাদের ইতিহাস বাকশালের অভিশপ্ত ইতিহাস। ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন দিয়ে আওয়ামীলীগ প্রমাণ করেছে তারা সুষ্ঠু ভোটে কোনদিনই ক্ষমতায় যেতে পারবে না। অবৈধ আওয়ামী বাকশালীরা পুনরায় পাতানো নির্বাচনের ফন্দি করছে। কিন্তু তাদের সে ফন্দি জনগণ কখনো সফল হতে দিবে না। : সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও কালো পতাকা মিছিলে অংশ নেন- বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নুরুল হক, মহানগর সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, জেলার সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির শাহীন, সালেহ আহমদ খসরু, রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, জেলা সহ-সভাপতি একেএম তারেক কালাম, হাজী শাহাব উদ্দিন, লুৎফুল হক খোকন, মহানগর উপদেষ্টা সৈয়দ বাবুল হোসেন ও সাইদুর রহমান বুদুরি, জেলা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দীকি, মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন বাচ্চু, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেম, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক মুকুল মোর্শেদ, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ, মহানগর দফতর সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম আলো, জেলা দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো: ফখরুল হক, জেলা প্রকাশনা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আল আসলাম মুমিন, মহানগর প্রকাশনা সম্পাদক জাকির হোসেন মজুমদার, জেলা শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সুরমান আলী, মহানগর শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ইউনুছ মিয়া, মহানগর ক্ষুদ্র ঋণ বিষয়ক সম্পাদক এৎাহারুল হক মন্টু, পল্লী উন্নয়ন সম্পাদক আব্দুল জব্বার তুতু, স্বেচ্ছাসেবক সম্পাদক হাবিব আহমদ চৌধুরী শিলু, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: আশরাফ আলী, জেলা স্বাস্থ্য সম্পাদক আ ফ ম কামাল, মহানগর পরিবার কল্যাণ সম্পাদক লল্লিক আহমদ চৌধুরী, মানবাধিকার সম্পাদক মুফতী নেহাল উদ্দিন, সহ-কোষাধ্যক্ষ শেখ মো: ইলিয়াস আলী, জেলা সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, মহানগর সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক খসরুজ্জামান খসরু, জেলা সহ-দফতর সম্পাদক দিদার ইবনে তাহের লস্কর, সহ-প্রচার সম্পাদক বুরহান উদ্দিন, জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দের মধ্য থেকে হেলাল আহমদ, আমিনুর রহমান খোকন, আব্দুল লতিফ খান, ডা: আব্দুল হক, এনামুল হক মাক্কু, শরীফ উদ্দিন মেহেদী, সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, নজির হোসেন, উজ্জল রঞ্জন চন্দ, কয়েস আহমদ সাগর, আব্দুস ছবুর, মোতাহির আলী মাখন, অধ্যাপক মঈনুদ্দিন, এম মখলিছ খান, সাব্বির আহমদ, জসিম উদ্দীন, শেখ কবির আহমদ, সিরাজ খান, চৌধুরী মোহাম্মদ সোহেল, কাজী নঈমুল ইসলাম, আব্দুস সোবহান, আলমগীর হোসেন, বাবর আহমদ, আব্দুল্লাহ আল মামুন সামুন, আলী হোসেন মুক্তার, আরিফ হোসেন, জিয়াউল হক, আজির উদ্দিন আহমদ, আব্দুল হান্নান, আব্দুল মন্নান, দেলোয়ার হোসেন রানা, রিহাদুল হাসান রুহেল, এম. এ রহিম, হাজী গোলজার আহমদ, জসিম আহমদ, খায়ের আহমদ, বদরুল ইসলাম আজাদ, বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্য থেকে মুহিবুর রহমান মুহিব, আব্দুল খালিক, দেলোয়ার হোসেন, মহিম আহমদ, রহিম আহমদ, সোহেল মাহমুদ, মির্জা স¤্রাট, ফখরুল ইসলাম রুমেল, মলয় রায় ধর, আব্দুল হান্নান, সাদেক আহমদ, কায়সান মাহমুদ সুমন, সোহেল ইবনে রাজা, সাফায়েত হোসেন সামছু, শেখ দিপু, এনামুল হক, আব্দুর রহিম মতছির, তোফায়েল আহমদ, আব্দুস সালাম টিপু, কৃষ্ণ ঘোষ, ফজলে রাব্বী তাহসান, রেজাউল ইসলাম সুমন, মিনার হোসেন লিটন, আশফাক আহমদ, আলী আকবর রাজন, দুলাল রেজা, আনোয়ার হোসেন সুজন, আবু মোতাকাব্বির চৌধুরী সাকী, ফরিদ রেজা, জুনেল আহমদ, আব্দুর রহমান, খোকন ইসলাম, জবিউল আহমদ জগলু ও ডা: এ এম সাঈদ সুমিত প্রমুখ। : অপরদিকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে শুক্রবার (০৫ জানুয়ারী) নগরীতে কালো পতাকা মিছিল ও সমাবেশ করে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদল। কালো পতাকা মিছিলটি লামাবাজার থেকে শুরু করে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে তালতলা পয়েন্টে সমাবেশে মিলিত হয়।   : মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাংঠনিক সম্পাদক ফজলে রাব্বী আহসান-এর সভাপতিত্বে মদন মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল ইসলাম সুমন ও মহানগর ছাত্রদলের সাবেক বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় বিষয়ক সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু যৌথ পরিচালনায় কালো পতাকা  মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তর‌্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক তোফায়েল হোসেন, সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস ছালাম টিপু, জেলা ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষ্ণ ঘোষ, আব্দুল মছব্বির, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র সদস্য জাবেদ সিদ্দীকি, সুমন আহমদ, তপু বিশ্বাস, সেলিম আহমদ, রুম্মন আহমদ, আব্দুল মুমিন, সাহেদ আহমদ, দুলাল দাস, মারুফ আহমদ সাহেদ আহমদ, খালেদ আহমদ, আদিল আহমদ রিমন, রুহিত পাল, মান্না দে, নুরুজ্জামান, সবুজ আহমদ, জামাল আহমদ, নুরুল ইসলাম, জুম্মন আহমদ, আমির, এরশাদ, তানভীর ইউসুফ, স্বপন, নোমান, কামরুল রায়হান, ইব্রাহীম, সৌরভ, তপু ঘোষ, জয়নাল আবেদীন, বাবুল, সাদিক, সাওন, জুয়েল প্রমুখ। : নরসিংদী : স্টাফ রিপোর্টার, নরসিংদী জানান, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও নরসিংদী জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকন বলেছেন, গণতন্ত্রকে হত্যা করে কেউ ক্ষমতায় চিরস্থায়ী হতে পারেনি, আওয়ামী লীগও পারবে না। ইতিহাস থেকে শেখ হাসিানর শিক্ষা নেওয়া উচিত। গণতন্ত্র হত্যাকারী আওয়ামী লীগের বিচার দেশবাসী সুযোগ পেলেই করবে। দেশের সাধারণ মানুষ সুযোগ খুঁজছে, সুষ্ঠু নির্বাচন হলেই আওয়ামী লীগ টের পাবে কত ধানে কত চাল। বিএনপি দেশবাসীকে সাথে নিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচন করতে বাধ্য করা হবে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে জেলা বিএনপি আয়োজিত কালো পতাকা মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। শহরের চিনিশপুরস্থ জেলা বিএনপি কার্যালয় থেকে কালো পতাকা মিছিল নিয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যেতে চাইলে পুলিশ বাধা প্রদান করেন। পরে পুলিশী বাধার মুখে জেলখানা মোড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ। : সংক্ষিপ্ত সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক লে: কর্নেল (অব.) জয়নাল আবেদীন,জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাষ্টার,সহ-সভাপতি সুলতানউদ্দিন মোল্লা, অ্যাড. বাসেদ, যুগ্ম সম্পাদক আকবর হোসেন, শহর বিএনপির সভাপতি একেএম গোলাম কবির কামাল, জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক শাজাহান মল্লিক, দফতর সম্পাদক আমিনুল হক বাচ্চু,জেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক এনামুল হক ইলিডন,হাসানুজ্জামান সরকার,শাহেন শাহ শানু, জেলা মহিলা দলের সভাপতি অ্যাড. উম্মে সালমা মায়া,শহর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল হক জাবেদ,জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি কবির আহমেদ.সাধারণ সম্পাদক ওসমান মোল্লা,জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নজরুল ইসলাম ভূঞা। : এসময় জেলা বিএনপির ডা: নাসিরউদ্দিন সরকার, মাসুদ মিয়া, আলমগীর, কামরুল, যুবদলের আসলাম, লিয়াকত, জামান, ছাত্রদলের আহসানউল্লাহ, সজীব ভূঞা, কাজী ওয়াসিম, সুমন ফকির, মাসুম মোল্লাসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। : মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানায়, গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে কালো পতাকা নিয়ে সমাবেশ করেছে মুন্সীগঞ্জে জেলা বিএনপি।  শুক্রবার সকালে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তারপুর এলাকায়  বিএনপি তাদের এই পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি পালন করেন। সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. মহিউদ্দিন সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আতোয়ার হোসেন বাবুল, শহর বিএনপির সাধারণ স¤পাদক শহীদুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সভাপতি তারিক কাশেম খান মুকুল, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ স¤পাদক আব্দুল আজিম স্বপন , জেলা যুবদলের সহসভাপতি মোখলেছুর রহমান বকুল, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ স¤পাদক মাহবুবুর রহমান, রামপাল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবু বক্কর মাদবর, পঞ্চসার ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ স¤পাদক আয়াত আলী দেওয়ান, শহর যুবদলের সভাপতি এনামুল হক, সাধারণ সম্পাদক বুরজাহান ঢালী, জেলা ছাত্রদল নেতা হুমায়ন , সদর উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ স¤পাদক মাহবুব হাসান সোহাগ, যুব দল নেতা নুরে আলম. সেলিম ফরাজি , সিরাজ পাঠান প্রমুখ। : জামালপুর : জামালপুর প্রতিনিধি জানান, পুলিশের বাধায় বিক্ষোভ মিছিল করতে পারেনি জামালপুর জেলা বিএনপি। পরে জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে সড়ক অবরোধ করে কালো পতাকা হাতে নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জেলা বিএনপি। কালো পতাকা মিছিল করতে না দেয়ায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপির নেতা-কর্মীরা। ৫ জানুয়ারী গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার স্টেশন রোডস্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ময়মনসিংহ বিভাগের বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট ওয়ারেছ আলী মামুনের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তৃতা করেন বিএনপি নেতা আমজাদ হোসেন, শহীদুল হক খান দুলাল, লিয়াকত আলী, লোকমান আহমেদ খান লোটন, গোলাম রব্বানী, মাইন উদ্দিন বাবুল, রুহুল আমিন মিলন, যুবদল নেতা ফিরোজ মিয়া, ছাত্রদল নেতা শফিকুল ইসলাম খান সজিব, মৎস্যজীবী দল নেতা আব্দুল হালিম প্রমুখ। এছাড়া বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক লোক কালো পতাকা নিয়ে সমাবেশে সমবেত হয়। : জয়পুরহাট : জয়পুরহাট প্রতিনিধি জানায়, ৫ জানুয়ারী গণতন্ত্র হত্যা দিবস ধরে জয়পুরহাটে জেলা  বিএনপি কালো পতাকা বিক্ষোভ   মিছিলে পুলিশ বাধা দিয়েছে। : শুক্রবার  সকালে জয়পুরহাট জেলা বিএনপির কার্যালয়ে সামনে থেকে  জেলা বিএনপির উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশ তাতে বাধা দেয় ফলে মিছিলটি বেশিদূর এগুতে পারেনি এসময়  সেখানে এক প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন  জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মোজাহার আলী প্রধান,  বিএনপির  সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শামছুল হক, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নাফিজুর রহমান পলাশ, ,যুবদলের সভাপতি সেলিম রেজা ডিউক, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান সুইট,আলী মোকাররম, শরিফুল ইসলাম, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাসুদ রানা প্রধান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি তোতা,শহর শাখার সভাপতি আদনান শাহারিয়ার , কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ, রেজা, মনোয়ার  প্রমুখ। : বক্তারা বলেন, ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারী বিনা ভোটে সরকার গঠনের মাধ্যমে গণতন্ত্র হত্যা করেছে। মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আর আওয়ামী লীগ এইদিনটিকে গণতন্ত্র দিবস হিসাবে পালন করছে যা হাস্যকর হিসেবে পরিগণিত হয়েছে। আগামী সংসদ নির্বাচন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে করার জোর দাবী জানানো হয়। : মেহেরপুর : মেহেরপুর প্রতিনিধি জানান, গতকাল ৫ জানুয়ারী গণতন্ত্র হত্যা দিবসে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মাসুদ অরুণ-এর নেতৃত্বে মেহেরপুর জেলা বিএনপি সকাল ১০টায় কালো পতাকা মিছিল করেছে। মিছিল পূর্ব সমাবেশে মাসুদ অরুণ বলেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রামকে এগিয়ে নিতে হবে। : তারাকান্দা : তারাকান্দা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানায়, (৫.জানিয়ারি) গণতস্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে তারাকান্দায় ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির উদ্যোগে কালো পতাকা মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদারের নেতৃত্বে মিছিলটি প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে মোতাহার হোসেন-এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন তারাকান্দা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম তালুকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক আ: মালেক, আ: হালিম, মাহাবুর রহমান মোস্তফা, আ: মান্নান, সবুজ আহম্মেদ, ময়মনসিংহ উত্তর জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি জিয়াউর রহমান জিয়া, তারাকান্দা উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক রাসেল মন্ডল,ফজলুল হক, আবু রায়হান, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, আজাহারুল ইসলাম মন্ডল, এ.এইচ.এম জুয়েল, শামিম আহম্মেদ, সাইনউদ্দিন, জুয়েল, মাজেদুল, সোহাগ, সেলিম, উলামা দলের যুগ্ম আহবায়ক মাও: মোবারক হোসেন, শ্রমিক দলের যুগ্ম আহবায়ক ইসলাম উদ্দিন মেম্বার প্রমুখ। : বেলকুচি : বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি জানায়, ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে বেলকুচিতে কালো পতাকা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বেলকুচি বিএনপি ও পৌর বিএনপি। ২০১৪ সালে  ৫ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ সরকার ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে গণতন্ত্র হত্যা করেছে। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে বেলকুচিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হয়। : শুক্রবার সকালে বেলকুচি উপজেলার গাবগাছি বাজার থেকে একটি কালো পতাকা মিছিল নিয়ে শেরনগর ৭নং ওয়ার্ড বাজারে গিয়ে শেষ হয়। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে বিক্ষোভ  মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। : বিক্ষোভ মিছিল শেষে শেরনগর বাজারে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীম। এসময় তিনি তার বক্তব্যে বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশে কোন নির্বাচন করতে দেয়া হবে না। শাসক দলের ভোটারবিহীন নির্বাচনের স্বপ্ন জনতার আন্দোলনে দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে। : এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বনী আমিন, মুক্তার হোসেন, কেরামত তালুকদার, আলম কমিশনার, নূরে আলম, ইমতিয়াজ আহম্মেদ, শামীম সরকার, সুরুজ মন্ডল, গোলাম কিবরিয়া, রাজীব আহসান, জামাল ব্যাপারী, রেজাউল করিম, জাহাঙ্গীর হোসেন, রুহুল মেম্বর, সালাম মুন্সি, সোহেল, রাজ্জাক, জাহিদ, কামরুল, শাহাদাত, মোহাম্মদ আলী, ফিরোজ মন্ডল, শরীফ ডাক্তার, রহিজ ব্যাপারী প্রমুখ। : সদরপুর : সদরপুর (ফরিদপুর) প্রতিনিধি জানায়, ৫ জানুয়ারি গণহত্যা দিবস উপলক্ষে গত শুক্রবার সকালে ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে কালো ব্যাচ ধারণ করে  সভাপতি ও জেলা ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রব্বানী ও সাধারণ সম্পাদক কাজী বদুরুতজামানা বদুর নেতৃত্বে একটি মিছিল উপজেলা শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণের সময় থানায় সামনে পৌঁছলে সদরপুর থানা পুলিশ মিছিলটি বাধা প্রদান করে ব্যানার ছিনিয়ে নেয়। পরে কাজী আনিসউদ্দিন সিটির তৃতীয় তলায় বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও জেলা ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রব্বানী সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন  উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী বদুরুতজামান বদু, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক খান, মোঃ বাবুল হোসেন, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ বাহালুল মাতুব্বর. উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুস ছত্তার, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মাসুদুর রহমান, উপজেলা বিএনপির সমাজকল্যাণ সম্পাদক মালেক মাহমুদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের  সভাপতি মোঃ জাহিদ বেপারী, সাধারণ সম্পাদক  মোঃ মাসুদ রানা,ছাত্রনেতা রাকিবুল হাসান রিফাত, শরীফুল ইসলাম, আসলাম, নজরুল, রুমন, সাব্বির. আলী, পাভেল, ইমরান আকন, সাবিদ, কাজী রাকিব, ফায়সাল সর্দার, শহিদুল ইসলাম, রুবেল প্রমুখ। : আখাউড়া : আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া)  প্রতিনিধি জানান, গতকাল শুক্রবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া  আখাউড়া উপজেলা, পৌর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে পৌর শহরের  সড়ক বাজারস্থ  বিএনপি কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশের বাধার মুখে পৌর শহরের বাইরে উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের গাজীর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন।   : উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মো: মুসলিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লায়ন আবুল মুনসুর মিশন,বিশেষ অতিথি ছিলেন পৌর বিএনপির সভাপতি সাবেক কাউন্সিলর মো: বাহার মিয়া,সাধারণ সম্পাদক মো.শাহাদত হোসেন লিটন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ডাক্তার খোরশেদ আলম, মো.জয়নাল আবেদীন আব্দু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: দেলোয়ার হোসেন খাদেম, মো: জাহাঙ্গীর আলম। উপজেলা কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক মো: ইয়ার হোসেন শামীম, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা জান্নাত পারভীন স্মৃতি, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মো: হারুন অর রশিদ, উপজেলা যুবদলের সভাপতি মো: নাহিদুল ইসলাম নাহিদ,পৌর যুবদলের সভাপতি মো: জাকির  হোসেন,সাধারণ সম্পাদক মো: জাভেদ আহাম্মদ ভুইয়া, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো: আল-আমিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক মো: জিয়াউল হাসান খান সানি, পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আসাদিক হাবিব গালিব,কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি মো: মামুন আহমেদ,সাধারণ সম্পাদক মো: মাইদুল ইসলাম শাওন, পৌর স্বেচ্চাসেবক দলের সভাপতি মো: সোলাইমান ইসলাম রুমেল,সাধারণ সম্পাদক মো: রামিন খান, মো: মোবাশ্বির আহসান,মো: নয়ন মিয়া,সহ উপজেলা, পৌরসভা,ইউনিয়ন বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা স্বত:স্ফূতভাবে অংশগ্রহণ করেন। : উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লায়ন আবুল মুনসুর জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমরা শান্তিপূর্ণ মিছিল বের করার চেষ্টা করলেই পুলিশ বাধা দিলে আমরা পৌর শহরের বাইরে গিয়ে সদর দক্ষিণ ইউনিয়নের গাজীর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করি। : সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে পুলিশের বাধার মুখে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১ টায় শহরের পুরতন বাস স্ট্যান্ডস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুলের নেতৃত্বে  একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়।  মিছিলটি শহরের ট্রাফিক পয়েন্ট এলাকায় সমাবেশ করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। পুলিশের বাধার কারণে সেখানে উত্তেজনা দেখা দিলে নেতাকর্মীদের হস্তক্ষেপে পরিবেশ শান্ত হয়। পরে পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে সমাবেশ করে বিএনপি। এ সময় বক্তব্য রাখেন  সাবেক হুইপ ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাড ফজলুল হক আসপিয়া,অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আকবর আলী, ফারুক আহমদ,আনিসুল হক, রেজাউল হক, সেলিম উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ, আনছার উদ্দিন, অ্যাডভোকেট শেরেনুর আলী, অ্যাডভোকেট আব্দুল হক, যুগ্ম সম্পাদক নুর হোসেন, মুনাজ্জির হোসেন সুজন, জেলা কৃষকদলের আহবায়ক আ.ত.ম মিছবাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, সাইফুল হাসান জুনেদ, ফারুক আহমেদ লিলু, জেলা বিএনপি’র দফতর সম্পাদক জামাল উদ্দিন বাকের,মামুনুর রশীদ শান্ত, ইউপি চেয়ারম্যান ফুল মিয়া, আব্দুর রহিম, যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক সোহেল আহমদ, অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ কয়েছ, ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক শামসুজ্জামান, অশোক তালুকদার, মমিনুল হক কালাচান, সোহেল আহমদ, আবুল কাশেম দুলু, শাহজাহান, আনোয়ার জাবেদ,কামরুল হাসান রাজু, তোফাজ্জল হোসেন শাহ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মধ্যদিয়ে দেশে গণতন্ত্রের কবর দেয়া হয়েছে। অবিলম্বে নিরপেক্ষ নির্বাচনের দিয়ে দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনার আহবান জানান। অন্যথায় রাজপথে কঠোর আন্দোলন সংগ্রাম করে জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা হবে। : কেরানীগঞ্জ : কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি জানান, ঢাকার কেরানীগঞ্জে বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিপেটা ও টিয়ারশেল নিক্ষেপের ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ১৫জন নেতাকর্মী এবং আটক হয়েছে ৬জন। আটককৃতরা হচ্ছে মোঃ হাসান (১৮), মোঃ জনি (৩১), মোঃ আকতার হোসেন (৫৫), পলাশ (২১), আব্দুল আউয়াল (৩৫) ও মোঃ লোকমান হোসেন (৫১)। তবে আহতদের নাম জানা যায়নি। জানা যায়, বিএনপির গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার বিকেল কেরানীগঞ্জ উপজেলা দক্ষিণ থানা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরীর নেতৃত্বে জিনজিরার মনুবেপারীর ঢাল এলাকা থেকে একটি কালো পতাকা মিছিল বেরা করা হয়। মিছিলটি আমিরাবাগের জিসান কমিউনিটি সেন্টারে পৌঁছার আগেই পিছন দিক থেকে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার একদল পুলিশ মিছিলের উপর বেদম লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এতে ১৫ জন বিএনপির নেতাকর্মী আহত হয়। এ সময় পুলিশ ৬ জনকে আটক করে। মুহূর্তের মধ্যেই মিছিলটি পণ্ড হয়ে যায়। মিছিলে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা আবু সেলিম চৌধুরী, জয়নাল আবেদিন বাবুল, আরশাদ রহমান সপু, হাজী ওমর শাহনেয়াজ, হাজী আসাদ খান, যুবদল নেতা হাজী মোকাররম হোসেন সাজ্জাদ, আবু জাহিদ মামুন, ছাত্রদল নেতা আসাদুর রহমান সোহালে প্রমুখ। কেরানীগঞ্জ উপজেলা দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে একটি কালো পতাকা মিছিল বের করি। পুলিশ বিনা উসকানিতেই আমাদের মিছিলের পিছন দিকে থেকে লাঠিপেটা ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে এবং ৬জন নেতাকর্মীকে আটক করে। লাঠিপেটায় ১৫জন আহত হয়। পুলিশ শুধু বিএনপি নেতাকর্মীদেরই লাঠিপেটা করেনি। তারা পথচারীদেরকেও বেদম লাঠিপেটা করে। কেরানীগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের ৬ জনকে আটকের কথা নিশ্চিত করেছেন। : ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে বিএনপির কালো পতাকা মিছিলে বাধা দিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার দিনভর দলীয় কার্যালয় পুলিশ ব্যারিকেড করে রাখায় মিছিল করতে পারেনি বিএনপি। বিএনপি নেতাদের অভিযোগ, ৫ জানুয়ারি পূর্বঘোষিত বিএনপির কালো পতাকা মিছিল বানচাল করার জন্য বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে পুলিশ প্রশাসন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ, শহর বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক একেএম শফিকুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক লিটন আকন্দ, দক্ষিণ জেলা যুবদল সভাপতি শামীম আজাদ, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি তানভীরুল ইসলাম টুটুল ও দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শহীদুল আমীন খসরুর বাসায় তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। এবিষয়ে দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ বলেন, বিএনপির কালো পতাকা মিছিল পণ্ড করার জন্যই বর্তমান অবৈধ সরকারের নির্দেশে পুলিশ বিএনপি নেতাদের বাসায় তল্লাশির নামে হামলা চালিয়েছে। তবে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম বলেন, অন্য কোনো কারণ নয়। শুধুমাত্র গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামিদের সন্ধানেই পুলিশ রুটিন ওয়ার্ক হিসেবে অভিযান চালিয়েছে। এদিকে শুক্রবার দুপুরে নগরীর বাউন্ডারি রোড হয়ে ফুলবাড়ীয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কালো পতাকা মিছিল করেছে বিএনপি। এমিছিলে উপস্থিত ছিলেন শহর বিএনপি সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম, বিএনপি নেতা অ্যাড. আবুল হাসেম, বাদল, বজললুর রহমান তুহিন, শাকিল আহমদ, জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. দিদারুল ইসলাম খান রাজু, সহ-সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আলী, কোতোয়ালি যুবদলের আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম শহিদ, কোতোয়ালি স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক ফরহাদ হোসেন প্রমুখ। অপরদিকে সকালে নগরীর নাসিরাবদ কলেজ রোড এলাকায় দক্ষিণ জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাসুদের নেতৃত্বে কালো পতাকা মিছিল করেছে যুবদল। এ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক কায়কোবাদ মামুন, কোতোয়ালি যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মফিদুল ইসলাম মাসুদ, যুবনেতা শামসুল আলম উজ্জল, মোজাম্মেল হক সবুজ, ইকবাল প্রমুখ। এদিকে জেলার গৌরীপুরে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে কালো পতাকা মিছিল করেছে উপজেলা বিএনপি। জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুল হকের নেতৃত্বে এ মিছিলে  উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুল ইসলাম খান শহীদ, পৌর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আলী আকবর আনিছ, বিএনপি নেতা এনাম, রিপন কমিশনার, মজিবুর, জাহাঙ্গীর, যুবদল নেতা মিন্টু, মামুন, আল আমীন, শাহী মুন্সী, অ্যাড. রাইসুল, ছাত্রদল নেতা নূরুজ্জামান সোহেল, আঃ কদির, সাকিব মুন্সী, সোহাগ, জিকু, মাহমুদুল প্রমুখ। : ফুলপুর : ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহের ফুলপুরে গতকাল শুক্রবার বিকাল ৩.৩০ মিনিটে সাবেক এমপি শাহ শহীদ সারোয়ারের নেতৃত্বে ফুলপুর উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে ফুলপুরে থানা রোডস্থ বিএনপির কার্যালয় থেকে গণতন্ত্র হত্যা দিবসের একটি কালো পতাকা মিছিল বের করলে ফুলপুর থানা পুলিশ অতর্কিতভাবে বাধার সৃষ্টি করে তখন মিছিলটি পুলিশের বাধাকে অতিক্রম করে এগুতে চাইলে পুলিশ এলোপাতাড়ি লাঠিচার্জ করলে ফুলপুর উপজেলা যুবদলের সভাপতি সানোয়ার হোসেন খান সম্পাদক বিপুল ফকির, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহাগ ও মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান মনোয়ারা খাতুনসহ ১৫ জন মারাত্মক আহত হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা এমদাদ হোসেন খান, গুলজার হোসেন, কুদরত আলী, আমজাদ সরকার, হেলাল উদ্দিন হেলু, এনামুল হক বাবুল, মোশারফ হোসেন, নুরে আলম সিদ্দিকী আলম, নুরে আলম জিকু, সোহেল, করিম খান, শহীদ, ইসলাম উদ্দিন, কামরুল, এমদাদ, ইমাম হোসেন, মামুন, সায়াদুল, বিলাল, বাশার, জুয়েল, মোজাম্মেল, সুমন, আলমগীর, আনারুল হক, মহিলা নেত্রী আকলিমা, রহিমা, হাসিনা বেগম প্রমুখ। : নেত্রকোনায় : নেত্রকোনা প্রতিনিধি জানান, ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কালো পতাকা মিছিল নেত্রকোনায় তীব্র পুলিশি বাধায় পণ্ড হয়ে গেছে। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ড্যাব নেতা অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল হক সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, জেলা বিএনপির উদ্যোগে গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে জেলা শহরের ছোটবাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ে বিএনপিসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে কালো পতাকা মিছিল করতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এক পর্যায়ে পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তিনি ব্যারিস্টার কায়সার কামালের ওপর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও শুক্রবার ভোর রাতে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক অনিক মাহবুব চৌধুরীর বাসভবনে পুলিশি তল্লাশির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। : নারায়ণগঞ্জ : স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ জানান, গণতন্ত্র হত্যা দিবসে নারায়ণগঞ্জে জেলা ও মহানগর বিএনপি, মহানগর যুবদল ও মহানগর ছাত্রদল পৃথকভাবে কালো পতাকা মিছিল করেছে। এদিকে জেলা ও মহানগর বিএনপির মিছিল ও সমাবেশে পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ করেছে। এতে কমপক্ষে ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। আহতদেরকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সকাল পৌনে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী ও বিএনপির নেতাকর্মীরা জানিয়েছে, ৫ জানুয়ারি বিএনপির পূর্ব ঘোষিত গণতন্ত্র হত্যা দিবসের কর্মসূচি সকাল ১০টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। সেখানে নেতাকর্মীরা জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের সেখানে দাঁড়াতে দেয়নি। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রেসক্লাব সংলগ্ন দক্ষিণ পাশের সড়কে তারা জড়ো হয়ে সমাবেশ শুরু করেন। জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে এ সময় সাবেক এমপি আতাউর রহমান খান আঙ্গুর, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মনিরুল ইসলাম রবির বক্তব্য শেষে জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান তার বক্তব্য শুরু করেন। এরই মধ্যে পুলিশ সমাবেশে লাঠিচার্জ শুরু করে। সমাবেশটি ছত্রভঙ্গ হয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে এক অংশ মিছিল নিয়ে বিবি রোডে উঠার চেষ্টা করলে প্রেসক্লাবের সামনে পুলিশ আবারো বেধড়ক লাঠিচার্জ করে। এতে ছাত্র ও যুবদলের কমপক্ষে ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়। অপরদিকে এ সমাবেশে যোগ দিতে আসা ফতুল্লা থানা বিএনপির একটি মিছিল শহীদ মিনারের সামনে পুলিশ বাধা দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ একটি কর্মসূচিতে সরকারের পুলিশ বাহিনী অহেতুক হামলা করে প্রমাণ করেছে যে, সরকার কতটা অস্থির ও ভীত। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি ভোটারবিহীন একটি নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এই দিনটি বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটি কালোদিন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে। তিনি বলেন, হামলা যতই হক বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার যে আন্দোলন চলছে তা বিজয় অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত চলবে। : কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে কেন্দঝীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল শুক্রবার কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপির উদ্যোগে কালো পতাকা প্রদর্শন, মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন এলাকা থেকে খণ্ডখণ্ড মিছিল সহকারে নেতাকর্মীরা শহরের ঐতিহাসিক রথখলা ময়দানে জড়ো হয়ে মিছিল বের করলে গৌরাঙ্গ বাজার ব্রিজের উপর পুলিশি বাধার সম্মুখীন হয়। পরে সেখানে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাজাহরুল ইসলামের সভাপতিতে? ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী ইসরাঈল মিয়ার পরিচালনা সমাবেশে বষব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাড. শরীফুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন জেলা সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খালেদ সাইফুল্লাহ ভিপি সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল আলম, আমিনুল ইসলাম আশফাক, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল আলম, সালাউউিন আহমদ বাচ্চু, হানিফ উউিন আহমদ রণক, জেলা যুবদলের সিনিয়র যুগঅ আহবায়ক সাইফুল ইসলাম ভিপি সুমন, জেলা তে^চ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগঅ আহবায়ক মোঃ বাহার মিয়া, জেলা যুবদলের যুগঅ আহবায়ক খসরুষামান জি এস শরীফ, জেলা বিএনপির ক্ষুদঝ ও কুঠির বিষয়ক সম্পাদক এম এ কাইয়ুম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোত—াক আহমদ শাহীন, কেন্দঝীয় ছাত্রদলের যুগঅ সাধারণ সম্পাদক মর্তুজা আল কামাল মোত—াক, জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক তারিকুষামান পার্নেল, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল ইসলাম, সহ-প্রচার সম্পাদক তাজুল ইসলাম চপল, সহ-দফতর সম্পাদক শহীদুল্লাহ কায়সার শহীদ, সহ-তে^চ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক প্রভাষক জুনায়েদ আলম খান, সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক খায়রুল ইসলাম, সারোয়ার আলম, জীবন চন্দঝ দাস, সহ-প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক গোলাম মোত—ফা পারভেজ, সহ-তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক নূরুল ইসলাম মোল্লা, জেলা বিএনপির সদস্য ফক্কুর আলী খান, জেলা ছাত্রদলের যুগঅ আহবায়ক মনিরুষামান মিয়া, সাষাদ হোসেন, জেলা শঝমিক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক নাদিম মাহমুদ হারুন, জেলা ওলামা দল সভাপতি মাওলানা রফিকুল ইসলাম, সদর থানা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইবঝাহিম মোল্লা, পৌর যুবদল সভাপতি ঁমায়ুন কবীর, সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, যুগঅ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আলী মর্তুজা তাজবীর, সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুল ইসলাম রুবেল, জেলা তে^চ্ছাসেবক দল নেতা রবিন, এম এ নাসির, জেলা ছাত্রদল নেতা মোঃ মারুফ মিয়া, মাসুম বিল্লাহ, সোয়েব সাদেকীন বাৎী, ফেরদৌস আহমদ নেভীন, সাঈদ সুমন, শফিকুল হক, জুবায়ের আহমদ, শফিকুল হক নিশাদ, রাফিউল করিম নৌশাদ, সাইফুল ইসলাম, মুষাদির বাবু, আধুল্লাহ আল মামুন, জাকারিয়া মাহমুদ ঝুমন, লিটন, জাকারুল ইসলাম বাৎী প্রমুখ। বষারা ভোটারবিহীন সরকারের পতন দাবি করে অবিলম্বে নির্দলীয় সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের জোর দাবি জানান। : তারাকান্দা : তারাকান্দা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহের তারাকান্দায় গতকাল শুক্রবার বিকাল ৩টায় সাবেক এমপি শাহ শহীদ সারোয়ারের নেতৃত্বে তারাকান্দা উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে গণতন্ত্র হত্যা দিবসে একটি কালোপতাকা মিছিল উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন তারাকান্দা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী বাতেন, হাসিম উদ্দিন চেয়ারম্যান, কাশেম মাস্টার, ডাঃ আজিজুল, লিংকন, ডাঃ রফিকুল, রাশিদুল ইসলাম, ডাঃ বারেক, ফয়েজ উদ্দিন সরকার, হাবিবুর রহমান সুরুজ, লতিফ মাস্টার, রফিকুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন, বক্তার, আলামিন, জিন্নাহ, দিন মাহমুদ সরকার, মোজাম্মেল হক মন্ডল, সাদ্দাম, সিদ্দিক, আজাদ, মন্জুরুল, মাহবুব, জাহাঙ্গীর, সোহেল, সহল, সাইফুল, সোহাগ, আজিজুল হক প্রমুখ। : : : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতিতে অনশন স্থগিত করলেন নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা। শিক্ষকদের দাবি পূরণ হবে বলে মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
2099 জন