নীলফামারীতে শৈত্যপ্রবাহে কাতর নিম্নআয়ের মানুষ
Published : Tuesday, 9 January, 2018 at 12:00 AM
ফজল কাদির, নীলফামারী : শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে আর তাই তিন দিন থেকে সূর্যের মুখ দেখা যায়নি নীলফামারীতে। শুক্রবার রাত থেকে শুরু হওয়া ঘন কুয়াশার সঙ্গে উত্তরের হিমেল বাতাস আর কনকনে শীতে জবুথবু হয়ে পড়েছে এখানকার লোকজন। বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ। আর এই কনকনে শীতে চরম দুর্ভোগে কাজ না পেয়ে খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষ। তীব্র শীতের কারণে খেটে খাওয়া মানুষজন কাজে যেতে না পেরে নিদারুণ কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন।  শৈত্যপ্রবাহ আর ঘন কুয়াশার কারণে রবিবার সারা দিনে সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। দিনের বেলাতেও কুয়াশার কারণে ভারী যানবাহনগুলো হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে। রাস্তাঘাটে লোকজন চলাচল কমে গেছে। প্রয়োজন ছাড়া লোকজন ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন না। গ্রামে ও হাটবাজারগুলোতে দেখা গেছে লোকজন খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। ঘন কুয়াশার কারণে বিমান ও ট্রেন চলাচলের শিডিউলের বিপর্যয় ঘটছে।  শীত নিবারণ করতে গরম কাপড় সংগ্রহে নিম্ন আয়ের মানুষ পৌরসভা মাঠের  পুরনো কাপড়ের বাজারে ভিড় করছেন। এদিকে শীতের তীব্রতার কারণে শীতজনিত রোগের প্রার্দুভাব বেড়েছে। আর এই রোগে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন শিশু ও বৃদ্ধরা। নীলফামারী জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা এ টি এম আখতারুজ্জামান বলেন, জেলায় ত্রাণ অধিদফতর ৪১ হাজার ৯৩৭টি জেলার ৬টি উপজেলায় বিতরণ করা হয়েছে। শিশুর পোশাকসহ আরো ২০ হাজার  কম্বলের চাহিদা দেয়া আছে। শিগগিরই আসবে বলে জানান এ কর্মকর্তা। আজকে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে ৯ জন ডায়রিয়া রোগী, শিশু রোগী ২৫ জন ভর্তি আছে। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সাবেক আইজিপি নূরুল হুদা বলেছেন, রাজনৈতিক ব্যবহারের কারণে পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা কমছে। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
14310 জন