বেড়িবাঁধের মাটি কেটে নিচ্ছে ফারাহ ব্রিকস মালিক!
Published : Friday, 12 January, 2018 at 12:00 AM
পাটকেলঘাটা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : প্রকাশ্যে চলছে অবৈধ কাজ, কোনো কিছু লুকানো নয়। সবই খোলামেলাভাবে চলে কীভাবে? দেখলে মনে হয় এখানে অবৈধ কাজের যেন প্রতিযোগিতায় নেমেছেন ইটভাটা মালিকরা। : এমন সব মন্তব্য ভুক্তভোগী মহলের। দীর্ঘ বছর ধরে পাটকেলঘাটা টুদলুয়া গ্রামীণ সড়কের পাশেই আচিমতলা গ্রামে জনবসতি কৃষিজমি ও সবুজ বেষ্টনীর মধ্যে যুগীপুকিরিয়া গ্রামের মৃত খোকা মোড়লের ছেলে রেজাউল ইসলাম বাবু মেসার্স ফারাহ ব্রিকস নামে ইটভাটা নির্মাণপূর্বক অবৈধভাবে কর্মকান্ড চালিয়ে আসছেন। উপজেলা প্রশাসন ও পানি উন্নন বোর্ড একাধিকবার কপোতাক্ষ পাড়ের জলাবদ্ধ রক্ষা বাঁধের মাটি কর্তন না করার জন্য নোটিস এবং গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেও কোনোভাবে রোধ করা যায়নি। গত বুধবার সকাল ১০টার দিকে কপোতাক্ষ পাড়ের কাঁটাখালী নদীর বেড়িবাঁধের মাটি ১০টি ট্রলিতে করে ৫০-৬০ জন শ্রমিক নিয়ে হাজার হাজার ঘন ফুট মাটি কেটে ইটভাটায় নিয়ে আসছে। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে স্থানীয় সাংবাদিকরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানা পুলিশকে জানালে কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এসব অবৈধ কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য ওই ভাটা মালিক আচিমতলা গ্রামের কিয়ামুদ্দিন মোড়লের ছেলে আন্তঃবিভাগীয় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের হোতা শহিদুল মোড়লকে নিয়োগ দিয়ে রেখেছে। এর আগেও বহুবার কপোতাক্ষ বেড়িবাঁধের লাখ লাখ ঘনফুট মাটি কেটে বাণিজ্যিকভাবে ইট  প্রস্তুত করে আসছে দেদারছে । এতে ক্ষুব্ধ হয়ে এলাকার শতাধিক ব্যক্তি আপত্তি জানিয়ে লিখিতভাবে গণদরখাস্ত দেয়াতে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এসব অবৈধ কর্মকান্ডের ব্যাপারে জেলা প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদফতর সবই জানে, কিন্তু অজ্ঞাত কারণে বিদ্যমান আইনের প্রয়োগ হচ্ছে না। এসব বিষয়ে স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিকে অসংখ্যবার সচিত্র প্রতিবেদন ছাপা হলেও কর্তৃপক্ষের যেন ঘুম ভাঙছে না। বরং এ ইটভাটা মালিক অবৈধ কর্মকান্ড আরো দ্রুত গতিতে চালিয়ে যাচ্ছেন। ইটভাটা মালিকের সঙ্গে কথা হলে তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান, প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই কর্মকান্ড চালানো হচ্ছে। অনুসন্ধান করে জানা গেছে, ইটভাটাটির বৈধ কোনো কাগজপত্র নেই। নেই জেলা প্রশাসনের  অনুমোদন। জেলা প্রশাসনের জুডিশিয়াল মুন্সিখানার প্রধান সহকারী মোশারফ হোসেন জানান, মেসার্স ফারাহ ব্রিকস মালিক বিগত ২০১৪ সালে একবার অনুমোদন নিয়েছিলেন। পরবর্তীতে আর আবেদনও করেননি। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুজন সম্পাদক বলেছেন, আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সংসদ ভেঙে সেনা মোতায়েন করতে হবে। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
33191 জন