আবারও ১/১১’র আশঙ্কা করলেন আ’লীগ সম্পাদক ওবায়দুল
Published : Friday, 12 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 11.01.2018 9:55:22 PM
দিনকাল রিপোর্ট : আবার ওয়ান-ইলেভেনের আশঙ্কা করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শঙ্কার সাথে ভয়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সেই বিভীষিকাময় দিনটি থেকে শিক্ষা নিলেও বিএনপি নেয়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকমন্ডলীর সভা শেষে ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। কাদের বলেন, বিএনপি ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়। অস্থিরতা সৃষ্টি করে ক্ষমতায় আসতে চায়। বিএনপির সেই দুরভিসন্ধি বাস্তবায়ন হবে না। বাংলাদেশে আর ওয়ান-ইলেভেনের পুনরাবৃত্তি ঘটাবে না। তিনি বলেন, বিএনপি তার বর্তমান অবস্থা জেনে গেছে। নির্বাচনের আগেই সারা দেশের আওয়ামী লীগের জোয়ার দেখে বিএনপি বুঝে গেঝে যে, আগামী নির্বাচনে তাদের পরিণতি কী। তারা ভোট পাওয়ার মতো কোনো কাজ করেনি। সরকারের চার বছর নিয়ে করা অপর এক প্রশ্নে কাদের বলেন, দলের ভেতরে ছোট খাটো সমস্যা থাকতেই পারে। সে কারণে কোথাও কোথাও সম্মেলন হয়নি। তবে দলকে আধুনিক এবং মাঠ সুসংগঠিত করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই আগামী নির্বাচনে অংশ নেবো। ইতিমধ্যে আমাদের টিম নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রত্যেকের সাংগঠনিক এলাকায় তারা টিম ওয়ার্ক করে সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধান দেবে। সরকারের সফলতা-ব্যর্থতা নিয়ে তিনি বলেন, এ নিয়ে ১২ তারিখ প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে বলবেন। এরপর দলীয়ভাবে একটি সংবাদ সম্মেলনে আমরা আমাদের কথাগুলো বলবো। আপাতত এতটুকু বলা যায়, আমাদের ত্রুটি নেই এমনটি বলবো না। চাঁদেরও তো কলংক আছে। তাই বলে কি আলো থেমে থাকে। আমাদের অনেক সফলতা আছে ত্রুটিও আছে, তাই : বলে আমাদের উন্নয়নকে ঢেকে রাখা যাবে না। : নির্বাচনে ব্যবসায়ীদের প্রাধান্য দেয়া বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল বলেন, দলের প্রার্থী, দলীয় নেতা আর নির্বাচন এটার মধ্যে পার্থক্য আছে। এটা রাজনৈতিক স্ট্রাটেজি। স্ট্রাটেজিক এলায়েন্স। বিশ্বের অন্যান্য দেশেও নির্বাচনে স্ট্রাটেজিক এলায়েন্স হয়। তিনি বলেন, একজন রাজনীতিবিদ কী ব্যবসা করতে পারেন না? তারা চাঁদাবাজি করে খাবেন? : সংবাদ সম্মেলনে কাদের আরো বলেন, প্রার্থী ঘোষণার আগে কেউ প্রার্থী নন। অনেকে নিজের মতো করে দলের সভাপতি, প্রাধনমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন, কথা বলেছেন। এতে প্রমাণিত হয় না যে, প্রার্থী নির্বাচন হয়ে গেছে। তবে আতিকুল ইসলাম দলের সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন। সে সময় শেখ হাসিনা বলেছেন, কাজ কর। সিদ্ধান্ত পরে। : কাদের বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নির্বাচন হবে আগামী ১৬ জানুয়ারি। ওই দিন দলের মনোনয়ন বোর্ডের সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। কে প্রার্থী হচ্ছেন। তবে আমরা সমমনা প্রার্থী দেব। : আওয়ামী লীগের সম্পাদকমন্ডলীর সভায় উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, আবদুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক আহমদ হোসেন, এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক  দেলোয়ার হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, শিা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাম্মী আক্তার, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপ-দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়–য়া প্রমুখ। : : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুজন সম্পাদক বলেছেন, আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সংসদ ভেঙে সেনা মোতায়েন করতে হবে। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
33120 জন