মান্দায় আনন্দমেলায় প্রকাশ্যে জুয়ার আসর
সবকিছু জেনেও নির্বিকার প্রশাসন
Published : Saturday, 13 January, 2018 at 12:00 AM
নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর মান্দা উপজেলার দেলুয়াবাড়ী হাটের পাশে আয়োজিত আনন্দমেলায় রীতিমতো চলছে নারী দেহের নগ্ন নাচ আর দৈনিক আলোর ভুবন র‌্যাফেল ড্র নামের সৌখিন জুয়া। আর এসব বেআইনি কর্মকান্ড চলছে নাকি জেলা প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই। ফলে স্থানীয় ইউএনও মেলা ঘুরে এসব বেআইনি কার্যক্রমের সত্যতা পেয়েও কোনো আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারছেন না। কিভাবে এই মেলা চলছে বা তার অনুমতি কিভাবে পেল বিষয়টি এলাকার সচেতন মহলকে বেশ ভাবিয়ে তুলেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, র‌্যাফেল ড্রর পুরস্কারের লোভে এলাকার খেটে খাওয়া স্বল্প আয়ের মানুষ প্রতিদিন লটারির ২০ টাকা মূল্যের টিকিট কাটছেন। হাতেগোনা কয়েকজন পুরস্কার পেলেও নিঃস্ব হচ্ছেন অধিকাংশ মানুষ। সম্প্রতি নওগাঁ শহরের স্বপ্ন ছোঁয়া র‌্যাফেল ড্র নামের বিশেষ জুয়ায় সর্বস্বান্ত জেলার মানুষ এখনো মাজা সোজা করে দাঁড়াতে পারেননি। সেই ব্যথা না সারতেই মান্দায় আবারো সেই জুয়ার আয়োজন সাধারণ মানুষকে নিঃস্ব করে দিচ্ছে। এসব নারী দেহের নগ্ন নাচ চলছে প্রশাসনের নাকের ডগার ওপর। শুধু তাই নয়, এই র‌্যাফেল ড্রর নামের বিশেষ জুয়া বেআইনিভাবে সরাসরি কেবল টেলিভিশনে দেখানো হচ্ছে। এতে করে নারী-পুরুষ ও যুবসমাজ টিকিট কিনতে বেশি আগ্রহী হচ্ছে। প্রতিদিন সন্ধ্যার পর থেকে ভোর রাত পর্যন্ত মেলায় মাইক ও বড় বড় সাউন্ড বক্স উচ্চ শব্দে বাজিয়ে স্থানীয়দের কান ঝালাপালা করে তুলছে। জানা গেছে, এলাকার উন্নয়নের নামে স্থানীয় ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের কতিপয় নামধারী নেতা রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে এই মেলা চালিয়ে যাচ্ছেন। এলাকার উন্নয়নের কথা বলা হলেও প্রকৃতপক্ষে তারা তাদের নিজের পকেটের উন্নয়ন করছেন বলে বিস্তর অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১০ দিনের জন্য আনন্দমেলার অনুমতি নিয়ে গত ২৭ ডিসেম্বর থেকে মেলা চালানো হচ্ছে। মেলায় সতরূপা অপেরার যাত্রা ও পুতুল নাচের নামে নগ্ন নাচ চলছে। জাদু প্রদর্শনী, পুতুল নাচ ও যাত্রার নামে ২০ থেকে ১০০ টাকার টিকিটে চলছে নারী দেহের নগ্ন নাচ। সেই সঙ্গে চলছে মদের আড্ডা। মেলার নামে এসব অসামাজিক কার্যক্রম চলছে প্রশাসনের সামনেই। প্রতিদিন সকাল থেকে ২০০ থেকে ২৩০ ব্যাটারিচালিত চার্জারে মাইকিং করে চালানো হচ্ছে লটারির টিকিট বিক্রি ও প্রচারণা। রাত ৯টার পর থেকে এই লটারির নামে বিশেষ জুয়ার অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার দেখানো হয় স্থানীয় ক্যাবল টেলিভিশনে। এই ক্যাবল টেলিভিশনের মাধ্যমে নওগাঁর মান্দা, নিয়ামতপুর এবং রাজশাহীর তানোর উপজেলায় সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। স্থানীয় সচেতন মহলের অভিযোগ, মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে প্রশাসন আনন্দমেলার নামে মদ, আর নারী দেহের অশ্লীল নাচের অনুমতিসহ লটারির নামে জুয়া খেলা টিভির পর্দায় দেখানোর অনুমতি দিয়েছে। আর সে কারণেই তারা চোখে-মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছে। প্রশাসন কোনোভাবেই এই অশ্লীল নৃত্যসহ অসামাজিক কার্যক্রম বন্ধ না করে উল্টো তাদের উৎসাহিত করছে বলে সচেতন মহলের অভিযোগ। এদিকে মেলা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জানান, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, রাজনৈতিক নেতা এবং কিছু সাংবাদিককে রীতিমতো ম্যানেজ করেই এই মেলা চালানো হচ্ছে। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, নির্বাচনের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি হয়েই আছে। আপনি কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
33917 জন