নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের ব্যবস্থা সংবিধানে নেই : মওদুদ
Published : Sunday, 14 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 13.01.2018 11:49:55 PM
নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের ব্যবস্থা সংবিধানে নেই : মওদুদদিনকাল রিপোর্ট : নির্বাচনকালীন সরকার গঠন সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য ‘বিভ্রান্তমূলক’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। : গতকাল শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ডেমোক্রেটিক মুভমেন্টের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী গত শুক্রবার তার ভাষণে বলেছেন যে, নির্বাচনকালীন সময়ে একটি সরকার গঠন করা হবে। কিন্তু নির্বাচনকালীন সময়ের জন্য কোনো সরকার গঠন করার জন্য কোনো ব্যবস্থা এই সংবিধানে নেই। একথাটা বলেই তিনি জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন। মূলকথা হলো যে, এই দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হবেÑ সেটাই তিনি বলার চেষ্টা করেছেন। : নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেয়া ও নির্বাচনের সময় সেনা মোতায়েন সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে কিছুই নেই উল্লেখ করে মওদুদ আহমদ বলেন, সারা জাতির প্রত্যাশা করে ছিল যে, আগামী নির্বাচন কীভাবে দেশে একটা সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ করা যায় সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী কিছু একটা বলবেন। কিন্তু সে ব্যাপারে তিনি কিছুই বলেননি। : ??শুক্রবার জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০১৮ সালের শেষদিকে একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচন হবে। প্রধানমন্ত্রীর জাতির উদ্দেশে ভাষণে বাস্তব চিত্র ফুটে ওঠেনি দাবি করে মওদুদ আহমদ বলেন, তার (প্রধানমন্ত্রী) ভাষণ একটি একতরফা ভাষণ। এই ভাষণে দেশের সত্যিকারের চিত্র তার তুলে ধরা উচিত ছিল কিন্তু তিনি সেটা তুলে ধরেননি। তার এই ভাষণ সাধারণ মানুষের ক্ষোভ-দুঃখ-কষ্টের নিরসন করতে পারেনি। এই ভাষণের সত্যিকারের দেশের যে সমস্যাগুলো সেগুলো প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেনি। : প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের যে ফিরিস্তি তুলে ধরেছেন তার সমালোচনা করে তিনি বলেন, যে উন্নয়নের মেলার কথা বলা হয়েছে, এটা উন্নয়নের মেলা নয়, দুর্নীতির মেলা বসানো হয়েছে। প্রত্যেকটি উন্নয়নের পেছনে যে ব্যাপক দুর্নীতি সেটা সবাই জানেন। উন্নয়নের নামে দেশে যে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে তার কোনো ফিরিস্তি প্রধানমন্ত্রী দেননি। বড় বড় প্রকল্প হলো, বড় বড় কমিশন। এই যে হাজার হাজার কোটি টাকার প্রকল্প এসব কে তদারকি করেন? অর্থাৎ নির্দ্বিধায় জনগণের অর্থ লুন্ঠন করা হচ্ছে। : আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, সাংগঠনিক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, নির্বাহী কমিটির সদস্য খালেদা ইয়াসমিন, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সিপিডির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেছেন, বর্তমানে গরিবরা আরও গরিব হয়েছে। আয় কমেছে ৬০ ভাগ মানুষের। সুশাসনের অভাবে এমন হচ্ছে বলে মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
33866 জন