ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কমিটি গঠনে অনিয়ম
সুনামগঞ্জে পিআইসি কমিটিতে শ্যালক-ভগ্নিপতি, আওয়ামী নেতারা
Published : Monday, 15 January, 2018 at 12:00 AM
সেলিম আহমদ তালুকদার, সুনামগঞ্জ থেকে : সুনামগঞ্জে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে পিআইসি কমিটি গঠনে ব্যাপক অনিয়ম, স্বজনপ্রীতি ও দলীয়করণের অভিযোগ উঠেছে। পিআইসি কমিটিতে শ্যালক-ভগ্নিপতি, যুবলীগ-আওয়ামী লীগ নেতাদের অন্তর্ভুক্ত করায় বাঁধের কাজ নিয়ে শঙ্কায় হাওর পাড়ের কৃষকরা। সরকারি নীতিমিালা লঙ্ঘন করে বেড়িবাঁধের পাশে থাকা প্রকৃত কৃষকদের বাদ দিয়ে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পিআইসি কমিটি তৈরিতে অনিয়মের চিত্র ফুটে উঠেছে। এ ছাড়া জনপ্রতিনিধিদের তৈরি করা অনেক কমিটি থেকে কৃষকদের বাদ দিয়ে লুটেরাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করার প্রতিবাদে জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আবদুল হাসিম পিআইসি কমিটি থেকে পদত্যাগ করার বিষয়টি চাউর হচ্ছে জেলাজুড়ে। জেলার প্রায় ছোট-বড় ৩৬টি হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণকাজ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাঁধ এলাকার কৃষকদের দিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠনের কথা থাকলেও বাস্তবে অনেক বাঁধের কমিটিতে নীতিমালা মানা হচ্ছে না। এ নিয়ে বিস্তর অভিযোগ জমা পড়েছে প্রশাসনে। বেশ কয়েকটি বাঁধ এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার পিআইসি কমিটিতে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের নারিকেলতলা এলাকায় মইয়ার হাওরের বাঁধের পিআইসি কমিটির সভাপতি হচ্ছেন আবুল কালাম ও সচিব হয়েছেন তারই শ্যালক সানু। এলাকাবাসী এ বাঁধটিকে ডাকেন শালা-দুলাভাইয়ের বাঁধ। এ ছাড়া আরো দুটি বাঁধের পিআইসি কমিটিতে যুবলীগ নেতা সালেহসহ দুজনকে রাখা হয়েছে। প্রকৃত কৃষককে বাদ দিয়ে পিআইসি কমিটি গঠন করায় জগন্নাথপুরের কলকলি ইউনিয়নের আবুল হাসেম নামের এক চেয়ারম্যান কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন। তিনি বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিতভাবে পদত্যাগপত্র জমা দেন। পিআইসি কমিটি থেকে পদত্যাগকারী কলকলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হাসিম বলেন, যেখানে সরকারি নীতিমালা লঙ্ঘন করে করে নিয়মকে অনিয়মে পরিণত করা হয়েছে, সেখানে আমি থাকার সুযোগ নেই। প্রকৃত কৃষকদের নিয়ে তৈরি করা আমার ৮টি কমিটি বাতিল করা হয়েছে। এখানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এলাকার বিতর্কিত ফখরুল হোসেনের মতো অনেক লুটেরার নাম। এদিকে জেলার শনির হাওরে বাঁধ কাটার অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামতের সদস্য সচিব করে কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযুক্ত কাজল মিয়া উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের রামজীবনপুর গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে। ২০১৫ সালে শনির হাওরে সাহেবনগর ফসল রক্ষা বাঁধ কাটার অপরাধে কাজল মিয়াকে ২ মাসের কারাদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও তৎক্ষালীন তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বক্কর সিদ্দিক ভূঁইয়া জানান, সরকারি নীতিমালার বাইরে পিআইসি গঠিত হলে তা অবশ্যই অনিয়ম। কাগজ-কলমে অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিশিষ্টজনেরা বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রয়োজনে সংবিধান পরিবর্তন করতে হবে। আপনিও কি তাই মনে করেন
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
34033 জন