সিপিডি দেশকে টেনে নামাতে চাইছে
অর্থমন্ত্রী মুহিত বললেন তাদের বক্তব্য ‘রাবিশ’
Published : Monday, 15 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 14.01.2018 11:18:13 PM
দিনকাল রিপোর্ট : চলতি বছরে দেশের অর্থনীতির বিশ্লেষণ করে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) দেয়া প্রতিবেদনকে ‘রাবিশ’ ও ‘বোগাস’ বলে উল্লেখ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল রবিবার সচিবালয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন অর্থমন্ত্রী। এর আগে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। পরে এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সিপিডির প্রতিবেদন রাবিশ অ্যান্ড বোগাস। সিপিডি বাংলাদেশকে পিছিয়ে নিতে চায়। এই প্রতিবেদন আমলে নেয়ার সুযোগ নেই। ননএমপিও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির দাবিতে চলমান আন্দোলন এবং তাদের দেয়া প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস সম্পর্কে জানতে চান এক সাংবাদিক। : জবাবে আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, এই নীতিমালা সংশোধন করা হবে এবং এতে কিছু শর্ত আরোপ করা হবে। মন্ত্রী বলেন, যাতে এমপিওভুক্তির পরে ছাত্রছাত্রীরা উপকৃত হয়, শিক্ষা খাতের উপকার হয়, এজন্যই কিছু শর্ত আরোপ করা হবে। এর আগে গত শনিবার রাজধানীর সিপিডি মিলনায়তনে আয়োজিত চলতি বছরের অর্থনৈতিক বিশ্লেষণ শীর্ষক মিডিয়া ব্রিফিংয়ে সংস্থাটি জানায়, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গুণগত মান না বাড়ায় দেশে ধনী-গরিবের বৈষম্য বাড়ছে। যার কারণ হিসেবে ব্যাংকিং খাতের উদাহরণ তুলে ধরে সংস্থাটি বলছে, একটি শ্রেণির রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ঋণখেলাপি হচ্ছে। আর এর পেছনে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দুর্বল নেতৃত্বকে দায়ী করে সিপিডি। ২০১৭ সালকে ব্যাংকিং খাতের জন্য কেলেঙ্কারির বছর বলেও এ সময় উল্লেখ করে সংস্থাটি। ব্রিফিংয়ে বলা হয়, গত এক দশকে দেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির হচ্ছে প্রায় ছয় শতাংশ হারে। কিন্তু যতই সময় গড়াচ্ছে উচ্চ প্রবৃদ্ধির এই অর্থনীতি কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে সক্ষমতা হারাচ্ছে। : সিপিডির গবেষণা অনুযায়ী, ২০০০ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেও কর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রবৃদ্ধি হতো ৩ দশমিক ৩ শতাংশ। অথচ বিগত পাঁচ বছরে সাড়ে ছয় শতাংশের ওপর প্রবৃদ্ধি দিয়ে কর্মসংস্থান বাড়ছে মাত্র ১ দশমিক ৯ শতাংশ। দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রেও এই প্রবৃদ্ধি সহায়ক নয়। গত এক দশকে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়লেও দারিদ্র্য বিমোচন কমেছে। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিশিষ্টজনেরা বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রয়োজনে সংবিধান পরিবর্তন করতে হবে। আপনিও কি তাই মনে করেন
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
33896 জন