ধর্মঘটে ঢাবি জাবিতে তালা : সিলেট রাজশাহীতে ছাত্রলীগের হামলা
Published : Tuesday, 30 January, 2018 at 12:00 AM, Update: 29.01.2018 11:08:15 PM
ধর্মঘটে ঢাবি জাবিতে তালা : সিলেট রাজশাহীতে ছাত্রলীগের হামলাদিনকাল রিপোর্ট : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে ধর্মঘট পালন করছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। গতকাল সোমবার সকাল ৭টা থেকে তারা কলা ভবনের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে সেখানে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করে। এই ভবনের অন্য ফটকগুলো খোলা রয়েছে। : গত ২৪ জানুয়ারি প্রগতিশীল ছাত্রজোট সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এই কর্মসূচি ঘোষণা করে। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল ধর্মঘটে সমর্থন জানায়। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য ভবনের ফটকগুলো খোলা রয়েছে। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ফটকে ধর্মঘট আহ্বানকারীরা তালা ঝুলিয়ে দিলেও কে বা কারা সেই তালা ভেঙে ফেলে। বাণিজ্য অনুষদ, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ও কার্জন হলে বেশ কয়েকটি বিভাগে ক্লাস শুরু হয়েছে।  এদিকে জোটের সমন্বয়ক ইমরান হাবিব রুমন জানান, সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সর্বাত্মক ধর্মঘট পালিত হচ্ছে। এদিকে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে ধর্মঘটে ছাত্রজোটের ওপর হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ। সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে অবস্থান নিয়ে ধর্মঘট করার সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ছাত্রজোটের ব্যানার ছিনিয়ে নেয়। এ সময় আহত হয়েছে ৫ জন। : আহতরা হলেন জয়দীপ দাশ, মুনির, নাইম ও আদিব। অপরজনের নাম পাওয়া যায়নি। লাঞ্ছিত করা হয়েছে নগর ছাত্রফ্রন্টের সেক্রেটারী রুবাইয়াত হোসেনকে। এছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মঘট পালন করছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। ভোর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন একাডেমিক ভবনের ফটকগুলোয় অবস্থান নিয়ে ধর্মঘট শুরু করেন জোটের নেতাকর্মীরা। আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলা ও মানবিক অনুষদ ভবন, পুরাতন কলা ও মানবিক অনুষদ ভবন, সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ভবন এবং বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ ভবনের ফটক আটকে সেগুলোর সামনে অবস্থান নিয়েছেন। দুপুর ২টা পর্যন্ত এ ধর্মঘট চলবে বলে জানিয়েছেন প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা। : রাবিতে ছাত্র ধর্মঘটে প্রশাসনের বাধা ছাত্রলীগের হামলা : রাবি প্রতিনিধি জানায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির কার্যালয়ে ‘নিপীড়নবিরোধী’ আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদের অংশ হিসেবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ছাত্র ধর্মঘট পালন করতে গিয়ে প্রশাসনের বাধার মুখে পড়েছে রাবি প্রগতিশীল ছাত্রজোট। অন্যদিকে কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উপস্থিতিতে ‘ছাত্রলীগ’ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা। সোমবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে জোহা চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। : তবে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, হামলাকারীরা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির কেউ না। এদিকে পুরো ঘটনাটি প্রক্টরের নির্দেশেই ঘটেছে বলে দাবি করছে রাবি শাখা বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রী। গত ২৩ জানুয়ারি বাম ছাত্র সংগঠনগুলোর নেতৃত্বে ‘নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থী’ ব্যানারে শিক্ষার্থীরা দাবি আদায়ে ঢাবি ভিসিকে নিজ কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করলে ছাত্রলীগ গিয়ে তাদের ওপর হামলা করে। এ ঘটনার প্রতিবাদে ২৯ জানুয়ারি সারাদেশে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট। এরই অংশ হিসেবে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে।   : বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি কিংশুক কিঞ্জল বলেন, ‘পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী আমরা জোহা চত্বরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছিলাম। এ সময় আমরা কোনো বাস চলাচল করতে দেইনি। এক পর্যায়ে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর এসে আমাদের একটি বাস ছেড়ে দিতে বলেন। এ নিয়ে প্রক্টরের সঙ্গে আমাদের কথাবার্তা চলছিল। কথাবার্তার এক সময় প্রক্টর উত্তেজিত হয়ে বলেন, ‘দেখি তোমরা কীভাবে বাস আটকাও। এ সময় পুলিশ আমাদের একটু সরিয়ে দিলে কাজলার দিকে একটি বাস চলে যায়। হঠাৎ সাবেক ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি ইলিয়াস হোসেন ও ফিরোজ আহমেদ এসে আমাদের ধাক্কা দিতে শুরু করে।’ : বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায় বলেন, ‘জোহা চত্বরে আমরা ছাত্রজোট শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করছিলাম। এ সময় প্রক্টর এসে বলেন, আমরা যদি গাড়ি আটকানোর চেষ্টা করি তবে আমাদের গ্রেপ্তার কিংবা আমাদের ওপর হামলা করা হবে। এর মধ্যে প্রত্যেকটা গাড়ি চালু করা হয়। তখন আমরা নেতাকর্মীরা সরাসরি গাড়ির সামনে অবস্থান নেই। হঠাৎ ছাত্রলীগের নামধারী দুজন এসে আমাদের অনেককে কিলঘুষি মারে।’  পুরো ঘটনাটি প্রক্টরের নির্দেশেই ঘটে বলে দাবি দিলীপ রায়ের। : এদিকে প্রশাসন ও ছাত্রলীগের এমন আচরণে বেলা ১২টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল করেছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। এসময় তারা প্রশাসনের উপস্থিতিতে এ ধরনের হামলার তীব্র নিন্দা জানান। ছাত্রলীগের হামলার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ‘আমাদের ছাত্রলীগের কেউ ওখানে ছিল না। একটা ছবি দেখলাম, ওখানে ছাত্রলীগের গত কমিটির দুই সহ-সভাপতি ছিলেন। বর্তমান ছাত্রলীগ কমিটির কেউ ওখানে উপস্থিত ছিলেন না।’ : বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘এখানে ছাত্রলীগ ছিল না। আমি সকাল থেকেই প্রশাসনের সামনে ছিলাম। প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীদের সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলে বাস ছাড়তে বলেছি। আমাদের বাস ছেড়ে গেছে। আমাদের শুধু সকালের শিডিউলের কিছু বাস বন্ধ ছিল। তারপর থেকে সকল বাস চলবে।’  ফুটেজে ধাক্কাধাক্কির বিষয়টি রয়েছে বললে তিনি বলেন, ‘হয়তো এ রকম কিছু হতে পারে। তবে কে এটা করেছে, সেটা বলতে পারব না। আমি তখন হয়তো ওখানে ছিলাম না।’ : শাবিতে ছাত্রলীগের হামলায় প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ৯ নেতাকর্মী আহত : সিলেট অফিস জানায়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) প্রগতিশীল ছাত্রজোটের মিছিলে ছাত্রলীগের হামলায় ৯ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। : গতকাল সোমবার সকাল ১১টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। : ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, গত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) উপাচার্যের কার্যালয়ে ‘নিপীড়ন বিরোধী’ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে গত ২৪ জানুয়ারি দেশব্যাপী ছাত্র ধর্মঘট ডাকে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। : ধর্মঘটের সমর্থনে সোমবার সকাল ৮টা থেকে শাবির প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট শাবিপ্রবির নেতাকর্মীরা। সকাল ১০টার দিকে তারা ক্যাম্পাসে মিছিল বের করে। সাড়ে ১০টার দিকে আবারো ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় তারা। : পরে সকাল ১১টার দিকে ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। এতে ৯ জন আহত হয়। : আহতরা হলেন- শাবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের আহ্বায়ক প্রসেনজিৎ রুদ্র, সাধারণ সম্পাদক নাজিরুল আজম বিশ্বাস, নগর ছাত্রফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক রুবাইয়াত রুবা, জয়দ্বীপ দাস, রশিদ ইফাজ, এম কে মুনিম, তৌহিদুজ্জামান জুয়েল, আব্দুল্লাহ আল কাফী ও নাঈম আশরাফ আদিব। আহতদের মধ্যে আইপিই ৩য় বর্ষের ছাত্র জয়দ্বীপ দাসকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। : শাবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক নাজিরুল আজম গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে। আমরা এ হামলার বিচার চাই।’ : এ বিষয়ে শাবি প্রক্টর জহীর উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ছাত্রলীগ নেতারা হামলার বিষয়টি অস্বীকার করেছে। শুনেছি, ছাত্রলীগ নেতা শফিকুর রহমান জিয়ার নেতৃত্বে হামলা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ : খবর পেয়ে জালালাবাদ থানার ওসি শফিকুর রহমান খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন বলেছেন, রায় ঘোষণার আগে মন্ত্রীদের বক্তব্য রায়কে প্রভাবিত করবে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
35592 জন