বাঞ্ছারামপুরে যত্রতত্র গড়ে উঠছে ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ক্লিনিক
Published : Saturday, 3 February, 2018 at 12:00 AM
বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিক। নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী ক্লিনিকের মূল ফটকে নামিদামি চিকিৎসকের সাইনবোর্ড টানিয়ে দেদারসে চালিয়ে যাচ্ছেন ক্লিনিক ব্যবসা। ব্রাক্ষাণবাড়িয়া জেলা সিভিল সার্জন অফিসের কোন অভিযান না থাকায় এসব ব্যবসায়ী সেবার নামে কেড়ে নিচ্ছেন মানুষের প্রাণ। এসব ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নেই কোন দক্ষ ডাক্তার, নেই যন্ত্রপাতি, নেই সেবা, নেই পরিছন্ন পরিবেশ, নেই ছাড়পত্র, ভুল চিকিৎসায় অবৈধ গর্ভপাতসহ বিভিন্ন কারণে রোগীরা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেনÑএসব ঘটনায় রোগীর স্বজনরা প্রায় সময় ক্ষোভে হাসপাতাল ভাঙচুর করেছে। এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার মালিক বলেন, বেশির ভাগ ডাক্তার বিভিন্ন হাসপাতালে চাকরি করেন, যার ফলে নির্ধারিত সময়ে ডাক্তার পাওয়া যায় না, এর ফলে একটু দেরি হয়। তবে কোন ডাক্তার ইচ্ছা করে রোগীর ক্ষতি করেন না। এ ব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জন বলেন, বাঞ্ছারামপুরে অনেক অবৈধ ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও অনেক প্রাইভেট ক্লিনিক রয়েছে। আমরা প্রতিটি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। এদিকে নামসর্বস্ব হাসপাতাল ও ক্লিনিক ব্যবসার পাশাপাশি বাঞ্ছারামপুরের বিভিন্ন হাট-বাজার ও অলিগলিতে ফার্মেসী গড়ে উঠেছে। এসব ফার্মেসীতে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন অবৈধ যৌনবর্ধক ও চেতনানাশক ওষুধ বিক্রি হচ্ছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়। এসব ফার্মেসীর কথিত ডাক্তাররা আবার নরসিংদী, কুমিল্লা ও ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালের এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। সামান্য একটু জ্বর হলেই নিজেদের স্বার্থে ওইসব কথিত ডাক্তারা রোগীদের মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয় এবং নরসিংদী,  কুমিল্লা ও ঢাকার বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টরে পাঠিয়ে দেয়। বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে এসব কথিত নামসর্বস্ব ডাক্তার দাপটের সাথে জীবন চালিয়ে যাচ্ছে। তবে বাঞ্ছারামপুরের পূর্বাঞ্চলে এসব ভুয়া ডাক্তারের সংখ্যা বেশি। এদের মধ্যে ফরদাবাদ রবির বাজারের কামরুল, দরিকান্দির রুনা আক্তার, ছয়ফুল্লাকান্দির শিল্পী, রুপসদী দক্ষিণ বাজারের খোরশেদ, বাহাউদ্দিন, জহরলাল, কালিপদ ও রাজীব প্রমুখ। এলাকাবাসী এসব ভুয়া ডাক্তার ও এজেন্টের হাত থেকে বাঁচতে চায়। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন,  সরকার মিডিয়ার স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। আপনি তা বিশ্বাস করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
8333 জন