গফরগাঁওয়ে পরীক্ষা দিতে পারেনি ৫২ এসএসসি পরীক্ষার্থী!   
Published : Saturday, 3 February, 2018 at 12:00 AM
গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   : নিয়ম অনুযারী পরীক্ষার এক সপ্তাহ পূর্বে প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড পরীক্ষার্থীরা হাতে পাওয়ার কথা থাকলেও ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার ৫২ জন পরীক্ষার্থী প্রবেশপত্র পায়নি। ফলে পরীক্ষা দিতে পারেনি এসব শিক্ষার্থী। গত বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। তবে ঘটনার মূল নায়ক রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদ গাঢাকা দিয়ে হয়েছেন লাপাত্তা। : এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ পরীক্ষার্থীরা গফরগাঁও সরকারি কলেজের সামনের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এ সময় খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাদেরকে বিচারের আশ^াস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়। পরে দুপুর ১২টার দিকে পরীক্ষার্থীরা রৌহা উচ্চ বিদ্যালয় ভাঙচুর করার চেষ্টা করলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ভাড়াটে মাস্তানরা পরীক্ষার্থীদের মারধর করে। অভিযোগ উঠেছে, উপজেলার রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদের প্রতারণার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। ভুক্তভোগীরা জানায়, রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদ স্থানীয় উথুরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৬ জন শিক্ষার্থীসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ের ৫২ জন শিক্ষার্থীকে চলতি এসএসসি পরীক্ষার্থীর ফরম ফিলাপ করায় তার বিদ্যালয় থেকে। ফরম ফিলাপ বাবদ প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে তিনি হাতিয়ে নেন ২ হাজার ৫০০ টাকা করে। উথুরী গ্রামের মিম, জান্নাত, শামছুন্নাহার, স্বর্ণা এবং ধামাইল গ্রামের সজিব, হাজেরা ও ঝুমুর জানায়, উথুরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন সুলতানা পপির মাধ্যমে রৌহা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আমরা এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ করি। কিন্তু আমরা কেউ পরীক্ষার প্রবেশপত্র না পেয়ে পরীক্ষা দিতে পারিনি। : এ বিষয়ে জানতে উথুরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন সুলতানা পপি এবং রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদের যোগাযোগ করেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন, প্রতি বছরই ওই প্রধান শিক্ষক এই অপকর্মটা করে থাকেন। ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. শামীম রহমান বলেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন,  সরকার মিডিয়ার স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। আপনি তা বিশ্বাস করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
8315 জন