রাষ্ট্রপতির কাছে পদত্যাগ করেছেন বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব মিয়া
Published : Saturday, 3 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 02.02.2018 11:12:33 PM
রাষ্ট্রপতির কাছে পদত্যাগ করেছেন বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব মিয়াদিনকাল রিপোর্ট : ফের জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করে দেশের ২২তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে নিয়োগ দেয়ার পর বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচরপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিয়া গতকাল পদত্যাগ করেছেন বলে জানা যায়। তিনি পদত্যাগপত্রটি রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেন এবং রাষ্ট্রপতির কার্যালয় তার পদত্যাগপত্রটি গ্রহণ করেছেন বলে গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে। গতকাল শুক্রবারই নতুন প্রধান বিচারপতির নিয়োগ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এই আদেশ শপথ গ্রহণের তারিখ থেকে কার্যকর হবে। শুক্রবারই নিয়োগ আদেশে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের পরই আইন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করছে। বর্তমানে আপিল বিভাগের পাঁচজন বিচারপতির মধ্যে মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা সবচেয়ে জ্যেষ্ঠ। জ্যেষ্ঠতা বিবেচনায় আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার পরেই ছিলেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ  হোসেন, এরপর পর্যায়ক্রমে রয়েছেন বিচারপতি মো. ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার। বয়সসীমা অনুযায়ী আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা দায়িত্ব পালন করতে পারতেন ২০১৮ সালের ১০ নভেম্বর পর্যন্ত । আর বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ২০২১ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। এছাড়া বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর অবসরের তারিখ ২০২৩ সাল ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার অবসরে যাবেন ২০২১ সালে। এর আগে ২০১৫ সালের ১৭ জানুয়ারি  দেশের ২১তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। এরপর বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনায় বেশকিছু উদ্যোগ নিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। সম্প্রতি নানা বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে তার নাম। তিনি সভা-সমাবেশে এবং সেমিনারে সরকারের সমালোচনা করায় সরকারের বিরাগভাজন হয়ে পড়েন। এর আগে এক মাসের ছুটি নিয়ে গত ১৩ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়া যান এস কে সিনহা। এই ছুটি  শেষ হয় গত ১০ নভেম্বর।  এক পর্যায়ে  গত বছরের ১১ নভেম্বর এস কে সিনহার বিদেশে অবস্থানকালেই  পদত্যাগপত্র  পাঠিয়ে দেন রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে। বাংলাদেশের ইতিহাসে কোনও প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের ঘটনা এটাই প্রথম। ২০১৭ সালের ১৪ নভেম্বর তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেন রাষ্ট্রপতি। : প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞা। তিনি ২০১৮ সালের ১০ নভেম্বর পর্যন্ত চাকরিতে বহাল  থাকার কথা রয়েছে। কিন্তু তার জুনিয়র বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে তার ওপরে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দিয়েছে সরকার। আর ঘটনায় তিনি পদত্যাগ করেছেন আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা।  তিনি গতকাল শুক্রবার  পদত্যাগপত্রটি বঙ্গভবনে পাঠিয়ে দিয়েছেন। সংশ্লিষ্ট দুটি সূত্র গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বঙ্গভবনের কর্মকর্তারা তার পাঠানো পদত্যাগপত্রটি গ্রহণ করেছেন। : একই সঙ্গে শুক্রবার দুপুরে প্রধান বিচারপতি হিসেবে বিচারপতি  সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে রাষ্ট্রপতি নিয়োগ দিয়েছেন এবং আজ তিনি ২২তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করবেন। সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ছুটিতে যাওয়া এবং পরবর্তী সময়ে পদত্যাগের পর ওয়াহ্হাব মিঞা দায়িত্বরত প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। : এদিকে গতকাল শুক্রবার ঢাকার আগারগাঁওস্থ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রেজিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী জানান, ‘প্রধান বিচারপতি নিয়োগের ব্যাপারটি রাষ্ট্রপতির এখতিয়ার। সংবিধান অনুযায়ী তিনি প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দিয়ে থাকেন। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন,  সরকার মিডিয়ার স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। আপনি তা বিশ্বাস করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
8295 জন