সৈয়দপুরে ৯টি ফ্লাইট চালু : পূরণ হচ্ছে না যাত্রী চাহিদা
Published : Sunday, 4 February, 2018 at 12:00 AM
মিজানুর রহমান মিলন, সৈয়দপুর (নীলফামারী)  থেকে : আকাশপথে উত্তরের গেটওয়ে সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যস্ততম বিমানবন্দর হয়ে উঠেছে। রংপুর অঞ্চলের ৮ জেলার যাত্রীদের মাঝে আকাশপথে ঢাকায় যাতায়াত ক্রমান্বয়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। সৈয়দপুর থেকে বিমানযাত্রীরা সারাদিনই ঢাকা রুটে স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল করতে পারছেন। যে কোন জরুরি কাজে, রোগী বহন, অসুস্থ ব্যক্তি, ব্যবসা-বাণিজ্য সংক্রান্ত সব কাজ দ্রুত করতে পারছে এ অঞ্চলের মানুষ। প্রতিদিন এই বিমানবন্দর দিয়ে প্রায় ৫০০ যাত্রী যাওয়া-আসা করছেন। এতে করে দিন দিন যাত্রীসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে গাণিতিক হারে। ফলে এয়ারলাইন্সের টিকিট পাওয়া সোনার হরিণ হয়ে উঠেছে। আর ট্রাভেল এজেন্সীগুলো যাত্রীদের চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। সৈয়দপুর বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়, দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যস্ত বিমানবন্দরগুলোর মধ্যে অন্যতম সৈয়দপুর বিমানবন্দর। এ বিমানবন্দরে প্রতিদিন ঢাকা রুটে ৯টি ফ্লাইট চলাচল করছে। শুরুতে সরকারি বিমান সংস্থা বিমান বাংলাদেশ একটি ফ্লাইট পরিচালনা করতো। কিন্তু ক্রমান্বয়ে যাত্রীসংখ্যা বৃদ্ধি পেলে বেসরকারি বিমান সংস্থা ফ্লাইট পরিচালনায় যুক্ত হয়। বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি বিমান সংস্থা মিলিয়ে নিয়মিত ৯টি ফ্লাইট পরিচালনা করছে। তবে ফ্লাইট বাড়লেও যাত্রীদের চাহিদা মিটছে না। চাহিদার তুলনায় টিকিট দিতে পারছে না ট্রাভেল এজেন্সিগুলো। ফলে যাত্রীদের কাছে টিকিট সংগ্রহ করা দুর্লভ হয়ে উঠেছে। : আগাম টিকিট সংগ্রহ না করলে টিকিট পাওয়া যায় না। বিমানে নিয়মিত যাতায়াত করেন এমন কয়েকজন যাত্রী জানান, ঢাকাগামী ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় এবং সময়সূচি মেনে না চলায় তারা আকাশপথে যাতায়াত স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। তাছাড়া ট্রেনের এসি আসন বা বাথের টিকিট সহজে পাওয়া যায় না। আবার ভাড়াও বিমানের সঙ্গে তেমন তারতম্য না হওয়ায় আকাশপথে যাত্রায় আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে না। আপনি তার সঙ্গে একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
34004 জন