সাংবাদিককে কেটে ফেলার হুমকি দিলেন রানীশংকৈল মেয়র
Published : Sunday, 4 February, 2018 at 12:00 AM
দিনকাল রিপোর্ট : উন্নয়নকাজে অনিয়ম নিয়ে প্রতিবেদন করেন দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ-এর ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলা প্রতিনিধি খুরশিদ আলম ওরফে শাওন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রানীশংকৈল পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আলমগীর সরকার মুঠোফোনে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে তাকে কেটে ফেলার হুমকি দিয়েছেন। পৌর মেয়র বলেন, ‘বাসা থেকে শান্তিপুরের রাস্তায় আসো। এটা কী বুঝে তুমি করলা?’ প্রতিনিধি শাওন জানতে চান ‘কোনটা?’ মেয়র বলেন, ‘রাস্তার নিউজটা। বড় বড় অফিসাররা আসছে, এখানো আসো মিয়া।’ শাওন বলেন, ‘আমরা যা দেখছি তাই পত্রিকায় দিছি।’ : পৌর মেয়র উত্তেজিত হয়ে বলেন, ‘এই ব্যাটা (অশ্লীল ভাষা) ..., একদম লোথায় কোমর ভাঙে দিবো ব্যাটা। (অশ্লীল ভাষা), ব্যাটা। ওই ব্যাটা, ব্যাটা (অশ্লীল ভাষা) তুই ব্যাটা রাস্তায় আয়।’ প্রতিনিধি শাওন বলেন, ‘এভাবে কথা বলিয়েন না, ভাই।’ মেয়র বলেন, ‘এই তোকে কী বলব রে, তোর গলা চাপে ধরব (অশ্লীল ভাষা)। এই তোর সাহস নাই, তোর বাপের সাহস নাই, এখানে আসার।’ প্রতিনিধি বলেন, ‘এভাবে বলিয়েন না। আপনি কিন্তু ঠিকাদার না, ভাই।’ পৌর মেয়র বলেন, ‘আমি ঠিকাদার না কী, দেখ ব্যাটা। আমি মেয়র। মানুষের কথায় লড়তেছিস। ব্যাটা তোকে চেপকায় দিব। সাংবাদিকের গুষ্টি (অশ্লীল ভাষা) ব্যাটা। তুই সাংবাদিকতা (অশ্লীল ভাষা)। একেবারে কাটে ফালায় দিব, ব্যাটা।’ শাওন বলেন, ‘দেন ভাই, ওটা আপনি যদি পারেন কাটে দেন, সমস্যা নাই।’ : শাওন অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে তার মুঠোফোনে ফোন করে পৌর মেয়র আলমগীর সরকার মারধর ও কেটে ফেলার হুমকি দেন। ঘটনার পর থেকে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ ঘটনায় তিনি বৃহস্পতিবার রাতে রানীশংকৈল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। এ ব্যাপারে কথা বলতে পৌর মেয়রের মুঠোফোনে কল করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। রানীশংকৈল থানার ওসি আবদুল মান্নান জানান, এ বিষয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে না। আপনি তার সঙ্গে একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
34005 জন