ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মত প্রকাশের স্বাধীনতার পরিপন্থী
Published : Sunday, 4 February, 2018 at 12:00 AM
দিনকাল রিপোর্ট : ‘আমরা গুপ্তচর নই, আমরা সাংবাদিক ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বর্তমান সরকারের সহযোদ্ধা।’ এটি মত প্রকাশের স্বাধীনতার পরিপন্থী। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ্যাসোসিয়েশান (বনপা)  আয়োজিত মানববন্ধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা। সংগঠনের সভাপতি সুভাস সাহা বলেন, যদি কোনো ব্যক্তি কোনো সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত বা সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে কোনো ধরনের গোপনীয় বা অতিগোপনীয় তথ্য-উপাত্ত, কম্পিউটার, ডিজিটাল ডিভাইস, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক বা ডিজিটাল নেটওয়ার্ক অন্য কোনো ইলেকট্রনিক মাধ্যমের গোপন ধারণ, প্রেরণ বা সংরক্ষণ করেন বা করতে সহায়তা করেন তাহলে তা গুপ্তচরবৃত্তির অপরাধ বলে গণ্য হবে। এর জন্য ১৪ বছরের জেল ও ২০ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দন্ডের বিধান রাখা হয়েছে। এছাড়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন খসড়ার ২৫, ২৬, ২৯ ও ৩১ ধারার বিলুপ্তি ঘোষণাকৃত আইসিটি আইনে ৫৭ ধারার অনুরূপ যুক্ত করা হয়েছে। ফলে তিনি ৩২ ধারা আইন বিলুপ্তির জোর দাবি জানান। এছাড়া সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম তারেক চৌধুরী বলেন, দেশের অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার বিকল্প নেই, কিন্ত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন দ্বারা বাধাগ্রস্ত হয়েছে। তিনি বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বর্তমান সরকারের সহযোদ্ধা। প্রস্তাবিত ডিজিটাল তথা অনলাইন সাংবাদিকতা আইন ২০১৮ কালো ধারা ৩২সহ অন্য ধারাগুলো অবিলম্বে বাতিল করা করা হোক। না হলে সাংবাদিকতার অধিকার খর্ব হবে এবং স্বাধীন অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বাধাগ্রস্ত হবে। এই ধারা সাংবাদিকতার বিরোধী ও গণবিরোধী। এই আইন সংসদে পাস করা হলে সাংবাদিকরা হবে এর বড় শিকার। প্রভাবশালী, দুর্নীতিবাজ এবং অপরাধীদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তার মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ এবং পরিবেশন করা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। এই আইনে মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং জানার অধিকার ব্যাহত হবে। ফলে অবিলম্বে এই আইন বাতিলের দাবি জানান বক্তারা। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে না। আপনি তার সঙ্গে একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
34001 জন