সারাদেশে গণগ্রেফতার বাড়ি বাড়ি তল্লাশি : পরিবারকে নানা হুমকি
Published : Wednesday, 7 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 06.02.2018 11:09:21 PM
দিনকাল রিপোর্ট : সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গণগ্রেফতার, হামলা, নির্যাতন ও হুমকি অব্যাহত রয়েছে। টঙ্গীতে হাসান উদ্দিন সরকারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিএনপি নেতা-কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের না পেয়ে পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে পুলিশ । রাজশাহীতে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা চাঁনের পরিবারের সদস্যদের এতিম করার হুমকি দিয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। বিএনপির যুগ্মমহাসচিব ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন নবী খান সোহেলের বাসায় তল্লাশির নামে তার মেয়েদের সাথে খারাপ ব্যবহার করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপি নেতা ও সাবেক এমপি শাহ শহীদ সারোয়ারের বাসা তিনদিন ধরে অবরুদ্ধ করে রেখেছে পুলিশ। এছাড়া বিএনপি নেতা-কর্মীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুরের খবর পাওয়া গেছে। রংপুর : রংপুর স্টাফ রিপোর্টার জানান, আগামীকাল বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায় উপলক্ষে আইনশৃংখলা বাহিনী রংপুর মহানগরীসহ আশপাশের এলাকায় সতর্ক পাহারা বসিয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে নগরীর ১৪টি পয়েন্টে চেক পোস্ট বসিয়ে ব্যাপক তল্লাশি চালায় পুলিশ। গত সোমবার ও মঙ্গলবার ৪৮ ঘণ্টায় মহানগর বিএনপির প্রচার সম্পাদক সেলিম চৌধুরী ও সহ-দফতর সম্পাদক আবু আলী মিঠুসহ বিএনপি-জামায়াতের ৩৩ নেতাকর্মীসহ ১৭৩জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রংপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু জানান, একটি রায়কে ঘিরে সরকার এতো উৎকণ্ঠিত কেন বুঝতে পারছি না। পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে অভিযান চালাচ্ছে। রাস্তায় রাস্তায় হয়রানি করছে। যাকে যেখানে পাচ্ছে তাকে সেখান থেকেই গ্রেফতার করা হচ্ছে। এটি কোন স্বাধীন গণতান্ত্রিক দেশে চলতে পারে না। তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই মহানগরীসহ আশপাশের বিভিন্ন উপজেলা থেকে অর্ধ-শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মাধ্যমে সরকার চেষ্টা করছে যেন আমরা প্রতিবাদ কর্মসূচি করতে না পারি। সরকারের এই অগণতান্ত্রিক আচরণ বন্ধ না করলে এর পরিণাম ভালো হবে না। : রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান সাইফ জানান, ৮ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে কেউ যেন আইনশৃংখলা পরিস্থিতি বিঘœ ঘটাতে না পারে, নাশকতা করতে না পারে। সেজন্য পোশাকীসহ সাদা পোশাকের আইনশৃংখলাবাহিনীকে সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। আমরা নগরীর ১৪টি স্থানে চেকপোস্ট বসিয়ে মোটরসাইকেলসহ সন্দেহভাজনদের তল্লাশি করছি। তবে কাউকেই হয়রানি করা হচ্ছে না। তিনি বলেন, ৮ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে নাশকতা সৃষ্টি করা হতে পারে এ ধরণের সুনির্দিষ্ট তথ্যের অভিযোগে বেশ কিছু ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েেেছ। : রংপুর পুলিশ কন্ট্রোল রুম সূত্র জানিয়েছে, গত ৪৮ ঘণ্টায় মহানগর বিএনপির প্রচার সম্পাদক সেলিম চৌধুরী, সহ-দফতর সম্পাদক আবু আলী মিঠু, যুবদল নেতা লিখন, পীরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি আনিসুর রহমান আনিছ, তারাগঞ্জ উপজেলা শ্রমিক দল সাধারণ সম্পাদক সোহেল, ছাত্রদলের সহগবেষণা সম্পাদক মোহাম্মদ সান, কাউনিয়া উপজেলা ছাত্রদলের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজানসহ বিএনপি জামায়াতের ৩৩ নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন মামলায় ১৭৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। : : জামালপুর : জামালপুর প্রতিনিধি জানান, জামালপুরে বিশেষ অভিযানে জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ও উপজেলা জামায়াতের সাধারণ সম্পাদকসহ বিএনপি-জামায়াতের ৭০ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে জেলার ৭টি উপজেলার বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে  বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীসহ ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের গতকাল মঙ্গলবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কন্ট্রোল সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলায় জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক গোলাম রব্বানী ও জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক মনোয়ারুল ইসলাম কর্নেলসহ ১৫ বিএনপির নেতাকর্মী, ইসলামপুরে উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম বিপুল ও উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক মাহফুজ্জামান লুলুসহ ৮জন, সরিষাবাড়ীতে উপজেলা জামায়াতের মাসুদ রানা দুলালসহ ১৫ জন, মেলান্দহে পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুস ছালাম মোল্লাসহ ৯ জন, মাদারগঞ্জে ৪ জন, দেওয়ানগঞ্জে ৩জন ও বকসীগঞ্জে ১০ জনসহ বিএনপি-জামায়াতের ৭০ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, গ্রেফতারকৃতরা নিয়মিত মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি। কাউকে হয়রানির জন্য গ্রেফতার করা হয়নি। : কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম স্টাফ রির্পোটার জানান, ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায়কে ঘিরে কথিত নাশকতার আশঙ্কায় কুড়িগ্রামে পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিএনপি-জামায়াতের ২০ নেতাকর্মীসহ ৬৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ। : বিএনপি-জামায়াতের ২০ নেতাকর্মীর মধ্যে ১৮ জন বিএনপি ও ২ জন জামায়াতের নেতাকর্মী। কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যা থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত জেলার ৯ উপজেলায় অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ২০ নেতাকর্মীসহ ৬৭ জনকে আটক করা হয়েছে। এরমধ্যে সদর উপজেলায় থানা আমির হাবিবুর রহমানসহ জামায়াতের ২ জন ও বিএনপির একজনকে, ফুলবাড়ি উপজেলায় উপজেলা বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আপেল মন্ডলসহ বিএনপির ২ জন, রাজারহাটে বিএনপির ২জন, উলিপুরে বিএনপির ৩জন, নাগেশ্বরীতে বিএনপির ২জন, ভুরুঙ্গামারীতে বিএনপির ২জন, চিলমারীতে বিএনপির একজন, রৌমারীতে ২ জন ও নাগেশ্বরীর কচাকাটায় বিএনপির ২ জনসহ মোট ২০ জনকে আটক করা হয়েছে। কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেনহাজুল আলম জানান, যে কোন ধরনের নাশকতা এড়াতে এবং শান্তি শৃংখলা রক্ষায় এদের গ্রেফতার করা হয়েছে। : বকশীগঞ্জ : বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি জানান, জামালপুরের বকশীগঞ্জে বিশেষ অভিযানে দুই বিএনপির কর্মীসহ ১০ জনকে আটক করেছে পুুলিশ। গত ২৪ ঘণ্টায় বকশীগঞ্জ থানা পুুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে , ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রায় নিয়ে নাশকতার পরিকল্পনা করতে পারে এমন অভিযোগে সোমবার সন্ধ্যায় সেলিম মিয়া (৩০) ও মিলন মিয়া (২৮) নামে দুই বিএনপির সমর্থককে আটক করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ী, ওয়ারেন্টণ্টুক্ত আরো ৮ আসামিকে পুলিশ আটক করেছে। : দুই বিএনপির কর্মী আটকের ঘটনায় বকশীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। : বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসেন জানান, আটককৃতদের মঙ্গলবার কোর্টে পাঠানো হয়েছে। : শাহজাদপুর : শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে পুলিশের অভিযানে বিএনপি,জামাতের ৩ নেতাকর্মী গ্রেফতার হয়েছে। জানা গেছে, গত সোমবার বিকেলে ও গভীর রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পোতাজিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, পোরজনা ইউনিয়ন বিএনপি নেতা নাজমুল হোসেন লালু ও পৌর জামাতের সাবেক আমির আঃ রাজ্জাককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ওসি (তদন্ত) রাকিবুল হুদা এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। এদিকে বিএনপি নেতা কর্মীদের গ্রেফতার করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে শাহজাদপুর বিএনপির নেতাকর্মীরা। : টেকনাফ : টেকনাফ প্রতিনিধি জানান, বিএনপি ও যুবদলের ৩ নেতাকে গ্রেফতার করেছে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ। ৫ ফেব্রুয়ারি সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে হোয়াইক্যং স্টেশনের একটি কুলিং কর্নারের সামনে থেকে পুলিশ তাদেরকে আটক করে নিয়ে যায় বলে জানিয়েছেন টেকনাফ উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন। গ্রেফতারকৃতরা হলেন হোয়াইক্যং ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক ইউপি মেম্বার দিল মোহাম্মমদ, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আবুল কালাম সিকদার ও যুবদল নেতা মামুন। টেকনাফ মডেল থানার ওসি মাইন উদ্দীন খান গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ‘ধৃত ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রয়েছে। উক্ত মামলায় তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হবে’। : দাগনভূঞা : দাগনভূঞা (ফেনী) সংবাদদাতা জানান, বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলায় বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের বাড়িতে গিয়ে দাগনভূঞা থানা পুলিশ অভিযান ও পরিবারের সদস্যদের সাথে দু-ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দাগনভূঞা উপজেলা বিএনপির সভাপ্রতি, আকবর হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ছাত্রদলের সভাপতি নিজাম উদ্দিন ভূঞা হুদন, সাধারণ সম্পাদক সাইমুল হক রাজীব, উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন নাসির, ৩নং ইউনিয়নের আহব্বায়ক ডালিম, ৮নং ইউনিয়নের আহব্বায়ক এমদাদ হোসেন এমদাদ, ৭ নং মাতুভূঞা ইউনিয়নের যুগ্ম-আহব্বায়ক নুর হোসনে পলাশ, পৌর যুবদল নেতা মাসুদ, ফেনী কলেজ ছাত্রনেতা হামিদ বেগসহ সকল নেতাকর্মীদের বাড়িতে গিয়ে অভিযান চালাচ্ছে দাগনভূঞা থানা পুলিশ। এ ব্যপারে দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ অভিযোগের সত্যতা অস্বীকার করে জানান, অভিযান হচ্ছে সঠিক না তবে যাদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে তাদের ধরতে অভিযান চলছে। এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া।      : কাহারোল : কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধি জানান, দিনাজপুরের কাহারোল থানার পুলিশ সোমবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ঝটিকা অভিযান চালিয়ে দুজনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, কাহারোল উপজেলার ২নং রসুলপুর ইউপির বিএনপির সভাপতি মোঃ আবুতালেব ও উপজেলার ১নং ডাবোর ইউপির জামায়াতের আমীর মোঃ জয়নুল আবেদীন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাহারোল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আইয়ুব আলী। আসামিদের বিরুদ্ধে কাহারোল থানায় ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫ (১)(৩) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে । : আদমদীঘি (বগুড়া) : প্রতিনিধি জানান, মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার সান্তাহার পৌর বিএনপির সভাপতি সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন  সান্তাহার পৌর বিএনপি সভাপতি ফিরোজ মোঃ কামরুল  হাসান (৫৫) সান্তাহার চা- বাগান এলাকার মকবুল হোসেনের ছেলে বিএনপির নেতা মানিক (২৯) আদমদীঘি সদরের বিএনপি নেতা হাজী তাছের উদ্দীনের ছেলে মাসুদ আহমদ (৪৫)। মামলার তদন্ত কারী অফিসার এসআই আব্দুর রাজ্জাক গ্রেফতারের কথা নিশ্চিত করে বলেন এ মামলায় মোট ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাত ১০টায় উপজেলার সান্দিড়া থেকে মিজানুর রহমান ও পাভেলকে গ্রেফতার করে এবং পরে জিনইর গ্রামের মৃত সবদেরের ছেলে যুবদল নেতা ফেরদৌস হোসেন (৪২) কে গ্রেফতার করে। : আগৈলঝাড়ায় : (বরিশাল) আগৈলঝাড়ায় প্রতিনিধি জানান, আগৈলঝাড়ায় ৮ ফেব্র“য়ারি খালেদা জিয়ার মামলার রায়কে কেন্দ্র করে ছাত্রদল যুবদল নেতাসহ ৭ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি পুলিশের ব্যাপক তল্লাশি। সোমবার দিবাগত রাতে আগৈলঝাড়া উপজেলার চাঁদত্রিশিরা গ্রাম থেকে বাগধা ইউনিয়ন ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ শাহিন বক্তিয়ার ও একই গ্রামের বাগধা ইউনিয়ন ৫নং ওয়ার্ড যুবদল সহ-সাধারণ সম্পাদক রিপন বক্তিয়ারকে পুলিশ গভীর রাতে বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে।  ওই সময় পুলিশ বাগধা ইউনিয়ন বিএনপি সাংগঠনিক সম্পাদিক ও উপজেলা সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ফিরোজুর রহমান লালুর বাড়ি তল্লাশি করে। তখন ওই পরিবারের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বাকাল ইউনিয়ন যুবদলনেতা জাকারিয়া খান, কিবরিয়া খানের বাড়ি একই ইউনিয়নের ছাত্রদলনেতা সোহাগ বক্তিয়ারের বাড়ি পুলিশ ব্যপক তল্লাশি করে। ওই সময় সোহাগের বাড়ী সংলগ্ন ইউসুফ সরদারকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পরবর্তীতে রাস্তায় এনে ছেড়ে দেয়। এছাড়াও উপজেলার রতœপুর ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার শাহ এর বাড়ী পুলিশ ব্যাপক তল্লাশি চালায়, উপজেলার গৈলা গ্রামে উপজেলা যুবদলনেতা আবু সাইয়েদ সরদারের বাড়ী তল্লাশি করে। রাতভর পুলিশ উপজেলার সর্বত্র টহল দেয়। এছাড়াও উপজেলার আস্কর গ্রাম থেকে রিপন বাড়ৈ, মোল্লাপাড়া থেকে গোবিন্দ সরকার, বাকাল গ্রাম থেকে হারুন ফকির, ছয়গ্রাম থেকে রবিউল পাইক, সেরাল গ্রাম থেকে হাফিজ সন্যামতকে গ্রেফতার করে। জানা যায় এদের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট রয়েছে। আরো জানাযায় যুবদল ইউনিয়ন যুগ্ম সম্পাদক রিপন বক্তিয়ারের পিতা জয়নাল বক্তিয়ার ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন ছিল তাকে নিয়ে রিপন বাড়ী আসলে ওই রাতেই পুলিশ রিপনকে গ্রেফতার করায় সে মানুষিক ভাবে ভেঙ্গে পড়ে। গতকাল দুপুর ২.৪৫ মিনিটে সে ইন্তেকাল করেন। আগৈলঝাড়া উপজেলা জুড়ে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম আতঙ্ক দেখা দিয়াছে। গ্রেফতার এড়াতে বাড়ি ছেড়ে তারা অনেকটা আত্মগোপন অবস্থায় রয়েছে বলে সংগঠন সুত্রে জানা গেছে।   : খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় খাগড়াছড়িতে জেলা বিএনপি, জেলা কৃষকদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মিজানুর রহমানসহ ৩৩ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা ও নাশকতা চেষ্টার অভিযোগ রয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে খাগড়াছড়ি সদরে ২জন, মাটিরাঙ্গায় ২জন, মহালছড়িতে ২জন, পানছড়িতে ৪জন, লক্ষীছড়িতে ২জন, দীঘিনালায় ৫জন, গুইমারাতে ১জন, রামগড়ে ১জন এবং মানিকছড়িতে ৫জন। তবে জেলা বিএনপি‘র পক্ষ থেকে দাবী করা হয়, বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের ৩৪ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। : খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে। এছাড়াও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার চেষ্টা করতে পারে এমন আশংকায় তাদের আটক করা হয়। এদিকে জেলা বিএনপির সভাপতি ওয়াদুদ ভূইয়া গণ গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। : আটককৃতরা হচ্ছে, খাগড়াছড়ি জেলা কৃষকদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান, খাগড়াছড়ি পৌর বিএনপি সাধারন সম্পাদক মানিক মিয়া, মাটিরাঙ্গা পৌর বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মফিজ মিয়া, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, মহালছড়ি উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি নবী হোসেন, প্রচার সম্পাদক জিন্দা মিয়া, গুইমারা উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম মিয়া, লীছড়ি উপজেলা ছাত্রদল সদস্য মো: সোহেল, যুবদলকর্মী মো: আলমগীর। : মানিকছড়ি উপজেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মো: আনোয়ার হোসেন, মানিকছড়ি গিরী মৈত্রী ডিগ্রি কলেজ সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন, ৪নং তিনটহী ইউনিয়ন ছাত্রদল সাধারন সম্পাদক জহির রাহয়ান নিরব, ৪নং যোগ্যছোলা ইউনিয়ন ছাত্রদল যুগ্ন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, ৫নং ওয়ার্ড যুবদল সদস্য সফিকুল ইসলাম, ২নং বাটনাতলী ইউনিয়ন ছাত্রদলের আবদুল মান্নান, ৪নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের সদস্য ফরিদ হোসেন, রামগড় উপজেলার : : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার রায় নির্ধারণ করে বিএনপির ওপর বুলডোজার চালাচ্ছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
2647 জন