শিগগিরই হাইকোর্টে আপিল করা হবে : আইনজীবীবৃন্দ
আদালতের পর্যবেক্ষণের সঙ্গে রায়ের কোনো মিল নেই
Published : Friday, 9 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 08.02.2018 10:32:26 PM
দিনকাল রিপোর্ট : রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এই অভিমত ব্যক্ত করেছেন তার আইনজীবীরা। রাজনৈতিক মামলায় রাজনৈতিক রায় বলেও মন্তব্য করেছেন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। তারা বলেন, অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ ছাড়া কাল্পনিক অভিযোগে বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ফাঁসানো হয়েছে। আদালতের পর্যবেক্ষণের সঙ্গে রায়ের কোনো মিল নেই। আইনজীবীরা বলেন, বিচারিক আদালতে সাক্ষীদের বক্তব্যেও প্রসিকিউশন অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি। যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকালে মামলার তথ্য-উপাত্তে অভিযোগের প্রমাণ মেলেনি বলেও জানান বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। এই মামলার রায়ে সরকারের ইচ্ছাই প্রকাশ পেয়েছে। কারণ রায়ের আগেই সরকারের একাধিক মন্ত্রী, এমপি এবং নেতাদের হুঙ্কার আর বক্তব্য থেকে বুঝা গেছে মামলার রায় কি হতে পারে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে বিচারিক আদালতের দেয়ার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় তাদের আইনজীবীরা এই অভিমত ব্যক্ত করেন। গতকাল দুপুরে রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৫ বছরের সাজার রায়  ঘোষণা করেন। এছাড়া মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বাকি ৫ জনের বিরুদ্ধে ১০ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। তাদের বিরুদ্ধে (আসামিদের)  এই কারাদন্ড এবং ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা অর্থদন্ডের রায় দিয়েছে আদালত। : ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, দুদকের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৫ বছরের সাজার রায় নিছক রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশ। এই ধরনের সাজানো ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসার মামলায় রায়ে প্রমাণ হয়েছে বিচারিক আদালত সরকারের নিয়ন্ত্রিত। কারণ যেখানে বেগম খালেদা জিয়াসহ সব আসামির খালাস পাবার কথা সেখানে রায়ে তাদের সাজা এবং অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। : সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন আরও বলেন, রায়ের নকলের জন্য আবেদন করেছি। রায় পাওয়ার সাথে সাথে আমরা হাইকোর্টে জামিন আবেদন করব। আশা করছি আমরা সেদিন জামিন পাব। তিনি বলেন, এই মামলাটি একটি রাজনৈতিক রায়। এই মামলায় বেগম খালেদা জিয়াসহ আসামিদের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের কোনো প্রমাণ নেই। আমরা উচ্চ আদালতে যাব, ইনশাল্লাহ ন্যায়বিচার পাব। : সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার রায়ের পর সুপ্রিম কোর্টে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন এসব কথা বলেন। : তিনি বলেন, ‘আমরা প্রথমে নিম্ন আদালতে সাজার রায়ের বিরুদ্ধে আপিল গ্রহণের জন্য উচ্চ আদালতে আবেদন করব। দ্বিতীয়ত, আপিল গ্রহণের পর জামিন আবেদন ও রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করা হবে।’ আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বেগম খালেদা জিয়া প্রার্থী হতে পারবেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, এখন নির্বাচনের প্রশ্ন নেই। তফসিল  ঘোষণা করা হয়নি। তবে সাজা স্থগিত হলে নির্বাচনে প্রার্থী হতে আইনগত কোনো বাধা নেই। রায় স্থগিত হলে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার নজির আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সম্প্রতি অনেক উপজেলা ও পৌরসভা নির্বাচনে নিম্ন আদালতে সাজা হওয়ার কারণে প্রার্থিতা বাতিল হয়েছিল। পরে হাইকোর্টে নিম্ন আদালতের সাজা স্থগিত হওয়ায় তারা প্রার্থী হয়েছেন। অনেকে বিজয়ী হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন। : বিএনপি  চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া বলেছেন, ‘কারাগারে প্রথম  শ্রেণির মর্যাদা (ভিআইপি) পাবেন খালেদা জিয়া। জেল কর্তৃপ ও পুলিশ এই বিষয়টি তাদেরকে নিশ্চিত করেছেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে গণমাধ্যমকর্মীদের নানা প্রশ্নের জবাবে সানাউল্লাহ মিয়া এসব কথা বলেন। বেগম খালেদা জিয়ার বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, ম্যাডাম (বেগম খালেদা জিয়া) সবাইকে ধৈর্য ধারণ করতে বলেছেন। : এদিকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, তথ্য প্রমাণ ছাড়াই  বিএনপি  চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এই রায় দেয়া হয়েছে। এই রায়ে তিনি ন্যায়বিচার পাননি। রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবো। আশা করি  সেখানে ন্যায়বিচার পাব।  গতকাল বৃহস্পতিবার আদালত বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ঘোষণার পর তাৎণিক প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন তিনি। প্রতিক্রিয়ায় মেজর (অব.) হাফিজ বলেন, সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এই রায় দেয়া হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়া কোনোভাবেই মামলায় আনীত অভিযোগের সাথে জড়িত না। তিনি বলেন, নিম্ন আদালত সরকারের নিয়ন্ত্রণে এই রায়ের মধ্য দিয়ে তা প্রমাণ হয়েছে। : : : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

ভারতীয় মিডিয়া বলেছে, বাংলাদেশে অস্থিরতা ছড়িয়ে পড়তে পারে। আপনিও কি তেমন আশঙ্কা করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
4609 জন