ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয় : ইকবাল
খালেদা জিয়ার রায় সরকারের জন্যও শিক্ষণীয়
Published : Saturday, 10 February, 2018 at 12:00 AM
দিনকাল রিপোর্ট : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদন্ডের রায়কে বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জন্যও শিক্ষা বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘গতকাল  যারা ক্ষমতায় তাদের জন্যও এ রায় শিক্ষা। কারণ ক্ষমতাতো কারও জন্য চিরস্থায়ী নয়। ক্ষমতায় যারা যাবেন অথবা ক্ষমতার বাইরে যারা থাকবেন তারা কেউ যেন এই ধরনের দুর্নীতি বা অনিয়ম না করতে পারে সে জন্য এই রায়কে একটি মাইলফলক বলে আমি মনে করি। এই রায় সবার জন্যই বড় শিক্ষা।’ গত বৃহস্পতিবার রাতে বেসরকারি সময় টিভির একটি টক শোতে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন ইকবাল সোবহান। টক শোতে অংশ নেয়া বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ‘আমাদের দেশের কালচার হলো, সরকারে থাকা অবস্থায় অপরাধ থেকে দায়মুক্তি নিয়ে নেয়। আমাদের এ সংস্কৃতি থেকে বের হতে হবে। অপরাধ কেবল বিরোধী দলের। সুতরাং তাদের শাস্তি দিতে হবে এমন সংস্কৃতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে।’ সেলিম বলেন, ‘আইন সবার জন্য সমান এটা সবাই বলে থাকে। যদি সেটাই হয় তাহলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ থেকে বলা হয়েছিল ৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ। অথচ ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতারা রাজধানীতে মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন করেছে, সভা-সমাবেশ ও জটলা করেছে। গন্ডগোল প্রতিহত করার নামে মিছিল করা যাবে আর গন্ডগোল করার জন্য করা যাবে না কোন রীতি।’ সিপিবি সভাপতি বলেন, ‘সকালে সরাসরি টেলিভিশনে দেখলাম মগবাজার এলাকায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কর্মীদের সঙ্গে মারামারি হচ্ছে। এখানে সংঘর্ষে দুই পক্ষই জড়িত। কিন্তু বিএনপির কর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি মনে করি আইন ভঙ্গ করার জন্য আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ কর্মীদেরও গ্রেফতার করা উচিত। আর এটাই ন্যায়সঙ্গত ছিল। কিন্তু সেটা করা হয়নি।’ টক শোতে উপস্থিত সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ রায়ের আগেই রায় নিয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির কিছু নেতার আগাম মন্তব্যের সমালোচনা করেন। তাছাড়া ২০০৮ সালে শেখ হাসিনার নামে করা মামলাগুলো প্রত্যাহার করে নেয়ারও সমালোচনা করেন। তিনি অভিযোগ তোলেন, বিচারক স্বাধীনভাবে রায় দিতে পারেননি। স্বাধীনভাবে দিতে পারলে রায় হতো ভিন্ন। মাহফুজুল্লাহ বলেন, ‘এই মামলার আইনগত দিক নিয়ে আমি কথা বলতে পারব না। তবে এই মামলায় কাগজপত্রগুলো ঘষামাজা করে আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছিল বলে আমরা জেনেছি। কিন্তু এর কোনো ব্যাখ্যা আমরা জানিনি।’ খালেদা জিয়াকে নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগারে রাখার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এটা করা হয়েছে এরশাদকে খুশি করার জন্য। কারণ এরশাদ এখন আওয়ামী লীগের সঙ্গী।’ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক কারণে এই রায় দেয়া হয়েছে বলেও মনে করেন বিএনপিপন্থী এই সাংবাদিক। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মন্ত্রীদের বক্তব্যের সঙ্গে রায়ের হুবহু মিল রয়েছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7057 জন