সারাদেশে বিএনপি নেতাদের বাড়িঘরে হামলা ও গণগ্রেফতার চলছেই
Published : Saturday, 10 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 09.02.2018 11:11:54 PM
সারাদেশে বিএনপি নেতাদের বাড়িঘরে হামলা ও গণগ্রেফতার চলছেইদিনকাল রিপোর্ট : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদন্ডাদেশের প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ মিছিলে গুলি করেছে পুলিশ। সারাদেশে কয়েক শ নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হন। দেশব্যাপী বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িঘর ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে সরকারদলীয় নেতাকর্মীদের হামলা-ভাঙচুর, পরিবারের সদস্যদের ওপর নির্যাতন ও হুমকির পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তল্লাশি এবং গণগ্রেফতার চলছে। স্থানীয় প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে বিস্তারিত। বগুড়া : বগুড়া অফিস জানায়, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে বগুড়ায় ছাত্র ও যুবদলের বিক্ষোভ মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এ সময় কমপক্ষে ১০ নেতাকর্মী আহত হওয়ার দাবি করেছে যুবদল। গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের আগে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচিতে যোগ দিতে আসার পথে শহরের কাঁঠালতলায় পুলিশি বাধার মুখে পড়েন যুবদলের নেতাকর্মীরা। জানা গেছে, বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ফরমায়েশি সাজার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল শুক্রবার সকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলের প্রস্তুতি নেয় জেলা বিএনপি। কার্যালয়ের দুই পাশের রাস্তায় কাঁটাতারের ব্যারিকেড এবং পুলিশি জেরা মোকাবিলা করে কিছুসংখ্যক নেতাকর্মী দলীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হয়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আজিজুল হক কলেজ ছাত্রদল ও শহর যুবদলের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ের দিকে যেতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে পুলিশ মিছিলের ওপর লাঠিচার্জ করলে মিছিল ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এ সময় ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে তারা জানিয়েছেন। এদিকে এ ঘটনার পর পুলিশি বেষ্টনীর মধ্যে মিছিল করে কর্মসূচি শেষ করেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। এর আগে জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন বক্তব্য রাখেন। : বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে শুক্রবার ভোর থেকেই বগুড়া শহরে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। শহরের কেন্দ্রস্থল সাতমাথা, নবাববাড়ী রোডে বিএনপি কার্যালয়ের আশপাশসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পুলিশ ও র‌্যাবের বিশেষ টিমকে সার্বক্ষণিক শহরে টহল দিতে দেখা গেছে। : শিবগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ : বগুড়া জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিবগঞ্জ থানা বিএনপির সভাপতি অধ্যক্ষ মীর শাহে আলম বলেছেন, আমাদের প্রিয় নেত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় সাজার রায় রাজনৈতিক ও প্রতিহিংসামূলক। তিনি আরো বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্ত না হওয়া পর্যন্ত আমরা রাজপথে থাকব বলে অঙ্গীকার করে তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের লাঘামহীন দুর্নীতি ঢাকতে বিএনপির ওপর মিথ্যা মামলা সাজিয়ে বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ সারাদেশের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা ও হামলা চালাচ্ছে। : কেন্দ্রীয় বিএনপির কর্মসূচির অংশ হিসাবে গতকাল শুক্রবার শিবগঞ্জ থানা ও পৌর বিএনপি আয়োজিত দলীয় কার্যালয়ে প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। পৌর বিএনপির সভাপতি বুলবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এসএম তাজুল ইসলাম, বিএনপি নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম মানিক, ইউপি চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ সাবু, বিএনপি নেতা মাস্টার আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুল করিম, আব্দুর রাজ্জাক, ইদ্রিস আলী, তাহেরুল ইসলাম, অধ্যক্ষ আব্দুল আলীম, মামুনুর রশিদ, আজিজার রহমান, মোকাব্বর হোসেন, আবু তাহের, আনোয়ারুল ইসলাম মুকুল, জেডএম মতিন, রফিকুল ইসলামসহ ১২টি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।  : ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদন্ডাদেশের প্রতিবাদে কেন্দ্রঘোষিত বিক্ষোভ মিছিলে গুলি করেছে পুলিশ। এতে যুবদল কর্মী ওবায়দুলসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হন। এ সময় দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দসহ ১০ নেতাকর্মী শুক্রবার বাদজুমা নগরীর বাউন্ডারি রোড এলাকা থেকে মিছিল করার সময় তাদের আটক করে পুলিশ।  আটক অন্য নেতাকর্মীরা হলেনÑ জেলা ছাত্রদলের সাবেক সদস্য আলম, নগর বিএনপির সদস্য মনির আহমেদ, জেলা যুবদল সদস্য মনির, আতাহার কামাল, রাজিব হোসেন, আল আমিন, আনিসুজ্জামান শুভ ও শ্রমিক দল নেতা দেবদ্রুত দাসসহ আরো দুই জন। দলীয় সূত্র জানায়, নগরীর নতুনবাজার মোড় এলাকা থেকে ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের করে দলটি। এ সময় জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী রানা, প্রচার সম্পাদক কায়কোবাদ মামুন, দপ্তর সম্পাদক এমএ হান্নান খান, সদস্য এড. আনোয়ারুল আজিজ টুটুল, জেলা যুবদল সভাপতি শামীম আজাদ, ছাত্রনেতা ফেন্স রাসেল, বাবু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। মিছিলটি নগরীর নতুনবাজার থেকে বাউন্ডারি রোড হয়ে নওমহল এলাকায় যাওয়ার পথে পুলিশ মিছিলকারীদের পেছন থেকে ধাওয়া করে। কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে ৫ থেকে ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়া হয়। এ সময় পুলিশ ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দসহ ১০ বিএনপি নেতাকে আটক করে। : নান্দাইল : নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌরসভা ছাত্রদলের সভাপতি চারআনিপাড়া গ্রামের আব্দুল মোতালেবের পুত্র মো. এনামুল হক (২৬) কে নান্দাইল মডেল থানাপুলিশ বিস্ফোরক মামলায় শুক্রবার গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। : এদিকে খালেদা জিয়ার কারাদন্ডাদেশের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহ নগরীতে দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর মাহমুদ আলম ও কেন্দ্রীয় যুবদলের সদস্য লিটন আকন্দের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করলে পুলিশ ২৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে। এ ঘটনার জের ধরে বিএনপি নেতা আলমগীর মাহমুদ আলমের বাসায় শুক্রবার দুপুরে নজিরবিহীন তল্লাশি চালায় পুলিশ। শহরের ২নং পুলিশ ফাঁড়ির টিএসআই ফারুকের নেতৃত্বে এ তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। একইভাবে দক্ষিণ জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিটন আকন্দের বাসায়ও তল্লাশি চালানো হয়।  ভালুকা : ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রায়ের প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার বাদজুমা বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। উপজেলার পৌর সদরের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে খন্ড খন্ড মিছিল বের করা হয়। দলীয় সূত্র জানায়, পুলিশ শান্তিপূর্ণ মিছিলে লাঠিচার্জ চালিয়ে মিছিলগুলো ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং দলীয় নেতাকর্মীদের আটক করে। বাদজুমা ভালুকা ঈদগাহ মাঠ থেকে বিএনপি, যুবদলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশ মিছিলে লাঠিচার্জ শুরু করে। পুলিশি বাধায় মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ভালুকা বাজার রোডস্থ স্থানীয় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে আশ্রয় নিলে সেখান থেকে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা ও উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি দলীয় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তারিকুল ইসলাম তারু, ২নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আতিকউল্লাহ পাঠান ধনু, পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম দিলদারকে আটক করে পুলিশ।  এছাড়া ভালুকা মল্লিকবাড়ী সড়কের ধামশুর মোড়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের মিছিলে বিএনপি নেতা ফরিদ সরকার, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আসাদ উল্যাহ চৌধুরী ধ্রুব, তোজাম্মেল হক বকুলসহ  নেতৃবৃন্দ, পৌর সদরের গ্যাস অফিস মোড়ে ছাত্রদল নেতা লুৎফর রহমান খান সানি, আবু রায়হান, মঈন মুন্সীসহ ছাত্রদলের অন্য নেতাকর্মীরা অংশ নেন। বৃহস্পতিবার রাতে কলেজ এলাকায় উপজেলা যুবদল সাধারণ সম্পাদক রকিবুল হাসান রাশেল, ৪নং ওয়ার্ডে ছাত্রদল নেতা লুৎফর রহমান খান সানিসহ বিভিন্ন নেতাকর্মীর বাসায় পুলিশ তল্লাশি চালায়। রাতে ৪নং ওয়ার্ডের বাসা থেকে পুলিশ কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন চয়নকে আটক করে বলে দলীয় সূত্র জানায়। : রংপুর : রংপুর অফিস জানায়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান জননেতা তারেক রহমানসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে রায় পরবর্তী রংপুরেও বিশেষ অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রেখেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপর থেকে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত পুলিশের ওই অভিযানে বিএনপি-জামায়াত জোটের ১৭ নেতাকর্মীসহ ৭০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলে এলাহী জানান, রংপুর মহানগরীসহ জেলার ৮ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের নামে একাধিক মামলা রয়েছে। অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি। এর আগে গত সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) থেকে বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত রংপুর জেলার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের ৪১ নেতাকর্মীসহ ৩১৩ জন ত্রেফতার হয়েছে। এ নিয়ে গত ৫ দিনে বিএনপি-জামায়াত শিবিরের ৫৮ নেতাকর্মীসহ মোট ৩৮৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  : নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা প্রদানের প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জে জেলা ও মহানগর পৃথক পৃথক বিক্ষোভ মিছিল করেছে। মিছিলে নেতৃত্ব দেন জেলা যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম মুকুল। বক্তব্য রাখেন মহানগরের যুগ্ম আহবায়ক মন্তাজউদ্দিন মন্তু, ইসলেহউদ্দিন ইশা, জাকির হোসেন বাবু, কাইউম, নূরে ইয়াসিন নোবেল, মাসুদুর রহমান, সাদেকুর রহমান সাদেক, সালাউদ্দিন, সৈকত হোসেন ইকবাল, মনির হোসেন, জাহের আহমেদ, ফিরোজ, জুম্মন সরকার, সুমন আহমেদ, রতন আহমেদ, লিটন চৌধুরী, আলমগীর হোসেন, রুবেল, আতাউর রহমান প্রমুখ। জেলা যুবদল সভাপতি মোশাররফ হোসেন বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত সাজা দিয়ে প্রমাণ হয়েছে আ’লীগ আবারো বিনা নির্বাচনে ক্ষমতায় থাকতে চায়। তারা দেশে একদলীয় শাসন কায়েমের জন্য এই রায় সৃজন করেছে। এই রায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের কবর রচিত হয়েছে। দেশবাসী এ প্রতিহিংসার রায় মানবে না ইনশাল্লাহ। এদিকে গতকাল দুপুরে শহরের পাইকপাড়া এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে মহানগর যুবদলের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি জল্লারপাড়া এলাকায় এলে পুলিশ ও র‌্যাব সম্মিলিতভাবে মিছিলটি ধাওয়া করলে নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এ সময় চার নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আক্তার হোসেন খোকন শাহ, নুরুল হক চৌধুরী দিপু, আলামিন, এম আর রাসেলসহ দুই শতাধিক নেতাকর্মী। : কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল পুলিশি বাধার মুখে পন্ড হয়ে গেছে। এ সময় মিছিল থেকে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট জালাল মো. গাউস, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি একেএম রুহুল হোসাইন ও সাংগঠনিক সম্পাদক ইসরাইল মিয়াসহ ১৮ নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে গতকাল জেলা শহরের শহীদী মসজিদ প্রাঙ্গণে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের কয়েক শত নেতাকর্মী জমায়েত হয়। তবে আগে থেকেই বিপুলসংখ্যক পুলিশ ও র‌্যাব মসজিদের আশপাশে অবস্থান নেয়। জুমার নামাজের পর সেখান থেকে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়। মিছিলটি কিছুটা সামনে আগানোর পরই পুলিশ মিছিলে বাধা দেয় এবং এক পর্যায়ে ব্যাপক লাঠিচার্জ শুরু করে। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে মিছিলকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। আটক অন্যান্য নেতাকর্মীর মধ্যে রয়েছেনÑ কিশোরগঞ্জ পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল ইসলাম রুবেল, করিমগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, বৌলাই ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি ফুল মিয়া, ছাত্রদল কর্মী জাকির হোসেন নাঈম, যুবদল কর্মী সুরাফ মিয়া, রফিকুল ইসলাম, ইলিয়াস আলী, মিঠু চৌধুরী, তুষার, মিনহাজ, সুমন, সাগর ও সোহাগ। বাকিদের নাম ও পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।  : খুলনা : ব্যুরো জানায়, খুলনা মহানগর বিএনপি সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জুসহ ২৮ নেতার নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত আরও ৬০-৭০ জনকে আসামি করে নাশকতার মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার খুলনা থানার এসআই সুজিত মিস্ত্রী বাদী হয়ে খুলনা সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় বৃহস্পতিবার আটক হওয়া ১১ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে খুলনা থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, রাস্তা অবরোধ করে জনদুভোর্গ সৃষ্টি, যানবাহন ভাঙচুর এবং পুলিশের কাজে বাধাদানসহ নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে এই মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। তবে তিনি কোনো আসামির নাম প্রকাশ না করলেও বৃহস্পতিবার আটক হওয়া নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজাসহ ১১ জনকে এই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন। এদিকে পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, মামলায় মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জুর নাম রয়েছে। কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ওসি আবু শামা মো. ইকবাল হায়াত বলেন, কর্তব্যরত পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপের পরই পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাতে ব্যবস্থা গ্রহণ করে এবং ধাওয়া দিয়ে কয়েকজনকে আটক করে। : তবে পুলিশের অভিযোগ অস্বীকার করে মিছিলে অংশ নেয়া জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মো. আমীরুজ্জামান বলেন, সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালিয়ে দমন-পীড়ন চালিয়েছে। আমি নিজেসহ অনেক নেতাকর্মী পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছেন। : শেরপুর : শেরপুর প্রতিনিধি জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও অন্য নেতাদের সাজা দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করার প্রস্তুতিকালে গতকাল পুলিশ শেরপুর শহরের শহীদ মিনার চত্বর এলাকা থেকে জেলা বিএনপির সাবেক যৃগ্ম আহ্বায়ক প্রভাষক মামুনুর রশীদ পলাশসহ ৪ নেতাকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত অন্য নেতারা হচ্ছেনÑ মিল্টন, করিম ও ইদ্রিস আলী। জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি মাহমুদল হক রুবেল বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের উদ্যোগ নিয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের মাঠেই আসতে দিচ্ছে না। আমরা কোনো বিশৃঙ্খলা করা তো দূরে থাক আমরা কোনো মিটিং-মিছিলই তো করিনি। প্রতি রাতেই আমাদের নেতাকর্মীদের বাসাবাড়িতে হানা দিচ্ছে পুলিশ। এদিকে শেরপুর সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। তাই তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। : দিনাজপুর : দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে গতকাল দিনাজপুরে জেলা বিএনপি, ছাত্রদল ও যুবদলের এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল পুলিশ ছত্রভঙ্গ করে দেয়। মিছিল থেকে ৩ জনকে গ্রেফতার করে। জুমার নামাজের পর জেলা বিএনপির আহবায়ক রেজওয়ানুল হক ও সাবেক এমপি আকতারুজ্জামান মিয়া, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক লুৎফর রহমান মিন্টুর নেতৃত্বে জেল রোডে এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। কোতোয়ালি থানার ওসি রেদওয়ানুর রহিমের নেতৃত্বে পুলিশ মিছিলটি ছত্রভঙ্গ করে দেয়। মিছিল থেকে ছাত্রদল নেতা সাঈদ আহমেদ, যুবদল নেতা মঞ্জুরুল মোরশেদ সুমন ও মিজানকে আটক করে। মিছিলে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, তরুণ দল, শ্রমিক দল অংশগ্রহণ করে। মিছিলে সেøাগান দেয় ‘জেলের তালা ভাঙবো খালেদা জিয়াকে আনবো, শেখ হাসিনার আস্তানা বাংলাদেশে রাখবো না।’ : চাপরবাড়ী, আলিয়া মাদ্রাসা, বাসস্ট্যান্ড দলীয় কার্যালয়, হবিরবাড়ী এলাকায় পুলিশ মহড়া দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। উল্লিখিত স্থানগুলোতে মিছিলের জন্য নেতাকর্মীরা জড়ো হতে শুরু করেছিল। বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রাক্তন সদস্য ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফখর উদ্দিন আহম্মেদ বাচ্চু শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশি হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। গণমাধ্যমকে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় ফখর উদ্দিন আহম্মেদ বাচ্চু বলেন, সরকার পুলিশ বাহিনী দিয়ে গণমানুষের আবেগ স্তব্ধ করতে পারবে না। সাজানো মামলা এবং ফরমায়েশি রায়ে দেশনেত্রীকে জেলে পাঠানোর ঘটনা দেশবাসীকে শুধু হতবাকই করেনি বাকরুদ্ধ করেছে। তিনি অবিলম্বে আটককৃত দলীয় নেতাকর্মীদের মুক্তি দাবি করেন এবং বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বাসাবাড়ি তল্লাশির নামে হয়রানি বন্ধ করতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান। : ঈশ্বরগঞ্জ: ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের সাজাকে কেন্দ্র করে উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করলে স্থানীয় আ’লীগের একদল কর্মী লাঠিসোঠা নিয়ে মিছিলে অতর্কিত হামলা চালায়। এতে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজেদ বাবুসহ ১০ নেতাকর্মী আহত হন। পরে পুলিশ এসে নাসিরুল্লাহ নামের এক বিএনপি নেতাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ বাদী হয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজেদ বাবুসহ ৩৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে। গ্রেফতার নাসিরুল্লাহকে শুক্রবার দুপুরে ময়মনসিংহ জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। জানা যায়, বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের সাজা হওয়ার সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথেই ঈশ্বরগঞ্জে সর্বত্রই বিক্ষোভে ফেটে পড়ে বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। তারা রাস্তায় বের হয়ে প্রতিবাদ মিছিল করে। এ সময় ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের ওপর মাইজবাগ এলাকায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজেদ বাবুর নেতৃত্বে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করলে স্থানীয় আ’লীগের একদল কর্মী দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোঠা নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ কমপক্ষে ১০ জনকে গুরুতর আহত হন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে বিএনপির নেতাদের ধাওয়া করে সোহাগী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বর্তমান ইউপি সদস্য নাসিরুল্লাহ মেম্বারকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ বাদী হয়ে ১৯০৮-এর ৩ এবং ৪ ধারা এবং বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪ এর ১৫(১)(ক) ধারায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজেদ বাবুসহ ৩৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে। গ্রেফতার নাসিরুল্লাহকে শুক্রবার দুপুরে ময়মনসিংহ জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি জানান, বিএনপির কিছু নেতাকর্মী মিছিলের চেষ্টা করলে স্থানীয় আ’লীগের নেতাকর্মীরা ধাওয়া দিলে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে তিনি জানান, নাছিরুল্লাহ নামের এক বিএনপি নেতাকে আটক করার পর তাকে ময়মনসিংহ জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। : রায়গঞ্জ : রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, রায়গঞ্জে যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ও ইউপি সদস্য আলাউদ্দিনকে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার করেছে রায়গঞ্জ থানাপুলিশ। গ্রেফতারকৃত আলাউদ্দিন সিরাজগঞ্জে রায়গঞ্জ উপজেলার ব্রহ্মগাছা ইউনিয়নের হাসিলহোসেন গ্রামের নূর মোহাম্মদের ছেলে। তিনি ইউনিয়ন যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ও ইউপি সদস্য। বুধবার রাতে হাসিলহোসেন গ্রামের নিজবাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রায়গঞ্জ থানার ওসি মাহবুবুল আলম জানান, আলাউদ্দিনকে গ্রেফতারের সময় ৭টি ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে রায়গঞ্জ থানায় বিস্ফোরক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে মিথ্যা মামলায় জেলহাজতে প্রেরণ করায় তিব্র নিন্দা ও নিঃশর্তে মুক্তির দাবি জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবেক এমপি আব্দুল মান্নান তালুকদার, রায়গঞ্জ উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খাইরুল ইসলাম ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক শামছুল ইসলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান আইনুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ। : সিলেট : সিলেট অফিস জানায়, বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সিলেট নগরীতে কড়া নিরাপত্তায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি। গতকাল শুক্রবার দুপুরে নগরীর দরগাহ গেট থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে চৌহাট্টা পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে কয়েক শ নেতাকর্মী অংশ নেন। গতকাল জুমার নামাজ শেষ হওয়ার পর দলীয় নেতাকর্মীরা দরগাহর প্রধান ফটকের সড়ক থেকে মিছিল শুরু করেন। এ সময় পুলিশ থাকলেও তারা কোনো বাধা দেয়নি। কয়েক শ নেতাকর্মীর মিছিলটি চৌহাট্টা পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় বিভিন্ন সে­াগান দেন তারা। মিছিলে অন্যদের মধ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-ক্ষুদ্রঋণ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি আলহাজ শফি আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম এবং জেলা সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, কয়েস লোদি প্রমুখ অংশ নেন। মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিএনপির সব কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে সিলেট বিএনপি মাঠে থাকবে জানিয়ে আগামীদিনের আন্দোলনে বিএনপি নেতাকর্মীদের অংশ নেয়ার আহবান জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, যে মামলায় ৫ বছর তো দূরের কথা এক সেকেন্ডের সাজা প্রদানের কথা ছিল না সেই মামলায় তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ৫ বছর, দেশনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ১০ বছরের সাজা এবং বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে প্রেরণ আওয়ামী রাজনীতির প্রতিহিংসার নগ্ন বহিঃপ্রকাশ। সরকারের আজ্ঞাবহ ব্যক্তিদের আদালতে বসিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমনের নোংরা রাজনীতি আওয়ামী লীগের চিরাচরিত অভ্যাস। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়াকে মাইনাস করে এদেশে কোনো নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের দুশমন, বাকশালের জন্মদাতা। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করে শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগকে এদেশে রাজনীতির সুযোগ দিয়েছিলেন। শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ ইতিহাসের সাথে গাদ্দারী করেছে। ইতিহাস তাদের কোনোদিন ক্ষমা করবে না। বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখার সাধ্য বাকশালীদের নেই। গণবিস্ফোরণের মাধ্যমেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। : নেত্রকোনা : প্রতিনিধি জানান, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে নেতাকর্মীদের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় পুলিশ নেত্রকোনায় পুলিশ এ্যাসল্ট, বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে ৩ শতাধিক বিএনপির নেতাকর্মীকে আসামি করে পৃথক পৃথক থানায় ৫টি মামলা দায়ের করেছে। এদিকে পুলিশ জেলা সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় নেতাকর্মীদের বাসাবাড়িতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ১৪ নেতাকর্মীকে আটক করেছে। : নেত্রকোনা পৌর এলাকার পারলায় গাড়ি ভাঙচুর ও আগুন দেয়ার ঘটনায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. আনোয়ারুল হককে প্রধান আসামি করে ১০ জনের নাম উল্লেখসহ ৪০ বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার রাতে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অপরদিকে কেন্দুয়া উপজেলায় পুলিশের সাথে  বিএনপির নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশের কাজে বাধা ও পুলিশ এ্যাসল্টের অভিযোগে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ড. মো. রফিকুল ইসলাম হিলালীকে প্রধান আসামি করে ১৪৮ জনের নাম উল্লেখসহ আড়াই শ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার রাতে মামলা করা হয়েছে। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি আমীর তৈমুর ইলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, পারলায় গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের দায়ে পুলিশ বাদী হয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আনোয়ারুল হকসহ ৪০ জনকে আসামি করে বিস্ফোরক আইনে ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। : কেন্দুয়া থানার ওসি সিরাজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, কেন্দুয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি, বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ড. মো. রফিকুল ইসলাম হিলালীসহ প্রায় আড়াই শ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশ এ্যাসল্ট, বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে পৃথক দুটি মামলা করেছে। পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী জানান, বৃহস্পতিবার থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে ১৪ জনকে আটক করেছে। : ভুরুঙ্গামারী: ভুরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে গতকাল শুক্রবার বিএনপির ৭ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেনÑ উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন বাবু, ছাত্রনেতা ফারুক, চরভুরুঙ্গামারী ইউনিয়ন যুবদলের সম্পাদক মজনু, সোনাহাট ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি কবির হোসেন ও গোলাম মোস্তফা ময়নাল, বলদিয়া ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবক দলের সম্পাদক লিটন এবং জয়মনিরহাট ইউনিয়নের মতিয়ার। ওসি তাপস চন্দ্র পন্ডিত জানান, ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসাবে তাদের আটক করা হয়েছে। : শায়েস্তাগঞ্জ : শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আকবর শিপনসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। : শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে শায়েস্তাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়েছে। আরেক ছাত্রদল নেতা আবু হেনা জাহেদ সিদ্দিকী। : এর আগে বৃহস্পতিবার বিকালে শায়েস্তাগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ আহত হলে রাতেই শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করে পুলিশ। শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি নাজিম উদ্দিন আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ এ্যাসল্ট মামলায় তাদের আটক করা হয়েছে। : : বিরল : বিরল (দিনাজপুর) প্রতিনিধি জানান, গতকাল শুক্রবার দুপুরে কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেয়ার পূর্ব মুহূ০র্তে বিরল থানার ওসি আব্দুল মজিদের নেতৃত্বে পুলিশ ফোর্স বিএনপির ৭ জন নেতাকে আটক করেছে। আটকৃতরা হলেনÑ উপজেলা বিএনপি সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সহ-দপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান, পল্লী ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক হাকিম, যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রভাষক আবু তাহের, ছাত্রদলের সভাপতি রোস্তম আলী, বিরল সদর ইউপি বিএনপির সভাপতি রুহুল আমীন ও পলাশবাড়ী ইউপি বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মোকছেদ আলী। জুমার নামাজের পর নেতাকর্মীরা বিরল কাচারী বাজারস্থ দলের অস্থায়ী কার্যালয়ে সমাবেশ করতে এলে পুলিশি বাধায় সেখানে কেউ জমায়েত হতে পারেনি। পরে পুলিশ বিরল পৌরশহরের বকুলতলা মোড় থেকে উপজেলা বিএনপি সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সহ-দপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান, বিরল সদর ইউপি বিএনপির সভাপতি রুহুল আমীন ও পলাশবাড়ী ইউপি বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মোকছেদ আলী, উপজেলা ভূমি অফিসের সম্মুখ থেকে পল্লী ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক হাকিম, বিরল থানার সম্মুখ থেকে যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রভাষক আবু তাহের, ছাত্রদলের সভাপতি রোস্তম আলীকে আটক করে। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে থানার ওসি আব্দুল মজিদ জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হবে। : কলমাকান্দা : কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি জানান, নেত্রকোনা জেলার কলমাকান্দা উপজেলায় শুক্রবার ভোরে কলমাকান্দা থানাপুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে লেংগুড়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুল হকসহ ৪ জনকে আটক করেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সীমান্তবর্তী এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে ভোররাতে চৈতানগর এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে ইউনিয়ন সভাপতি আব্দুল হক (৫০), যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাদির (৪৮), গোড়াগাঁও গ্রামের মো. আলআমিন (৩৫) ও নাজিরপুর ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য মো. সিদ্দিকুর রহমান (৪৬) কে নিজ বাড়ি থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এ বিষয়ে ওসি একেএম মিজানুর রহমান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নাশকতার আশঙ্কায় তাদের আটক করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে আটককৃতদের ২টি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে নেত্রকোনা বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের নির্বাহী কমিটির আইনবিষয়ক সম্পাদক ও বিগত ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নেত্রকোনা-০১ আসন (কলমাকান্দা-দুর্গাপুর) নির্বাচনি এলাকার প্রতিনিধিত্বকারী জননেতা ব্যারিস্টার কায়সার কামাল তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে আটককৃতদের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন। : তারাকান্দা : তারাকান্দা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় সাজানো রায়ের প্রতিবাদে দেশব্যাপী বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল শুক্রবার তারাকান্দায় ময়মনসিংহ (উ.) জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিক্ষোভ মিছিলে বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ (উ.) জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ও তারাকান্দা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন তালুকদার। আরো বক্তব্য রাখেন তারাকান্দা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস ছালাম তালুকদার, ময়মনসিংহ (উ.) জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি জিয়াউর রহমান জিয়া, শাহ আলম, জুয়েল মিয়া, শাহজাহান, আশরাফুল, শরীফ প্রমুখ। এদিকে তারাকান্দা উপজেলা ছাত্রদল নেতা মির্জা পলাশ বেগকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। : কেন্দুয়া : (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি জানান, নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় ৫৬৯ জন বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে থানায় পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করেছে কেন্দুয়া থানাপুলিশ। বৃহস্পতিবার আদালত থেকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলার রায় ঘোষণার পরপরই কেন্দুয়া-চিরাং সড়কের বাট্টা কাচারী মোড়ে বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা ড. রফিকুল ইসলাম হিলালীর নেতৃত্বে বিএনপি নেতাকর্মীরা সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ জানানো চেষ্টা চালায়। এ সময় কেন্দুয়া থানা পুলিশ বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ৩১ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১১ রাউন্ড টিয়ারশেল ছুড়ে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ সময় ৩ পুলিশসহ ছাত্রদল নেতা ইউসুফ, সাইফুল, আবুল হোসেনসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন। এছাড়া একই সময়ে উপজেলা বেখৈরহাটি বাজারে ইউনিয়ন বিএনপি নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ মিছিল করতে চাইলে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। এ ঘটনার পর কেন্দুয়া থানাপুলিশ ৫৬৯ বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ৩টি মামলা দায়ের হয়েছে। কেন্দুয়া থানার এসআই নুরুল আমীন বাদী হয়ে দ্রুত বিচার ও





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মন্ত্রীদের বক্তব্যের সঙ্গে রায়ের হুবহু মিল রয়েছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7016 জন