খালেদা জিয়াকে সাধারণ কয়েদীর মতো রাখা হয়েছে
সরকারের মন্ত্রীদের বক্তব্যের সঙ্গে রায়ের হুবহু মিল রয়েছে : রিজভী
Published : Saturday, 10 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 09.02.2018 11:10:20 PM
দিনকাল রিপোর্ট : সরকারের প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশস্বরূপ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এই প্রতিহিংসার শেষ কবে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের কোনো ষড়যন্ত্র কাজে আসবে না। বেগম খালেদা জিয়াকে জেলখানায় সাধারণ কয়েদির মতো রাখা হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমে জানতে পেরেছি। তিনবারের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এমন আচরণ কেন? বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে আমরা কোনো যোগাযোগ করতে পারছি না। : গতকাল শুক্রবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। : রিজভী বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের কথিত দুর্নীতি মামলায় দেশের প্রধান বিরোধী দলের নেত্রী ও তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গত বৃহস্পতিবার ৫ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে : সরকারের বিশেষ একটি আদালত। এ মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার জেল হবে, তাঁকে কারাগারে যেতে হবেই এমন কথা সরকারের মন্ত্রী-এমপি ও সরকারদলীয় নেতারা বিগত ২ বছর ধরেই বলে আসছেন। গত বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণার পরও দেখা গেছে, সরকারের মন্ত্রীদের দেয়া বক্তব্যের সঙ্গে বিচারক ড. আখতারুজ্জামানের আদালতের রায়ের হুবহু মিল রয়েছে। : তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা সাজানো মামলায় সাজা দেয়ার ঘটনায় নিন্দার ঝড় বইছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলসহ দেশের সাধারণ মানুষ বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যে রায় দেয়া হয়েছে ঘৃণাভরে তা প্রত্যাখ্যান করেছে। উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ, হিউম্যান রাইটস ওয়াচসহ বিভিন্ন সংগঠন। সরকারপ্রধান সম্পূর্ণ প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে কেবলমাত্র আদালতকে ব্যবহার করে নয় সমস্ত রাষ্ট্রশক্তিকে ব্যবহার করে বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রায় দেয়া হয়েছে। কারাবন্দি করা হয়েছে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অবিসংবাদিত নেত্রী বেগম জিয়াকে। : বিএনপির এই নেতা বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সাজা দিয়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করেছেন প্রধানমন্ত্রী। আপনারা দেখেছেন গত কয়েকদিন ধরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিভাবে সারাদেশের মানুষকে জিম্মি করে, গ্রেফতার করে নির্যাতন করে গুলি চালিয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরিশালে জনসভায় দাম্ভিকতার সঙ্গে বলেছেনÑ কোথায় আজ খালেদা জিয়া। তার এই বক্তব্যে মনে হয়েছে, বেগম জিয়াকে কারাগারে ঢুকিয়ে তিনি আত্মতৃপ্তি পেয়েছেন। তার বক্তব্যে উল্লাসের সুর ধ্বনিত হয়েছে। প্রতিহিংসার বিচারে সারাদেশ যখন বিষণœ বেদনায় মুষড়ে পড়েছে তখন প্রধানমন্ত্রীর উল্লাসে সুষ্পষ্টভাবে প্রমাণিত হয়, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যে রায় দেয়া হয়েছে সেটি ফরমায়েশি রায়। : সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা কতটা প্রতিশোধপরায়ণ এর আগেও আপনারা দেখেছেন। বেগম খালেদা জিয়াকে এক কাপড়ে কিভাবে তার স্বামীর স্মৃতিবিজড়িত বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করেছে। কিভাবে বালুর ট্রাক দিয়ে বারবার তাকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছিল। এ সরকারের মানসিক নির্যাতনে অকালে ঝরে গেল তাঁর ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বৈতরণী পার করতেই শেখ হাসিনা বেগম জিয়া, তার পরিবার ও বিএনপির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। প্রতিহিংসার জাল ছড়িয়ে দিয়েছেন। কিন্তু যত জেল, জুলুম, নির্যাতন, গুম, খুন করেন না কেন বাংলাদেশের জনগণের কাছে আপনার স্বরূপ উন্মোচিত হয়ে গেছে। কোনো ফর্মুলাতেই আপনার মসনদ রক্ষা করতে পারবেন না। সারাদেশের মানুষ আজ জেগে উঠেছে। দেখেননি চারদিকে আওয়ামী লীগের সশস্ত্র মহড়া, পুলিশের গুলি, ব্যারিকেড, তান্ডব উপেক্ষা করে গতকাল রাজধানীবাসী বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে যোগ দিয়েছিল। জনগণের প্রতিরোধেই শেখ হাসিনা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে বাধ্য হবেন। : গ্রেফতারের চিত্র তুলে ধরে রিজভী বলেন, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাজিব আহসান গ্রেফতার। বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য খালেদা ইয়াসমিন গ্রেফতার। তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জাসাস সহ-সভাপতি সাহারিয়া ইসলাম শায়লাকেও পুলিশ লাঠিপেটা করে পা ভেঙে দিয়েছে। : ঢাকা মহানগর : ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতা আইনুল ইসলাম চঞ্চল, মো. দেলোয়ার হোসেন, মো. কাজল, মো. রফিক, মো. শাহজালাল, আব্দুল জাব্বারসহ ২৫ জনের অধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের লাঠিচার্জে ৩০ জনের অধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। শাহবাগ থানা পুলিশ শহীদুল্লাহ হল থেকে রীনা নুর, ফয়জুন নাহার মনি ও তাদের ড্রাইভার চুন্নু মিয়াকে গ্রেফতার করেছে। সবুজবাগ থানা বিএনপি নেতা শ্যামল গ্রেফতার করেছে। রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এস এম সায়েমকে বাসায় না পেয়ে তার স্ত্রী এবং সায়েমের ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে বাসা থেকে গতরাতে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। কামরাঙ্গীরচর থানা বিএনপির নেতা গুরুতর আহত। তিনি এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বিএনপি নেতা সানজানা চৈতী পপিকে ডিবি পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পুলিশ লাঠিচার্জে তার একটি পা ভেঙে দিয়েছে। ছাত্রদল নেতা রাজ্জাক সিদ্দিক, মীর মাহমুদুল ফয়সাল আহমেদ, রুবেল দেওয়ান, কামরুল দেওয়ান, আবদুল রায়হান গ্রেফতার।  যুবদল নেতা শরিফুল, ফরিদুল ইসলাম, খোরশেদ আলম, মিজানুর রহমান, নিজামুল ইসলাম, জনি, নাজমুল, অপু, মামুদুর রশিদ গ্রেফতার। : ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি নেতা মো. বাবুল, মো. হোসেন, মো. স্বপন, মো. সবুজ, মো. সাইদুর রহমান মিন্টুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আহত হয়েছেন মো. শামীম, মো. রনি, মো. পলাশ, আব্দুর রশিদ, মো. হাবিব, হযরত আলী, মো. সোহেল, মো. আশরাফ, মো. রুবেল, মো. রহমত উল্লাহ, মো. হানিফ, মো. পারভেজ, মো. শাহাজালাল, মো. হৃদয়, মো. অপু, মো. বিল্লাল, মো. কবির, মো. বাবু, মো. জহির, মো. জুয়েল, মো. কামাল, মো. মজিদ, মো. জহির প্রমুখ। : গাইবান্ধা জেলা : জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুন নবী টিটুল, সদর পৌর বিএনপির উপদেষ্টা খন্দকার আহাদ আহমেদ, জেলা ছাত্রদল সভাপতি খন্দকার জাকারিয়া আলম জীম, সিনিয়র সহ-সভাপতি রাজিউল আলম রনি, যুগ্ম স¤পাদক শাহিদুজ্জামান শাহিন, ইমাম হাসান আলাল, আশরাফুল, রায়হান, পৌর বিএনপি নেতা উৎপল, তালুকদার বাবু, মহিলা দল নেত্রী দিলরুবা পারভীন ঝর্ণা, তমা, লাইলী, যুবদল সদর পৌর সভাপতি উৎপল, সদস্য শাহীনসহ অন্তত ২০ জন গ্রেফতার। হামলায় আহত হন ঝর্ণা মান্নানসহ অর্ধশতাধিক। গোবিন্দগঞ্জ পৌর ছাত্রদল আহ্বায়ক আব্দুল মতিন গ্রেফতার। : নোয়াখালী জেলা : মিছিলে গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এতে আহত হন যুবদল নেতা রবেল, সুমন, শামীম, ছাত্রদল নেতা করিম উদ্দিন, ইফতেখার নাহিদ, টিপু সুলতান। আইনজীবীদের মিছিলে পুলিশের হামলায় আহত অ্যাড. নিজাম উদ্দিন, অ্যাড. মুজিবুর রহমান, অ্যাড. আ. মালেক, অ্যাড. সরোয়ার উদ্দিন দিদার। : রংপুর : মহানগর বিএনপি প্রচার সম্পাদক সেলিম চৌধুরী, সহ-দফতর সম্পাদক আবু আলী মিঠু, স্বেচ্ছাসেবক দলের লিখন, মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক সুজন, প্রচার সম্পাদক তমাল, স্বেচ্ছাসেবক দল সদস্য বাবু, জেলা যুবদল সদস্য ডিনার, শফিকুল, মোশাররফ গ্রেফতার। : নীলফামারী : ছাত্রদল জেলা সাধারণ সম্পাদক মারুফ পারভেজ প্রিন্স, সদর উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম দোলন, সদর উপজেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফ, জেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান রিপন গ্রেফতার। : কুড়িগ্রাম :  উলিপুর উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুর রাজ্জাক চেয়ারম্যান, পৌর যুবদল সদস্য ময়নুল ইসলাম, উপজেলা দুর্গাপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সহদর, হাতিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি মতিয়ার বিএসসি গ্রেফতার। : রাজশাহী জেলা : তাহেরপুর পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আমজাদ হোসেন মন্ডলকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। : রাঙ্গামাটি জেলা : জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু সাদাৎ মো. সায়েমসহ ৫ জন গ্রেফতার । : নারায়ণগঞ্জ জেলা : জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মমিনুল এবং নূর আলমকে রাজধানীর মগবাজার থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। : শেরপুর জেলা : জেলা বিএনপির নেতা ফজলুর রহমান তারাসহ ৭ জনের অধিক নেতাকর্মী গ্রেফতার।  : মুন্সিগঞ্জ জেলা :  সিরাজদিখান উপজেলার জেনশার ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি নাজিম উদ্দিন, উপজেলা যুবদল সভাপতি আবদুর রহমান রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম হোসেন, বিএনপি কর্মী রানা গ্রেফতার। : চট্টগ্রাম মহানগর : মহানগর ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য মোশারফ হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। : নেত্রকোনা জেলা : কেন্দুয়া উপজেলায় পুলিশের গুলিতে ৭ জন নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। : পঞ্চগড় জেলা : ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান বাবু, সদর থানা বিএনপির নেতা আবু দাউদ ডোনার, সদর থানা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান মানিক, পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক শামীম আজাদ শাওন, সদর থানা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মওদুদ আহমেদকে পুলিশ গতকাল গ্রেফতার করেছে। এছাড়া ১৫-২০ জন নেতাকর্মী পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছে। : রিজভী বলেন, আমি দলের পক্ষ থেকে গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহার ও তাদের নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। আহত নেতাকর্মীদের আশু সুস্থতা কামনা করছি। গতকাল শান্তিপূর্ণ মিছিল থেকে ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব আহসানকে গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, গত কয়েকদিনে বিএনপির প্রায় ৩ হাজার ৭০০ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। : সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, সহ-দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মন্ত্রীদের বক্তব্যের সঙ্গে রায়ের হুবহু মিল রয়েছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
7049 জন