কারাগার থেকে ফিরে আইনজীবীদের প্রেস ব্রিফিং
খালেদা জিয়াকে সাধারণ কয়েদির মতো নির্জন সেলে রাখা হয়েছে
Published : Sunday, 11 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 10.02.2018 11:15:07 PM
খালেদা জিয়াকে সাধারণ কয়েদির মতো নির্জন সেলে রাখা হয়েছেদিনকাল রিপোর্ট : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে কোনো ডিভিশন দেয়া হয়নি। তাঁকে সাধারণ কয়েদি হিসেবে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। তিনি বলেন, রবিবার রায়ের সত্যায়িত কপি পাওয়ার চেষ্টা করব। সোম অথবা মঙ্গলবার আপিল আবেদন নিয়ে আদালতে যাব। সাক্ষাতের সময় জেলার এবং গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যরা সার্বক্ষণিক উপস্থিত ছিলেন বলে জানিয়েছেন ব্যারিস্টার মওদুদ। : গতকাল শনিবার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ অভিযোগ করেন। পাঁচ সদস্যের আইনজীবী দল খালেদা জিয়ার সঙ্গে প্রায় এক ঘন্টা কথা বলেন। সাক্ষাৎ শেষে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, খালেদা জিয়ার মনোবল ঠিক আছে, তাকে একজন সাধারণ বন্দি হিসেবে রাখা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার আইনজীবী ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, অ্যাডভোকেট আবদুর রেজাক খান, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী। : মওদুদ আরো বলেন, বেগম খালেদা জিয়া সাবেক সংসদ সদস্য, সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং একটি দলের প্রধান। কিন্তু তাঁকে কোনো ডিভিশন দেয়া হয়নি। বিএনপি নেতা আরো বলেন, পরিচারিকা ফাতেমাকেও বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে থাকার অনুমতি দেয়া হয়নি। এছাড়া সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে অখাদ্য খেতে দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। : মওদুদ আহমদ বলেন, তার দলের নেত্রীকে নির্জন কারাগারে রাখা হয়েছে, যা আইন ও সংবিধান পরিপন্থী। রায়ের সার্টিফায়েড কপি হাতে পেলে আগামী সোমবার বা মঙ্গলবার উচ্চ আদালতে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানান তিনি। এর আগে বিকেলে ৪টা ২৫ মিনিটে পাঁচ আইনজীবী কারাগারে প্রবেশ করেন। : তিনি বলেন, কারা কোড অনুযায়ী তিনি ডিভিশন পাওয়ার যোগ্য, তিনটি যোগ্যতায় তিনি ডিভিশন পান। কিন্তু বাইরে প্রপাগান্ডা চালানো হচ্ছে তাকে ডিভিশন দেয়া হয়েছে, কাজের মেয়েকে দেয়া হয়েছে। কাজের মেয়েকে দেয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছিল। কোর্ট আদেশও দিয়েছেন। বেগম খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন এই গৃহপরিচারিকার সহযোগিতা নিয়ে চলছেন। তার ওষুধপত্র সেবনসহ দৈনন্দিন কাজে তার সহযোগিতা নিয়ে চলেন। অথচ তাকে ডিভিশন না দিয়ে নির্জন কারাগারে রাখা হয়েছে। ভাঙা পরিত্যক্ত বাড়িতে সুযোগ-সুবিধা ছাড়া জনমানবহীন রাখা হয়েছে, যা একেবারে সংবিধান পরিপন্থী। আমরা এ নিয়ে আদালতে যাব। এক্ষেত্রে সরকারেরও ভূমিকা আছে। আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়েও যাব। : গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণা করেন বিশেষ আদালতের বিচারক ডা. মো. আখতারুজ্জামান। রায়ে তিনি বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদন্ড দেন। এছাড়া বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদন্ড এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়। রায় ঘোষণার পরপরই বেগম খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। : এদিকে গতকাল শনিবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে নির্জন কারাবাসে রাখা হয়েছে। সেখানে স্বাভাবিক পরিস্থিতি বিরাজ করছে না। একটি পরিত্যক্ত ভবনে তাঁকে রাখা হয়েছে। সেখানে  কোনো মানুষ নেই, অন্য আসামিও নেই। যেভাবে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্তদের নির্জন কারাবাসে রাখা হয়, সেভাবেই তাঁকে রাখা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছিল বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম। : ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, যত দ্রুত সম্ভব বেগম খালেদা জিয়াকে নির্জন কারাবাস থেকে স্বাভাবিক কারাগারে রাখা এবং সেখানে তাকে সব সুযোগ-সুবিধা প্রদান করতে সরকারের কাছে দাবি জানাব। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সংগ্রাম অব্যাহত রাখা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে জনগণ এই মিথ্যা মামলার জবাব দেবে। : সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সুপ্রিম কোর্ট শাখার সভাপতি ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, ফোরামের সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল প্রমুখ। : লেদা জিয়াকে সাধারণ কয়েদির মতো নির্জন সেলে রাখা হয়েছে : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

ভারতীয় গণমাধ্যম বলেছে, এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে আ’লীগ হেরে যাবে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
4982 জন