প্রতিবাদে উত্তাল সারাদেশ
বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি
Published : Sunday, 11 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 10.02.2018 11:14:42 PM
প্রতিবাদে উত্তাল সারাদেশদিনকাল রিপোর্ট : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভুয়া ও জাল নথির মাধ্যমে সাজানো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় আদালত কর্তৃক সাজা প্রদানের প্রতিবাদে ও প্রিয় নেত্রীর মুক্তির দাবিতে বিএনপির উদ্যোগে রাজপথে বিক্ষোভে মানুষের ঢল নামে। গতকাল শনিবার ঢাকাসহ সারা দেশে পুলিশি হামলা, মামলা, লাঠি চার্জ  আটক উপেক্ষা করে বিএনপির নেতাকর্মীরা এ বিক্ষোভ মিছিল পালন করে। : রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ : আটক : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা রায়ের প্রতিবাদে গতকাল শনিবার রাজধানীর বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে একটি বিশাল মিছিল ফকিরাপুল হয়ে নয়া পল্টনের দিকে আসতে থাকে। এ সময় পুলিশ মিছিলে ধাওয়া দিয়ে বিএনপির কয়েকজনকে নেতাকর্মীকে আটক করে। এ বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক। এছাড়াও  মিছিলে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক  শহীদুল ইসলাম বাবুল,  আব্দুল আউয়াল খান, হারুনুর রশীদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আ ক ম মোজাম্মেল হক, সালাহ উদ্দিন ভূইয়া শিশির, মোস্তফা খান সফরী, শেখ রবিউল আলম রবি, যুবদলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম নিরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাদরেজ জামান, যুবদল দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহীন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা এসএম জিলানী, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন, ভারপাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, সহ সভাপতি আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, ইকতিয়ার কবির, আফরোজা খানম নাছরিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সোহাগ, মিয়া মোহাম্মাদ রাসেল, কাজী মোখতার হোসেনসহ বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনে নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। : বেলা ১টা ২০ মিনিটে আজাদ প্রোডাক্টসের গলি থেকে কয়েক হাজার নেতা-কর্মী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে শ্লোগান দিতে দিতে দৈনিক বাংলার কাছে আসে। মিছিলটি ফকিরের পুল পানি ট্যাংকের কাছে আরো কয়েক হাজার নেতা-কর্মী যুক্ত হয়ে বিশাল আকার করে। নেতা-কর্মীদের মধ্যে থেকে মির্জা আব্বাস ও বরকত উল্লাহ বুলু মিছিলে অগ্রভাগে চলে আসেন। মিছিলটি পানির ট্যাংক অতিক্রম করে ২০ গজ পেরুনোর পর বেলা ১টা ৩০ মিনিটে পুলিশ পেছন দিক থেকে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। হাজার হাজার নেতা-কর্মী বিভিন্ন গলিতে ছুটে পালাতে থাকে। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য ওই সব গলি কয়েকজন লাঠিপেটা করে আটক করে। : এদিকে আরেকটি মিছিল বিজয় নগর পানি ট্যাংকের সামনে থেকে নাইটেঙ্গেল মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ। মিছিল থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি নবী উল্লাহ নবীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।   : ঢাকা মহানগর দক্ষিণের অন্তর্গত উত্তরা থানা বিএনপির বিক্ষোভ : বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার মিথ্যা রায়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ঢাকা মহানগর বৃহত্তর উত্তরা থানা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠন। গতকাল শনিবার হাউজ বিল্ডিং মাসকট প্লাজা হতে ১১ নম্বর সেক্টর চৌরাস্তা পর্যন্ত এ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।  মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন, আতিকুর রহমান আতিক, ইসমাইল হোসেন, দেওয়ান মো. নাজিম উদ্দিন, মোস্তফা জামান, মশিউর রহমান মতি, আব্দুস সালাম, হাফিজুর রহমান, সাগর, শিহাব আহমেদ, এস এম নুরুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন, আনোয়ার জাহিদ, শাহীন মোল্লা, মো. নজরুল ইসলাম, জাহিদুল ইসলাম সেলিম, মাজহারুল ইসলাম, জহির উদ্দিন রাজু, মো. আজম হোসেন, রিয়াদ সরদার হীরা, জিয়াউর রহমান লিটন, আকরাম হোসেনসহ বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। : ছাত্রদলের বিক্ষোভ : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি ও তারেক রহমানসহ সকলের বিরুদ্ধে সাজার রায়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। গতকাল বিক্ষোভ মিছিল সকাল ৯টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন কাঁটাবন থেকে নীলক্ষেত অভিমুখে অনুষ্ঠিত হয়। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আলমগীর হাসান সোহান ও যুগ্ম সম্পাদক ওমর ফারুক মুন্নার নেতৃত্বে মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মির্জা ইয়াসীন আলী, সহ-সাধারণ সম্পাদক রাজিব আহসান চৌধুরী পাপ্পু, শিক্ষা ও পাঠ চক্র সম্পাদক আবু ফয়সাল জিহাদ, জাহাঙ্গীর আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আমিনুর রহমান আমিন, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান হাফিজ, ছাত্রনেতা রমিজ হায়দার, সহ-সাধারণ সম্পাদক মুতাসিম বিল্লাহ, সহ-সাংগঠনিক হারুনুজ্জামান, এফ রহমান হলের আহবায়ক আক্তারজ্জামান, ফারুক হোসেন, সাদ্দাম হোসেন, জিয়া হলের যুগ্ম আহবায়ক জিহাদুল ইসলাম রন্জু। মুহসিন হলের যুগ্ম আহবায়ক মিনহাজ আহমেদ প্রিন্স, মুজিব হলের যুগ্ম আহবায়ক সাদ্দাম হোসেন, জহুরুল হক হলের যুগ্ম আহবায়ক রিয়াদ রহমান, এস এম হলের যুগ্ম আহবায়ক রাজু আহমেদ। ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো শকিল আহমেদ রানা, নয়ন সহ-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ, সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক মিল্লাত, শাকিল, জিয়াউর রহমান, সহ-সম্পাদক শাহ আলম, সদস্য মুনজুর। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি সাইফ খান মিজান, তিতুমীর কলেজ ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ। বেসরকারি বিশ্ববিদালয় ছাত্রদলের জিএম রাকিব, সোহেল। কক্সবাজার জেলা ছাত্রদলের সহ-সাধারণ সম্পাদক রিফাত খান। ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ফেরদাউস, সহ-সম্পাদক আনিস, বনানী থানা ছাত্রদল নিবীর মাহমুদ নুর। ঢাকা মহানগর ছাত্রদল পূর্বের সুমন, সালাম, নান্নু, আব্দুল্লাহ, উজ্জল, মানিক, আকাশ, মেহেদি, রুবেল, রানা, ফয়সাল, শানি, শরিফ, রানা মোল্লা, শফিক, জায়েদ, রাজন, নিউমার্কেট থানা ছাত্রদলের আসিফ, শাহিন, সুমন, শিবু, সজিব, রাইহান, রাসেল, শাহ আলম, রকিব, ইয়াকুব, রুবেল, সোহেল, নাহিদ, শরিফ। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রদল শ্যামপুর থানা ছাত্রদলের ইমন, যাত্রাবাড়ী থানা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক শামিম, কদমতলি থানা ছাত্রদলেরর শফিকুর রহমান দারাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। : ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের বিক্ষোভ : বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ছাত্রদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম মিজানুর রহমান রাজের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার কাওরানবাজার একুশে টিভি ভবনের সামনে থেকে এফডিসির মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সহ-সভাপতি সফিকুল ইসলাম রানা, মোঃ মোস্তাফিজ বাবু, দফতর সম্পাদক তানভীর আহম্মেদ খান ইকরামসহ ঢাকা মহানগর উত্তরের আওতাধীন বিভিন্ন থানা, কলেজ, ওয়ার্ডসহ ঢাকা মহানগর উত্তরের শতাধিক নেতাকর্মী। : গাজীপুর : কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন সেলিমের নেতৃত্বে গাজীপুর চৌরাস্তা এলাকায় জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলে আরও অংশ নেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কুতুব উদ্দিন চেয়ারম্যান, যুবদল নেতা তাজুল ইসলাম রাকিব, ছাত্রদল নেতা বেলায়েত হোসেন ভূইয়া, বিএনপি নেতা এমরান ইসলাম, যুবদল নেতা আশরাফুল হোসেন সিকদারসহ নেতৃবৃন্দ। : রাজশাহী মহানগর বিএনপির প্রতিবাদ সভা : রাজশাহী মহানগর বিএনপি আয়োজিত বিএনপি চেয়ারপারসন, তিনবারের সফল সাবেক প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্র উদ্ধারে আপোসহীন দেশনেত্রী, অধিকার বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের লড়াকু সৈনিক বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অবৈধ ও ষড়যন্ত্রমূলক সাজা প্রদানের প্রতিবাদে সমাবেশ ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় নগরীর মালোপাড়াস্থ বিএনপি অফিসের সামনে প্রধান সড়কে সমাবেশে বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, মহানগর বিএনপির সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাগমারা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল গফুর, সংরক্ষিত বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিন শওকত, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সহিদুন্নাহার কাজি হেনা, সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি জাহান পান্না ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী সমিতি রাজশাহীর সভাপতি এরশাদ আলী ঈশা। অন্যদের মধ্যে বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, রাজপাড়া থানা বিএনপির সভাপতি শওকত আলী, মতিহার থানা বিএনপির সভাপতি আনসার আলী, শাহমুখদম থানা বিএনপির সভাপতি মনিরুজ্জামান শরীফ, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মিলু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, শাহমখদুম থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসুদ, মতিহার থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক খাজদার আলী, রাজপাড়া যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদ আলম, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন দিলদার, শাহমখদুম থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ বাবু, রাজপাড়া থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মুরাদ পারভেজ পিন্টু। আরো উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক নেতা ওয়ালিউল হক রানা, রাজশাহী মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, মহানগর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হাসনাইল হিকল, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সমাপ্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান টিটু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়কবৃন্দ জাকির হোসেন রিমন, আখতার হোসেন, মহানগর রিপন, পরাগ, আব্দুল ওয়াদুদ বাবলু আনন্দ কুমার, রাজশাহী মহানগর তাঁতী দলের সভাপতি আরিফুল শেখ বনি, সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, রাজশাহী মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহ্বায়িকাবৃন্দ অ্যাডভোকেট রওশন আরা পপি, অধ্যাপিকা সখিনা খাতুন, নুরুন্নাহার বেগম, জরিনা বেগম, মুসলেমা বেলী, রোজী, পুতুল, শিখা, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইলিয়াস বিন কাসেম, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোর্তজা ফামিমসহ রাজশাহী মহানগর বিএনপির ৩৭টি ওয়ার্ডের সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। : প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি নেতা মিনু বলেন, আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে গোয়েন্দা সংস্থা জরিপ করে দেখেছে নির্বাচন সুষ্ঠু হলে আওয়ামী লীগ ৩০টির অধিক সিট পাবে না। এই রিপোর্ট পাওয়ার পরে ফ্যাসিস্ট, দুর্নীতিবাজ এই সরকারের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী ভীত সন্ত্রষ্ট হয়ে নির্বাচন থেকে বিএনপিকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য এই মিথ্যা মামলার রায় এবং সাজা দিয়েছে বেগম খালেদা জিয়া ও তার সন্তান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বলে তিনি জানান। বাংলার জনগণ বেগম খালেদা জিয়াকে জেলের তালা ভেঙ্গে বের করে নিয়ে আসবেন। মিথ্যা মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে জেল দেয়ার বাংলাদেশসহ বিশে^ এখন আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন বেগম খালেদা জিয়া বলে তিনি বক্তৃতায় উল্লেখ করেন। মিনু বলেন, ডিজিটালের নামে কোটি কোটি টাকা লোপাট হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তার কোনো বিচার বাংলাদেশের হচ্ছে না। : সভাপতি বুলবুল বলেন, বাংলাদেশের সুষ্ঠু রাজনীতি করার জন্য মেধাবী রাজনীতিবিদ তৈরিতে এই শিক্ষামন্ত্রী বাধা প্রদান করছেন। তিনি শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন। এছাড়াও বিচার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করার জন্য সিনিয়র বিচারপতিদের বাদ দিয়ে জুনিয়র বিচারপতিকে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ করেছে। সরকার একের পর এক দুর্নীতি করেই চলছে। বুলবুল দুদককে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, খালেদা জিয়ার কোনো দুর্নীতি নাই। তিনি অনতিবিলম্বে বিএনপিসহ এর অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ওপর চাপানো মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান। সেইসাথে তিনি শেখ হাসিনার পতনের জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান। : বিএনপি নেতা মিলন বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়ায় বাংলার মানুষের রক্তক্ষরণ হচ্ছে। প্রতিটি মানুষ ব্যথায় কাতর হয়ে পড়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ৯ বছর আন্দোলন করে গণতন্ত্র রক্ষা করেছেন। স্বৈরাচারী এরশাদের পতন ঘটিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী হন। কিন্তু খুনি শেখ হাসিনা স্বৈরাচার পতনের আন্দোলনে এরশাদের সাথে আঁতাত করে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে বাংলাদেশের মানুষের সাথে বেঈমানি করেছিলেন। সেই বেঈমান ও দুর্নীতিবাজ বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার স্বার্থ হাসিল করার জন্য মিথ্যা মামলা সাজিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠিয়েছেন। বেগম খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা দেখে এই সরকার হিংসাপরায়ণ হয়ে পড়েছে। তিনি এই বেঈমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পতনের ডাক দিয়ে বক্তব্য শেষ করেন। : বেলকুচিতে খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল : ১০ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবিতে বেলকুচি উপজেলায় বিএনপি, পৌর বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল করেছে। গতকাল শনিবার বিকালে বেলকুচি উপজেলার তামাই বাজারে কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীমের উপস্থিতিতে খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। : বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে আমিরুল ইসলাম খান আলীম বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে সরকার ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজানো রায়ে ৫ বছরের জেল দিয়েছে। এ রায় বিএনপি প্রত্যাখ্যান করেছে। সেই সাথে দেশনেত্রীর কারামুক্তি না হওয়া পর্যন্ত নেতাকর্মীদের যার যার অবস্থান থেকে আন্দোলন-সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে। এ সময় বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা গোলাম আযম, আব্দুস সামাদ সরকার, মনোয়ার চৌধুরী বাবু, বনী আমীন, মজনু খান, হাফেজ শাহীন, মুক্তার, আলম কমিশনার, রাজ আলী, নূর আলম, সালাম মুন্সি, কিবরিয়া, রাজিব আহসান, জামাল বেপারী, রেজাউল, মোস্তফা, নূর আলম, রহিজ, জাহিদ, ফিরোজসহ ছাত্রদল, যুবদল ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী। : ভোলাহাটে বিএনপির প্রতিবাদ সভা : ভোলাহাট (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি ভোলাহাট উপজেলা শাখা পূর্ব ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বেগম খালেদা জিয়ার রায়ের বিরুদ্ধে গতকাল শনিবার বিকেলে মেডিকেল মোড় নিজস্ব কার্যালয়ে প্রতিবাদ সভা করে। উপজেলা বিএনপি শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি মাতাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় মোবাইলে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিল্পপতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপি শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা সহ-সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান প্রভাষক আনোয়ারুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক চুটু, জেলা সহ- সংগঠনিক সম্পাদক ভোলাহাট সদর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াজদানী জর্জ, উপজেলা বিএনপি সহ-সভাপতি ও গোহালবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আল-হেলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক কাউসারুল ইসলাম রন্জু, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা নেত্রী রেশমাতুল আরশ রেখা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক মিজানুর রহমান, যুবদল উপজেলা শাখার সভাপতি বেলালউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মন্সুর আলী, সাবেক ছাত্রদল নেতা মনিরুল ইসলাম, ছাত্রদল উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কায়সার আহমেদ ও মহিলা নেত্রী শাহানাজ খাতুনসহ অন্যরা। এ সময় দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জেলে আটক থাকায় আবেগ আপ্লুত হয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন নেতাকর্মীরা। : ফরিদগঞ্জে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের প্রতিবাদ মিছিল : ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি (চাঁদপুর) জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন, ৩ বারের নির্বাচিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়ার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে গতকাল ফরিদঞ্জে উপজেলা, পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশি বাধা অতিক্রম করে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিলটি চান্দ্রা-গল্লাক প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে ইসলামপুর বাজারে এসে শেষ হয়। : প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ব্যাংকিং ও রাজস্ব বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক এমপি লায়ন মোঃ হারুনুর রশিদের পক্ষ থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হীন উদ্দেশ্যে কথিত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় ৫ বছর এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের ১০ বছর সাজা দেয়ার প্রতিবাদে নিন্দা জানান। এ সময় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের বহু নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। : : : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

ভারতীয় গণমাধ্যম বলেছে, এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে আ’লীগ হেরে যাবে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
4971 জন