বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যুক্তরাজ্য বিএনপির বিােভ
Published : Monday, 12 February, 2018 at 12:00 AM
বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যুক্তরাজ্য বিএনপির বিােভলন্ডন প্রতিনিধি, দিনকাল : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লন্ডনের রাজপথে গত শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিােভ মিছিল করেছেন যুক্তরাজ্য বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শুক্রবার বাদজুমা পূর্ব লন্ডনের আলতাব আলী পার্কে মানববন্ধন থেকে ব্রিকলেইন ও আশপাশের রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিল করেন বিএনপি সমর্থকরা। : মানববন্ধন ও মিছিল শেষে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদের পরিচালনায় আলতাব আলী পার্কে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা এই রায়কে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত প্রতিহিংসামূলক উল্লেখ করে রায়কে দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করে অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন। তারা বলেন, শেখ হাসিনার তাঁবেদার আজ্ঞাবহ আদালতের এই রায় গণতন্ত্র ধ্বংস করার রায়। এই রায় একদলীয় বাকশালী আওয়ামী লীগের মতা দীর্ঘস্থায়ী করার রায়। তারা বলেন, আদালতে বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা প্রমাণ করেছিলেন যে, তিনি এই মামলায় কোনোভাবেই জড়িত নন এবং কোনো টাকাই আত্মসাৎ করা হয়নি, কারণ এসব টাকা এখনো ব্যাংকের হিসাবেই জমা রয়েছে। বাংলাদেশে ন্যায়বিচার থাকলে আদালতে ম্যাডাম খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের উত্থাপিত যুক্তিতর্কে তিনি বেকসুর খালাস পাওয়ার কথা। কিন্তু খালাস দেয়ার পরিবর্তে সাজা দিয়ে জেলে প্রেরণ করা হয়েছে। এ রায় আমাদের কাছে সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিত ও অনাকাক্সিত। দেশের আপামর জনসাধারণের মতো আমরাও মনে করি এই মামলা ছিল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে করা এবং এই মামলার মাধ্যমে বেগম জিয়া এবং বিএনপিকে আগামী নির্বাচনের বাইরে রাখার অপচেষ্টা। : বিএনপি নেতারা বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন, সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, দণি এশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানসহ অন্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, ষড়যন্ত্রমূলক, জাল জালিয়াতির মাধ্যমে দায়ের করা কথিত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার ঘোষিত রায় অবৈধ, শেখ হাসিনা ও তার পরিবার এবং আওয়ামী লুটেরাদের ব্যাংক ডাকাতি ও দুর্নীতি আড়াল করার এক ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র। : মানববন্ধন ও বিােভ সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন  যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক প্রধান উপদেষ্টা শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুছ, সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি আন্দুল হামিদ চৌধুরী, সাবেক সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মুজিবুর রহমান মুজিব, সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ তৈমুছ আলী, এম লুৎফুর রহমান, প্রফেসর এম ফরিদ উদ্দিন, গোলাম রাব্বানী সোহেল, শাহ আকতার হোসেন টুটুল, তাজুল ইসলাম, সাবেক উপদেষ্টা সলিসিটর ইকরাক মজুমদার, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মামুন, কামাল উদ্দিন, শরিফুজ্জামান চৌধুরী,  নাসিম আহমেদ চৌধুরী, ব্যারিস্টার আবু সায়েম, যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক আহ্বায়ক এমদাদ হোসেন টিপু, যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক সিনিয়র সদস্য  আশরাফুল ইসলাম হীরা, অ্যাডভোকেট তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, মেসবাউজ্জামান সোহেল, সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক  ফেরদৌস আলম, ডাক্তার মুজিবুর রহমান, ইসলাম উদ্দিন, হেলাল নাসিমুজ্জামান, জসীম উদ্দিন সেলিম, আজমল হোসেন চৌধুরী জাবেদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খসরুজ্জামান খসরু, লন্ডন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবেদ রাজা, কোষাধ্য আব্দুস ছাত্তার, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এনামুল হক লিটন, যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক যুববিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হামিদ খান হেভেন, সাবেক ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক আবু নাসের শেখ, সাবেক স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আকতার, সাবেক সহ-দফতর সম্পাদক সেলিম আহমান, সাবেক সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট লিয়াকত আলী, সাবেক সহ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মো. সরফরাজ আহমেদ সরফু, সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক জাহিদ গাজী, সাবেক সদস্য কামাল চৌধুরী, সালেহ গজনবী, গুলজার আহমেদ, আব্দুল বাসিত বাদশা, অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান, আব্দুল বাসিত বাদশা, এমদাদুল হক চৌধুরী, আমিনুর রহমান আকরাম, সোহেল আহমেদ, শিশু মিয়া, এ জে লিমন, লুবেক আহমেদ চৌধুরী, ইস্ট লন্ডন বিএনপির সভাপতি ফখরুল ইসলাম বাদল, সাধারণ সম্পাদক এস এম লিটন, সেন্ট্রাল লন্ডন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, লন্ডন নর্থ ওয়েস্ট বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন, কেমডেন এন্ড ওয়েস্ট মিনিস্টার বিএনপির সাধারণ সম্পাদক পারভেজ কবির, নিউহাম বিএনপির সভাপতি মোস্তাক আহমেদ, এনফিল্ড বিএনপির সভাপতি হেলাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মো. ফয়জুল হক, সাসেক্স বিএনপির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শামিম আহমেদ, লন্ডন নর্থ-ওয়েস্ট বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস শহীদ, সেন্ট্রাল লন্ডন বিএনপির সহ-সভাপতি সৈয়দ শামিম হোসাইন, কেমডেন এন্ড ওয়েস্ট মিনিস্টার বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম সাইফুল শিপু, যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতা নাজমুল হোসেন চৌধুরী, মাওলানা শামিম আহমেদ, লন্ডন মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কুদ্দস, শরীফ উদ্দিন ভূঁইয়া বাবু, আব্দুল রব, এমদাদ হোসেন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের, রোমান আহমদ চৌধুরী, মাহবুবুর রহমান সাকিব, রোমান আহমেদ চৌধুরী, সোহেল শরীফ মোহাম্মদ করিম, মাহবুব হাসান সাকিব, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক তোফায়েল হোসেন মৃধা, কাওছার আহমেদ, আবু তাহের, কোষাধ্য মো. জিয়াউর রহমান, প্রচার সম্পাদক মো. মঈনুল ইসলাম, সেলিম মাহমুদ, মো. মাকসুদুল হক, মো. রবিউল আলম, দেওয়ান মইনুল হক উজ্জ্বল, মিলাদ হসেন রুবেল, কামরুন্নহার সাহানা, আসমা জামান, আবু নোমান, মিছবাহ উদ্দিন, শাকিল আহমদ, ফজলে রহমান পিনাক, ইমরান হোসেন, মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ, জামাল হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, মো. ফরিদউল্লাহ মুন্সী, আরিফুল হক, আব্দুস সামাদ রাজ,  ইস্ট লন্ডন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জামাল উদ্দিন, নিউহাম বিএনপির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাকসুদুর রহমান, যুবদলের সভাপতি রহিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মিসবা বি এস চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, আইনজীবী ফোরামের সিনিয়র সহ-সভাপতি ব্যারিস্টার আবু ইলিয়াছ, সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার হামিদুল হক চৌধুরী আফিন্দি, জাসাস সভাপতি এমাদুর রহমান এমাদ, সাবেক সহ-সভাপতি এম এ সালাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি তরিকুর রশিদ চৌধুরী শওকত, সাধারণ সম্পাদক তাজবির চৌধুরী শিমুল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, মহিলা দলের আহ্বায়ক ফেরদৌস রহমান, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল হক রাজ, সহ-সভাপতি দেওয়ান আব্দুল বাছিত, আবুল খয়ের, যুগ্ম সম্পাদক বাবর চৌধুরী, নুরুল আলী রিপন, সুয়েদুল হাসান, শাকিল আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক মোশারফ হোসেন, সিনিয়র সদস্য সৈয়েদ লায়েক মোস্তাফা, আইন বিষয়ক সম্পাদক ফয়ছল আহমেদ, প্রবাসী কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া, স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি আতাউর রহমান, ডালিয়া লাকুরিয়া,  যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম শিমু, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান, জাহিদুর রহমান, জাসাসের যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাবলু, আব্দুল মোতালিব লিটন, মাহফুজুর রহমান, ছাত্রনেতা সাইফুল ইসলাম মিরাজ, হুমায়ুন কবির হিমু, মাহবুবুর রহমান, ফজলে রহমান পিনাক, রেজাউল করিম রিকি, ফুয়াদ আহমেদ, মনির আহমেদ প্রমুখ।         : : :





শেষ পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেছেন, অদৃশ্য শক্তির কারণে সাগর-রুনি হত্যার বিচারে কালক্ষেপণ করা হচ্ছে। আপনি কী একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
1454 জন