যশোরে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের বাড়িতে তাণ্ডব
Published : Tuesday, 13 February, 2018 at 12:00 AM
যশোর অফিস : যশোর জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুলের বাড়িতে নজিরবিহীন তাণ্ডব চালিয়েছে পুলিশ। এসময় পুলিশ বাড়ির  মালামাল ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করেছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। পুলিশের তান্ডবের সময় গোটা পরিবারে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। শিশু ও নারীরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। নাজমুল হোসেন বাবুলের মা সাহিদা বেগম জানান, শুক্রবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে ২০-৩০ জন পুলিশ তাদের বাড়ি ঘেরাও করে। ১০-১২ জন পুলিশ তাদের বাড়ির মধ্যে ঢুকে দরজা খুলে দিতে বলে। তিনি বলেন, আমি এবং আমার মেয়েরা মিলে পুলিশকে জানাই বাড়িতে কোনো পুরুষ-ছেলে নেই। তার পরেও পুলিশ গেট খুলতে বাধ্য করে। গেট খুলে দিলে পুলিশ আমার বসতবাড়ির পাঁচটির চারটি রুমে ঢুকে তল্লাশির নামে ঘরে থাকা টিভি, শো-কেস, আলমারি, টি-টেবিল, ড্রেসিং টেবিলসহ সব কিছু ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয় । বাবুলে মা কাঁদতে কাঁদতে বলেন আমার ছেলে রাজনীতি করে এটা ঠিক কিন্তু আমাদের কি দোষ। একের পর এক পুলিশ আমাদের উপর কেন এমন অত্যাচার চালাবে ? বাবুল কোথায় তা নিজেও জানিনা। ওর বৌ, ছেলে আমাদের কাছে থাকে। আমরা গোটা পরিবার  এখন চরম আতংকের মধ্যে আছি। বাবুলের বোন আসমা খাতুন জানান, পুলিশ ঘরে ঢুকেই বলে ‘বাবুল কই, কই বাবুল। এসময় বাড়ির মহিলাদের উদ্দেশে অশ্লীল গালিগালাজ করতে থাকে। পুলিশ পুরো বাড়িতে তান্ডব চালাতে থাকে চোখের সামনে যা কিছু পায় তা হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়ে ভেঙে ফেলে দিতে থাকে। তিনি বলেন, আমাদের বসতবাড়ির পাঁচটি রুম। এর মধ্যে একটিতে আমার বোন ছিল, মাত্র পাঁচদিন আগে যার বাচ্চা হয়েছে। শুধু সেই রুমে পুলিশ প্রবেশ করেনি। আর সব রুমের সমস্ত মালামাল তারা ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছে। তিনি দাবি করেন, পুলিশি বাড়িটিতে তাণ্ডব চালিয়ে কম করে হলেও দুই লাখ টাকার মালামাল ধ্বংস হয়েছে। তাদের পরিচয় জানতে চাইলে একপর্যায় তারা বলে আমরা পুলিশ এই বলে আমাদের উপরও চড়াও হন। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ চলে যায়।   : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

আসক নেতৃবৃন্দ বলেছেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে দ্রুত বিচার আইনে শাস্তি বাড়ানো হয়েছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
42287 জন