মানববন্ধনে জনসমুদ্র
Published : Tuesday, 13 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 12.02.2018 11:08:23 PM
মানববন্ধনে জনসমুদ্ররফিক মৃধা, দিনকাল : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন ঘিরে রাজধানীর প্রেসক্লাব এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। ‘বন্দি আছে আমার মা, ঘরে ফিরে যাব না’ ইত্যাদি সে­াগানে মুখরিত হয়ে উঠে প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তা। গতকাল সোমবার সকাল ১০টার পর রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হতে শুরু করেন বিএনপি ও দলের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তারা সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে হাতে হাত রেখে মানববন্ধন তৈরি করেন। কর্মসূচির নির্ধারিত সময়ের আগেই হাইকোর্টের মোড় থেকে তোপখানা রোডের সচিবালয়ের গেট পর্যন্ত রাস্তায় নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন। এ সময় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ব্যানার হাতে বিভিন্ন সে­াগান দেন তারা। নেতাকর্মীরা ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, দিতে হবে, দিতে হবে’, ‘জেলের তালা ভাঙব, খালেদা জিয়াকে আনব’ ইত্যাদি সে­াগানে প্রেসক্লাব এলাকা মুখর করে তোলেন। : গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলÑ বিএনপির উদ্যোগে এক ঘন্টার মানববন্ধন কর্মসূচির সমাপনী বক্তব্যে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, শত প্রতিকূলতার মধ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার এই কারাবাসের বিরুদ্ধে আপনাদের যে ক্ষোধ, আপনাদের যে হতাশা, আপনাদের বেগম জিয়ার প্রতি যে ভালোবাসা সেটা আপনারা প্রকাশ করেছেন। আজকে এই মানববন্ধনের মধ্য দিয়ে এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, বেগম খালেদা জিয়া এদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা। তাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজা দিয়েছে। আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলে দিতে চাই, দেশনেত্রীর মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আমাদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ছাড়া আমরা নির্বাচনে যাব না। মিথ্যা, ভুয়া ও জাল নথির মাধ্যমে সাজানো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় আদালত কর্তৃক সাজা দিয়ে কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।  মানববন্ধনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ নেতৃবৃন্দ ফুটপাতে উঠে মাইক ছাড়া বক্তব্য রাখেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি হয়। তোপখানার মোড় থেকে হাইকোর্টের কদম ফোয়ারা পর্যন্ত পুরো এলাকায় লাখ লাখ নেতাকর্মী-সমর্থক এই মানববন্ধনে অংশ নেন। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে নেতাকর্মী জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমবেত হয়ে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, মুক্তি চাই’, ‘খালেদা জিয়ার কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে’ ইত্যাদি সে­াগান দিতে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবী, কৃষিবিদসহ বিভিন্ন পেশা-শ্রেণির নেতাকর্মীরা এতে সমবেত হয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন। এ মানববন্ধনে ব্যাপক সংখ্যক মহিলা কর্মী-সমর্থক অংশ নেন। : এই মানববন্ধনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকত উল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, মেজর জেনারেল (অব) রুহুল আলম চৌধুরী, মেজর জেনারেল (অব) মাহমুদুল হাসান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, শওকত মাহমুদ, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, জয়নুল আবদিন ফারুক, জয়নাল আবেদীন ভিপি, মনিরুল হক চৌধুরী, গোলাম আকবর খন্দকার, হাবিবুর রহমান হাবিব, অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, জহিরুল হক শাহজাদা মিয়া, আবদুস সালাম, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক  ফজলুল হক মিলন, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক নূরী আরা সাফা, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, শহিদুল ইসলাম বাবুল, হারুন-অর রশিদ, সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম আলিম, শামীমুর রহমান শামীম, সহ-শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, সহ-তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, সহ-আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক বেবী নাজনীন, সহ-যুববিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী, সহ-প্রান্তিক জনশক্তিবিষয়ক সম্পাদক অপর্ণা রায়, সহ-স্থানীয় সরকারবিষয়ক সম্পাদক শাম্মী আক্তার, সহ-জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সহ-প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক প্রফেসর ড. মোর্শেদ হাসান খান, সহ-স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক নিলুফার মনি, সহ-স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. এসএম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, সাবেক সংসদ সদস্য রাশেদা বেগম হীরা, নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, রফিক শিকদার, আ ক ম মোজাম্মেল হক, আবু নাসের মুহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, খালেদা ইযাসমিন, সালাহ উদ্দিন ভূঁইয়া শিশির, আব্দুল মতিন, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু, সাধারণ সম্পাদক আহসানউল্লাহ হাসান, সহ-সভাপতি ফেরদৌসি আহমেদ মিষ্টি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম পারভেজ, দফতর সম্পাদক এবিএস আব্দুর রাজ্জাক, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবদুল বাশার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমএ হান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক তানজীর আহমেদ রবিন, বিএনপি নেতা অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন মন্ডল, দেওয়ান মো. নাজিম উদ্দিন, মোস্তফা কামাল হৃদয়, ইঞ্জিনিয়ার সিরাজ উদ্দিন হায়দার আরজু, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান, যুবদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা কামাল রিয়াদ, যুবদল দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল আলম মজনু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি ফখরুল ইসলাম রবিন, সাধারণ সম্পাদক গাজী রেজওয়ানুল হোসেন রিয়াজ, ঢাকা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দল দক্ষিণের সভাপতি এসএম জিলানী, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমেদ খান, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, জাসাস সভাপতি অধ্যাপক মামুন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক হেলাল খান, সহ-সভাপতি শায়রুল কবির খান, শাহিনুল ইসলাম শায়লা, মৎস্যজীবী দলের রফিকুল ইসলাম মাহতাব, উলামা দলের সভাপতি এমএ মালেক, সাধারণ সম্পাদক শাহ নেসারুল হক, জিয়া পরিষদের মহাসচিব ড. এমতাজ হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল্লাহিল মাসুদ, কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশীদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, সহ-সভাপতি আলমগীর হাসান সোহান, এজমল হোসেন পাইলট, নাজমুল হাসান, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, ইখতিয়ার রহমান কবির, আফরোজা খানম নাছরিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. রাসেল, ওমর ফারুক মুন্না, মেহবুব মাছুম শান্ত, কাজী মোখতার হোসেন, সেনিলা সুলতানা নিশিতা, সহ-সাধারণ সম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক বাশার সিদ্দিকী, ঢাকা মহানগর ছাত্রদল দক্ষিণের সভাপতি জহির উদ্দিন তুহিন, ঢাকা মহানগর পশ্চিমের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান স্বপন, ঢাকা মহানগর উত্তরের দফতর সম্পাদক তানভীর আহমেদ খান ইকরাম, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার, নাগরিক দলের সভাপতি সৈয়দ মো. ওমর ফারুকসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের লাখ লাখ মানুষ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন। : ২০ দলীয় জোটের কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাতীয় পাটির মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, মহাসচিব ফরিদ উদ্দিন, এলডিপির মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, এনপিপি’র চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এলডিপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব সাহাদাত হোসেন সেলিম, জাগপা’র সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা, জমিয়তে উলামা ইসলামের মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম, এনডিপির চেয়ারম্যান গোলাম মূর্তজা, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ ছিলেন।  : মানববন্ধনের এ কর্মসূচি উপলক্ষে সকাল থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। কাছাকাছি রাখা হয় জলকামানের গাড়িসহ পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার কয়েকটি মাইক্রোবাস। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি দুদিন বিক্ষোভ কর্মসূচির পর শনিবার ঢাকাসহ সারাদেশে তিন দিনের টানা কর্মসূচি ঘোষণা করে, যার প্রথম কর্মসূচির মানববন্ধন। আজ মঙ্গলবার হবে ঢাকাসহ সারাদেশে অবস্থান এবং পরদিন বুধবার অনশন কর্মসূচি। : খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে ঢাবি সাদা দলের মানববন্ধন : : বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন বানোয়াট মামলায় সাজা প্রদানের প্রতিবাদে এবং অবিলম্বে তার নি:শর্ত মুক্তির দাবিতে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষক। গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তারা এই মানববন্ধন করেন। ঢাবি সাদাদলের আহ্বায়ক ড. মো. আখতার হোসেন খান, যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. আবদুর রশিদ ও অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খানের নেতৃত্বে সাদা দলের অধ্যাপক ড. সদরুল আমিন, ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, লুৎফর রহমান, অধ্যাপক ড. মহব্বত খান, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান, ড. মাহফুজুর রহমান, ড. মামুন আহমেদ, অধ্যাপক ড. নূরুল আমিন, ড. মহিউদ্দিন আহমেদ, ড. আল মোজাদ্দেদী আলফেছানী, ড. মিজানুর রহমান, ইসরাফিল প্রামাণিক রতন, অধ্যাপক অনুপম সেন, অধ্যাপক দেবশীষ পাল, অধ্যাপক ড. নূরুল আমিন, অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী, অধ্যাপক আলামিন, ড. এহসানুল মাহবুব যোবায়ের, অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, অধ্যাপক শহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক জসিম উদ্দিন, মো. আনোয়ার হোসেন, মো. নূরুল আমিন প্রমুখ। জাতীয় প্রেসক্লাবের প্রধান গেটের সামনে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধনে দাঁড়ান ঢাবির শিক্ষকরা। তারা অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন। : গাজীপুর বিএনপির মানববন্ধন : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে গাজীপুর বিএনপি। গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী সায়েদুল আলম বাবুল, কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, শ্রীপুর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি কুতুব উদ্দিন, গাজীপুর জেলা বিএনপির সমবায়বিষয়ক সম্পাদক মনিরুজ্জামান খান লাবলু, গাজীপুর সদর থানা ছাত্রদলের সভাপতি নাসির উদ্দিন নাসির, কাপাসিয়া উপজেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি বেলায়েত হোসেন মোড়ল, জিয়া পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক হাসান সরোয়ার রাব্বী, সদস্য কবি কাওছার মাহমুদ, বিএনপি নেতা  নজরুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম শাহীন, যুবদল নেতা আশ্রাদুল আলম সিকদারসহ নেতৃবৃন্দ। : রাজশাহী মহানগর বিএনপির মানববন্ধন : : রাজশাহী অফিস জানায়, রাজশাহী মহানগর বিএনপি আয়োজিত বিএনপি চেয়ারপারসন, তিনবারের সফল সাবেক প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্র উদ্ধারে আপসহীন দেশনেত্রী, অধিকার বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের লড়াকু সৈনিক বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অবৈধ ও ষড়যন্ত্রমূলক সাজা প্রদানের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার বেলা ১১টায় নগরীর মালোপাড়াস্থ বিএনপি অফিসের সামনে প্রধান সড়কে মানববন্ধনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক, মহানগর বিএনপির সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাগমারা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল গফুর, আবুবকর সিদ্দিক, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিন শওকত, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসনবিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সহিদুন্নাহার কাজি হেনা, সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি জাহান পান্না ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী সমিতি রাজশাহীর সভাপতি এরশাদ আলী ঈশা। : অন্যদের মধ্যে বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, রাজপাড়া থানা বিএনপির সভাপতি শওকত আলী, মতিহার থানা বিএনপির সভাপতি আনসার আলী, শাহমুখদম থানা বিএনপির সভাপতি মনিরুজ্জামান শরীফ, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মিলু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, শাহমখদুম থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসুদ, মতিহার থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক খাজদার আলী, রাজপাড়া যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদ আলম, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন দিলদার, শাহমখদুম থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ বাবু, রাজপাড়া থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মুরাদ পারভেজ পিন্টু। : আরো উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক নেতা ওয়ালিউল হক রানা, রাজশাহী মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, মহানগর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হাসনাইল হিকল, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সমাপ্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান টিটু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়কবৃন্দ জাকির হোসেন রিমন, আখতার হোসেন, মহানগর রিপন, পরাগ, আব্দুল ওয়াদুদ বাবলু, আনন্দ কুমার, রাজশাহী মহানগর তাঁতী দলের সভাপতি আরিফুল শেখ বনি, সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, রাজশাহী মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহ্বায়িকাবৃন্দ অ্যাডভোকেট রওশন আরা পপি, অধ্যাপিকা সখিনা খাতুন, নুরুন্নাহার বেগম, জরিনা বেগম, মুসলেমা বেলী, রাজী, পুতুল, শিখা, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইলিয়াস বিন কাসেম, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোর্তজা ফামিমসহ রাজশাহী মহানগর বিএনপির ৩৭টি ওয়ার্ডের সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। : উপস্থিত বক্তারা বলেন, বেগম জিয়াকে কোনোভাবেই জেলে আটকে রাখা যাবে না। এখন তার মুক্তি সময়ের ব্যাপার মাত্র। তারা আরো বলেন, দুর্নীতিবাজ এই সরকারের প্রধানমন্ত্রী নিজের দুর্নীতি ধাপাচাপা দিতে আগামী নির্বাচনে পেশীশক্তি ব্যবহার করে ক্ষমতায় থাকার পাঁয়তারা করছে। কিন্তু তার এই খায়েশ কোনোভাবেই বাস্তাবায়িত হতে দেয়া হবে না বলে তারা জানান। : বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপি নেতা মিলন বলেন, বেগম জিয়াকে সাজা দেয়ায় বিএনপি এখন আরো জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছে। আওয়ামী লীগ যে আশা করে বেগম জিয়াকে সাজা প্রদান করেছে তাতে তাদের নিজের বাড়া ভাতে ছাই পড়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এখন তারা চোখে অন্ধকার দেখছে বলে বক্তৃতায় উল্লেখ করেন তিনি। দ্রুত শেখ হাসিনার পতনের জন্য আন্দোলন আরো তীব্র করার জন্য নেতাকর্মীদের আহবান জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন মিলন। : সভাপতির বক্তব্যে মেয়র বলেন, ফ্যাসিস্ট, দুর্নীতিবাজ এই সরকারের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী ভীত-সন্ত্রস্ত্র হয়ে নির্বাচন থেকে বিএনপিকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য এই মিথ্যা মামলার রায় এবং সাজা দিয়েছে বেগম খালেদা জিয়া ও তাঁর সন্তান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে। যতই জেল ও জরিমানা করা হোক বিএনপিকে কোনোভাবেই দমিয়ে রাখা যাবে না। বিএনপি একটি সুসংগঠিত, গণতান্ত্রিক ও ভদ্র মানুষের দল উল্লেখ করে সভাপতি বলেন, মানুষ এখন বুঝে গেছে ২০১৪ সালের নির্বাচনের পূর্বে কারা গাড়ি পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করেছিল। কারা দেশকে ভালবাসে আর কারা দেশকে অন্য দেশের নিকট বিক্রি করতে চায়। তিনি আরো বলেন, এই অবৈধ সরকার শুধু জনগণকে গুম, হত্যা করে ক্ষ্যান্ত নয় তারা জনগণের কথা বলার অধিকার, চলার অধিকার ভূলণ্ঠন করেছে। তিনি অনতিবিলম্বে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও এই অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য যেকোনো আন্দোলনে শরিক হওয়ার জন্য নেতাকর্মীদের আহবান জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন। : ময়মনসিংহের তারাকান্দায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত : : তারাকান্দা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান,  বিএনপি চেয়ারপারসন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়ার প্রতিবাদে ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলায় গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলার চৌরাস্তা মোড়ে সাবেক এমপি শাহ শহীদ সারোয়ারের নেতৃত্বে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন তারাকান্দা উপজেলার সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ স¤পাদক মো. মাসুদ রানা খান, তারাকান্দা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুল বাতেন, ডা. আজিজুল হক, আব্দুল লতীফ মাস্টার, শমশের আলী মন্ডল, এনায়েত কবির, আ. মোতালেব (বক্তার), আ. বারেক, আদম আলী, আব্দুস সালাম, কাশেম মহুরী, মোজাম্মেল হক, লাল হোসেন, এয়াকুব আলী, মফিদুল হক, আ. হালিম, যুবদলের সামিউল, জাহাঙ্গীর, আবুল কাশেম, বিল্লাল হোসেন, রিপন খান, সাখাওয়াত হোসেন, মফিদুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, তারাকান্দা উপজেলা তাঁতী দলের সভাপতি আব্দুস সালাম আকন্দ, সাধারণ সম্পাদক রনপ আহম্মেদ আজিজুল, শহিদুল হক, ইব্রাহিম, ছাত্রদলের আবু সাঈদ তালুকদার, নিজাম উদ্দিন, রুবেল মিয়া, সাজ্জাদ হোসেন, আজাদ, শুভ, হেলাল, ইয়াছিন তৃণমূল দলের মো. রনি মিয়া, এমদাদুল হক প্রমুখ। : ফরিদগঞ্জে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত : : ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি (চাঁদপুর) জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন, ৩ বারের নির্বাচিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়ার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে গতকাল ফরিদগঞ্জে উপজেলা, পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। : মানববন্ধন কর্মসূচিতে ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ব্যাংকিং ও রাজস্ববিষয়ক সম্পাদক, সাবেক এমপি লায়ন মো. হারুনুর রশিদের পক্ষ থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হীন উদ্দেশ্যে কথিত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় ৫ বছর এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের ১০ বছর সাজা দেয়ার প্রতিবাদে নিন্দা জানান। এ সময় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের বহু নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। : : : : : :  





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

আসক নেতৃবৃন্দ বলেছেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে দ্রুত বিচার আইনে শাস্তি বাড়ানো হয়েছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
42289 জন