ভালো ফলন দামে খুশি জয়পুরহাটের উচ্ছ্বসিত আলু চাষী
Published : Friday, 16 February, 2018 at 12:00 AM
জয়পুরহাট প্রতিনিধি : দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম আলু উৎপাদনকারী অঞ্চল জয়পুরহাটে শুরু হয়েছে আগাম জাতের আলু উত্তোলন। চলতি মৌসুমে বাম্পার ফলন ও ভালো দর পেয়ে উচ্ছ্বসিত কৃষক।  দরপতন না ঘটলে এবার গত কয়েক বছরের লোকসান কাটিয়ে আবারো ঘুরে দাঁড়াবেন এমনই আশাবাদ কৃষকদের। জয়পুরহাট কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এবার ৪২ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে, যা গত বছরের চেয়ে ২ হাজার হেক্টর বেশি। আলু উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮ লাখ ৬৪ হাজার টন আর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৯ লাখ টন। জয়পুরহাট সদর, পাঁচবিবি, আক্কেলপুর, ক্ষেতলাল ও কালাইয়ের  আলু চাষীরা আগেভাগেই দ্রুত বর্ধনশীল জাতের  গ্র্যানোলা, লরা, মিউজিকা, ক্যারেজ, রোমানা ও ফাটা পাকরি চাষ করেছেন। জেলার দিগন্তজুড়ে এখন আলু ক্ষেতের সবুজ সমারোহ। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলন ভালো হওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে দিন দিন। তাই তারা ব্যস্ত সময় পার করছেন আলু ক্ষেতগুলোতে। আর এরই মধ্যে আগাম জাতের আলু ঘরে তোলার কাজ শুরু করেছেন অনেকেই। ইতিমধ্যে তারা ক্ষেত থেকে আলু উত্তোলন ও বিক্রি শুরু করেছেন। কৃষকরা বলছেন, প্রতি বিঘা (৩৩ শতক) জমিতে বীজ, জমি চাষ, সার-ওষুধ, সেচ, নিড়ানো, বাঁধাইসহ আলু উত্তোলনে চাষীদের উৎপাদন খরচ হয়েছে গড়ে ১৩ হাজার টাকা। চলতি মৌসুমে আগাম জাতের আলু উত্তোলন করে প্রতি শতাংশে ফলন পাওয়া গেছে ৫০ থেকে ৬০ কেজি। অর্থাৎ বিঘাপ্রতি ফলন হয়েছে ৪০ থেকে ৫০ মণ। উত্তোলিত এসব আলু প্রকার ভেদে চাষীরা প্রতি মণ আলু বিক্রি করছেন ৪০০ টাকা থেকে সাড়ে ৪০০ টাকা দরে। এতে করে কৃষক প্রতি বিঘায় লাভ করছেন ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা। ক্ষেতলাল উপজেলার দাশড়া গ্রামের সোনা মিয়া জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার ফলন যেমন বাম্পার হয়েছে দামও পাওয়া যাচ্ছে ভালো। আলু আবাদ করে বিগত কয়েক বছরে যে লোকসানের ঘানি টানতে হয়েছে তা হয়তো এবার অনেকটা পুষিয়ে যাবে। কালাই উপজেলার হাতিয়র গ্রামের গোলাম রব্বানী  জানান, এবার তিনি ৪ বিঘা জমিতে মিউজিকা জাতের আগাম আলু তুলেছেন। ফলন পেয়েছেন ১৯০ মণ। : :





দেশের পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
3882 জন