মুক্তি দাবিতে তিনদিনের কর্মসূচি ঘোষণা করলেন ফখরুল
বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই খালেদা জিয়াকে আটক
Published : Friday, 16 February, 2018 at 12:00 AM, Update: 15.02.2018 10:52:29 PM
বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই খালেদা জিয়াকে আটকদিনকাল রিপোর্ট : বিএনপিকে ‘নেতৃত্ব শূন্য’ এবং ‘নির্বাচনে বাইরে’ রাখতে সরকার ‘ব্লু প্রিন্ট’ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন মির্জা ফখরুল। মির্জা ফখরুল বলেন, একটা ব্লু প্রিন্ট, একটা নীল নকশা। সেই নীল নকশা কী? বিএনপিকে নেতৃত্ব শূন্য করা। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপি যেন আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারে সেই ব্যবস্থা করা। আরো নীল নকশা হচ্ছে। নতুন আদালত সৃষ্টি করা হচ্ছে। একটা মামলাকে ভেঙে দুইটা করা হয়েছে। বিস্ফোরকের জন্য একটা মামলা, ভাঙচুরের জন্য আরেকটা মামলা। অর্থাৎ বিরোধী দল যারা করবে তাদেরকে এই মামলা করতে করতে সারাটা জীবন চলে যাবে, মৃত্যুবরণ করতে হবে তাদেরকে এই মামলা ফেইস করতে করতে। তিনি বলেন, এই ভয়াবহ নির্যাতনের অবস্থা আওয়ামী লীগ তৈরি করেছে। উদ্দেশ্য একটাই- তারা দেশে একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করতে চায় এবং আগামী নির্বাচনে তারা (মতাসীন দল) আবার জয়ী হতে চায়। তারা জানে যে, সুষ্ঠু অবাধ ও প্রতিযোগিতামূলক যদি নির্বাচন হয়, তারা জয়লাভ করতে পারবে না বলেই এই ব্যবস্থাগুলো নিয়েছে। আমরা পরিষ্কার করে বলতে চাই, আমরা শান্তি চাই, আমরা সংঘাত চাই না, আমরা দেশে একটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাই, যে পরিবেশের মধ্য দিয়ে আগামী নির্বাচনে জনগণ যাতে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে সেই অবস্থা তৈরি করতে হবে। : সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও দেশের বৃহৎ রাজনৈতিক দলের প্রধান বেগম খালেদা জিয়াকে ‘মিথ্যা মামলায়’ সাজা প্রদান এবং পরবর্তীতে পুরান ঢাকার ‘পরিত্যক্ত’ কারাগারে রাখার ঘটনা ‘চরমতম নির্যাতন’ বলে তীব্র নিন্দা ও ােভ প্রকাশ করেন বিএনপি মহাসচিব। আমরা শুনেছি অতীতে মধ্যযুগে যে ধরনের কারা নির্যাতন করা হতো, আমরা শুনেছি ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমলে স্বদেশী আন্দোলনে যারা ছিলেন, দেশের জন্য যারা লড়াই করেছিলেন, তাদেরকে যেভাবে কারাগারে নিপে করা হতো, যে নির্যাতন করা হতো, তার চেয়ে কোনো অংশে কম যন্ত্রণা ও নির্যাতন আজকে এই মহান নেত্রীকে করা হচ্ছে না। :  তার মুক্তির দাবিতে দলীয় কর্মসূচি করতে না দেয়ার বিষয়টি তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা ল্য করে দেখবেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আমরা যে কর্মসূচিগুলো দিচ্ছি, সেই কর্মসূচিগুলো একেবারেই শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক কর্মসূচি। কিন্তু সরকার সেগুলোও করতে দিচ্ছে না। ঢাকায় গতকাল আমাদের ৪টা পর্যন্ত যে অনশনের কর্মসূচি ছিলো, সেটাকে সংকুচিত করে ১টার মধ্যে তারা (পুলিশ) শেষ করতে বলেছে। এরমধ্যেও আমাদের বেশ কয়েকজন নেতাকে গ্রেফতার করেছে। অর্থাৎ নো স্পেস, কোনো স্পেসই দেয়া হচ্ছে না। এই স্পেস না দেয়া হচ্ছে সবচেয়ে বড় লণ যে, তারা কোনো নকশা তৈরি করেছেন এবং কিভাবে যেতে চান। : সারাদেশে ‘নাশকতার’ কথা বলে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এ পর্যন্ত সাড়ে ৪ হাজারের বেশি নেতা-কর্মী গ্রেফতার হয়েছে বলে দাবি বিএনপি মহাসচিবের। : সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা একদিকে বলছেন গণতান্ত্রিক কোনো কর্মসূচি, নিয়মতান্ত্রিক কোনো কর্মসূচিতে বাধা দেয়া হবে না। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ডিএমপি কমিশনার বলেছেন, এমনকি প্রধানমন্ত্রী বিদেশ যাওয়ার আগেও বলেছেন। তাহলে কেন বাধা দেয়া হচ্ছে? একটা স্থানেও দেখাতে পারবে না কর্মসূচিকে ঘিরে বিশৃঙ্খলা-সংঘাত হচ্ছে। তাহলে আজকে এভাবে কেন গণগ্রেফতার করা হচ্ছে? উদ্দেশ্য একটাই- বিএনপিকে নেতৃত্বশূন্য করা, যাতে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারে। সেজন্য তারা নিত্য নতুন নীল নকশা করছে। : আমরা দেশে একটা শান্তিপূর্ণ অবস্থা তৈরি করতে চাই, জনগণ যাতে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে। কিন্তু দুর্ভাগ্য হচ্ছে, সরকার সেটা চায় না। আর চায় না বলেই এ সব করছে। নাশকতা কে করছে, আপনারা করছেন। সন্ত্রাস কে করছে, আপনারা করছেন। সন্ত্রাস করে গোটা পরিবেশকে ভিন্ন খাতে নেয়ার চেষ্টা করছেন। আমরা দেশে শান্তিপূর্ণভাবে সকলের অংশগ্রহণে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপে নির্বাচন চাই বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল। : সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য জয়নুল আবদিন ফারুক, আতাউর রহমান ঢালী, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ। : :





প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। আপনি কি একমত?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
3929 জন